ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে নামার আগে ভারতকে এই দূর্বলতা শোধরাতে হবে, মত ভিভিএস লক্ষ্মণের 1

ভারত ও ইংল্যান্ডের মধ্যে পাঁচ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ শুরু হতে যাচ্ছে ৪ আগস্ট থেকে। ইংলিশ কন্ডিশনে ভারতের রেকর্ড দেখে ইংল্যান্ডকে সিরিজের ফেভারিট হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে, কিন্তু সবাই দুই দলের মধ্যে ঘনিষ্ঠ প্রতিযোগিতা আশা করে। তবে ইংল্যান্ডের শর্তগুলি ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের মোটেও মানায় না এবং দলের ব্যাটসম্যানরা সবসময় লড়াই করতে দেখা যায়। ভারতের প্রাক্তন খেলোয়াড় ভিভিএস লক্ষ্মণ মনে করেন, যদি টিম ইন্ডিয়াকে তার মাটিতে ইংল্যান্ডকে হারাতে হয়, তাহলে দলের ব্যাটসম্যানদের টেস্ট সিরিজে ঐক্যবদ্ধভাবে পারফর্ম করতে হবে। তিনি বলেন, এক বা দুই ব্যাটসম্যানের ওপর নির্ভরতা দলের সবচেয়ে বড় দুর্বলতা।

India (IND) vs England (ENG) 4th Test Day 3 Highlights: India win by  innings and 25 runs, win series 3-1 - India Today

‘স্টার স্পোর্টস’ এর সাথে আলাপকালে লক্ষ্মণ বলেছিলেন, “আমি মনে করি দলের সামগ্রিক মানসিকতার পরিবর্তন হয়েছে। ২০২০ সালে অস্ট্রেলিয়া যেভাবে জিতেছিল, দলটি যেভাবে গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়দের অনুপস্থিতিতে ব্রিসবেনে অস্ট্রেলিয়াকে পরাজিত করে সিরিজ দখল করেছিল, তাতে বোঝা যায় এই দলের কতটা গভীরতা রয়েছে। আমার মতে, ফাস্ট বোলিং আরও শক্তিশালী হয়ে উঠেছে এবং সারা বিশ্বে ভালো পারফর্ম করার পর তারা অনেক আত্মবিশ্বাসেও আছে। রবি শাস্ত্রী এবং বিরাট কোহলির একটা জিনিসের দিকে মনোযোগ দেওয়া দরকার তা হল ব্যাটসম্যানদের ম্যাচ জেতানো পারফরম্যান্স। বিদেশের কন্ডিশনে বিশেষত ইংল্যান্ডের পরিস্থিতিতে তিনি দু’জন ব্যাটসম্যানের উপর পুরোপুরি নির্ভরশীল। যদি আপনি পাঁচ ম্যাচের টেস্ট সিরিজে ইংল্যান্ডকে হারাতে চান তবে আপনার ব্যাটসম্যানদের একত্রিত হয়ে একটি ভাল খেলা দেখাতে হবে। আপনি এক বা দুই ব্যাটসম্যানের পারফরম্যান্স আশা করতে পারেন না এবং আপনি সিরিজ জিতবেন। রবি শাস্ত্রী এবং বিরাট কোহলির এই বিষয়টি দেখার দরকার।”

England vs India: Five-match Test series set to be played in front of  capacity crowd - Sports News

লক্ষ্মণ জানালেন এই টেস্ট সিরিজে কোন খেলোয়াড় তার চোখে গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে। তিনি বলেছিলেন, “ভারতের দৃষ্টিকোণ থেকে আমি ঋষভ পন্থকে নিয়ে যাব এবং বোলিংয়ে জসপ্রিত বুমরাহকে পছন্দ করতে চাই। ইংল্যান্ডের জন্য, আমি জেমস অ্যান্ডারসন এবং জো রুটকে ব্যাট দিয়ে নেব। ইংল্যান্ডে ভারতীয় দলের রেকর্ডটি বিশেষ ছিল না এবং ২০১৮ সালে দলকে টেস্ট সিরিজে ৪-০ ব্যবধানে পরাজিত হতে হয়েছিল। একই সময়ে, ২০১৪ সালেও, দলকে ৩-১ ব্যবধানে পরাজয়ের মুখোমুখি হতে হয়েছিল।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *