IND vs BAN: ‘ভুয়ো ফিল্ডিং’ বিতর্কে সঠিক কারা? কতটা যুক্তি আছে বাংলাদেশের অভিযোগে? মুখ খুললেন আকাশ চোপড়া !! 1

IND vs BAN: ভারত বনাম পাকিস্তানের পরেই উপমহাদেশের ক্রিকেটে যে ম্যাচ নিয়ে সবচেয়ে সরগরম থাকে ক্রিকেটমহল তা হলো ভারত বনাম বাংলাদেশ। যখনই মুখোমুখি হয় এই দুই দল ঠিকরে বেরোয় স্ফুলিঙ্গ। অ্যাডিলেডে টি-২০ বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বের ম্যাচটিও তার ব্যতিক্রম হলো না। বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচ শেষমেশ ভারত জিতলো ৫ রানে। ক্রিকেটের পাশাপাশি ভারত বনাম বাংলাদেশ ম্যাচ মানেই এখন হয়েছে বিতর্ক। বাংলাদেশের হার কিছুতেই মেনে নিতে পারেন না সেই দেশের জনগন, মিডিয়া থেকে খেলোয়াড়েরা। ভারত জিতলেই অধিকাংশ সময় তাঁরা খুঁজে পান দুর্নীতির গন্ধ। আইসিসি’তে নিজের প্রভাব খাটিয়ে জেতে ভারত, তাঁদের দাবী এটাই। মাঝেমধ্যেই সমাজমাধ্যমে ‘আম্পায়ার চুর’, ‘২০১৫ সালে রোহিত শর্মা আউট ছিলো’ নিয়ে শুরু হয় তরজা। ২০২২ টি-২০ বিশ্বকাপের ভারত বনাম বাংলাদেশ’টি ম্যাচ’টি সেই গল্পে এক নতুন অধ্যায় যোগ করলো। যোগ করলেন যিনি, তিনি আর কেউ নয় টিম ‘টাইগার্স’-এর উইকেটরক্ষক নুরুল হাসান। ভারতের ‘সুপারস্টার’ বিরাট কোহলি’কে(Virat Kohli) সরাসরি ‘প্রতারক’ প্রতিপন্ন করতে চাইলেন তিনি। বিরাট নাকি ‘ভুয়ো ফিল্ডিং’ করেছেন অ্যাডিলেডে। আর তা নিয়ে কোনো ব্যবস্থা নেন নি আম্পায়ার’রা।

যে ঘটনা নিয়ে বিতর্ক-

Virat Kohli | image: Twitter
Bangladesh accuses India’s Virat Kohli of ‘fake fielding’ against them.

প্রথমে ব্যাট করে ভারত করে ১৮৪ রান। তাড়া করতে নেমে দারুণ খেলছিলেন লিটন দাস(Litton Das)। বাংলাদেশের ইনিংসের সপ্তম ওভারের দ্বিতীয় বল’টি ডিপ পয়েন্টের দিকে ঠেলে দুই রান নেওয়ার চেষ্টা করছিলেন ‘টাইগার্স’ ওপেনারদ্বয়, লিটন দাস এবং নাজমুল হোসেন শান্ত। বল কুড়িয়ে উইকেটরক্ষক দীনেশ কার্তিকের দিকে ছোঁড়েন অর্শদীপ সিং। পয়েন্টে দাঁড়ানো কোহলি হঠাৎ’ই নন-স্ট্রাইকার প্রান্তের দিকে বল ছোঁড়ার ভঙ্গি করেন। দেখা যায় বল তাঁর আশেপাশেও ছিলো না তখন। মাঠে উপস্থিত দুই আম্পায়ার মারে ইরাসমাস ও ক্রিস ব্রাউন খেয়াল করেন নি কোহলি’কে। এমনকি দুই বাংলাদেশী ব্যাটার’ও কোনো অভিযোগ জানান নি। তাঁরা দেখেন’ই নি কোহলি’র দিকে। ম্যাচ’ও চলছিলো নিজের গতি’তে। কিন্তু বাংলাদেশ হারতেই এই ঘটনা নিয়ে মুখ খুলেছেন নুরুল হাসান। বাংলাদেশের হারের ব্যবধান ৫ রান। আর তাঁর দাবী যেহেতু কোহলি “ভুয়ো ফিল্ডিং’ করেছেন সেহেতু ৫ রান ‘পেনাল্টি’ প্রাপ্য ছিলো তাঁদের। যদিও আইসিসি’র নিয়মাবলীর ধারা ৪১.৫ বলছে, যদি ব্যাটারদের বিভ্রান্ত করতে কেউ ভুয়ো ফিল্ডিং-এর অঙ্গভঙ্গি করেন তাহলে মাঠে উপস্থিত আম্পায়ার’রা ব্যাটিং টিম’কে ৫ রান অতিরিক্ত দিতে পারবেন। এক্ষেত্রে দুই বাংলাদেশ ব্যাটারের কেউ বিষয়টি লক্ষ্যই না করায় তাঁদের বোকা বানানোর চেষ্টা হয়েছিলো যুক্তি’টি কতদূর ধোপে টেকে তা অবশ্য দেখার।

মতামত দিলেন আকাশ চোপড়া-

Aakash Chopra | image: Twitter
Cricket expert Aakash Chopra weighs in on the ‘fake fielding’ controversy

‘ভুয়ো ফিল্ডিং’ বিতর্কে দু ভাগে ভাগ হয়ে গিয়েছে ক্রিকেটবিশ্ব। একভাগ মনে করছেন ব্যাটারের দৃষ্টি যখন বিরাট কোনো ভাবেই আকর্ষণ করেন নি, তখন একে ‘ভুয়ো ফিল্ডিং’ বলা চলে না। ব্যাটার’রা নির্বিঘ্নে রান সম্পূর্ণ করেছেন, তাঁদের বাধা দেওয়ার কোনো চেষ্টা কোহলি করেন নি। অন্য দল এটাকে ‘ভুয়ো ফিল্ডিং’ বলার পক্ষে সওয়াল করেছেন। মূলত বাংলাদেশী মিডিয়া থেকে এই দাবী উঠলেও ভারতেই একজন সমর্থম পেয়ে গেলেন তাঁরা। এই ঘটনা’কে ‘ভুয়ো ফিল্ডিং’ বললেন ভারতীয় ধারাভাষ্যকার আকাশ চোপড়া। প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনার প্রথমে ট্যুইট করেন , “ভুয়ো ফিল্ডিং কি সত্যিই হয়েছে?” পরে জানান, “ ওটা ভুয়ো ফিল্ডিং ছিলো। ১০০% ছিলো। বিরাট যেভাবে থ্রো করার ভঙ্গি করেছে আম্পায়ার দেখলে আমাদের ৫ রানের পেনাল্টি হত। আমরা সেই ৫ রানেই তও জিতলাম শেষমেশ।” নিজের ইউটিউব চ্যানেলে চোপড়া আরও জানান, “এইবার তো আমরা বেঁচে গেলাম। তবে ভবিষ্যতে আম্পায়ারদের আরও বেশী দায়িত্বশীল হতে হবে। বাংলাদেশের অভিযোগ কি সঠিক? হ্যাঁ ! তবে মাঠে যখন কেউ লক্ষ্য করে নি এখন আর কিছু হওয়া সম্ভব নয়।”  বাংলাদেশের বিরুদ্ধে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচ জিতে ভারত ৪ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে এখন রয়েছে গ্রুপ-২ এর শীর্ষে। সেমিফাইনালে প্রায় কনফার্ম ভারতীয় দলের পরবর্তী ম্যাচ আগামী রবিবার জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে।

Read More: TOP3: টি-২০ বিশ্বকাপে ভারতের সর্বাধিক ম্যান অফ দ্য ম্যাচ জয়ী ৩ ক্রিকেটার !!

Leave a comment

Your email address will not be published.