পাক বোর্ডের বিরুদ্ধে বিষ্ফোরক বিশমা মারুফ, এই বিষয়ে তোপ দাগলেন মহিলা দলের অধিনায়ক !! 1

অস্ট্রেলিয়ায় চলতি টি-২০ বিশ্বকাপে পাকিস্তানের পুরুষ দলের প্রদর্শন নিয়ে ঘরে বাইরে চলছে সমালোচনা। স্ক্যানারের তলায় রয়েছেন সভাপতি রামিজ রাজা সহ পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড’ও। এরই মধ্যে তাদের আরও বিড়ম্বনায় ফেললেন সেই দেশের মহিলা ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিশমা মারুফ(Bismah Maroof)।  পুরুষ দল যখন টি-২০ বিশ্বকাপ খেলতে ব্যস্ত, মহিলা দলের সূচী’তে তখন রয়েছে আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে একটি টি-২০ সিরিজ। পাকিস্তানের ঘরের মাঠে সেই সিরিজ শুরু হওয়ার ঠিক আগে সরাসরি বোর্ডের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন মহিলা দলের অধিনায়ক। যার ফলে মহিলা ক্রিকেট উন্নয়ন নিয়ে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের সদিচ্ছা কতটা তা নিয়ে আবার প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

মহিলা ক্রিকেট নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত ভারতের-

পড়শী দেশের ক্রিকেট বোর্ড যখন মহিলা ক্রিকেট নিয়ে অস্বস্তি’তে, সেই সময় এক যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত নিয়ে ভারতের ক্রিকেট নিয়ামক সংস্থা বিসিসিআই(BCCI) বুঝিয়ে দিয়েছে হরমনপ্রীত, স্মৃতি মন্ধানা’দের কতটা গুরুত্ব দিচ্ছে তাঁরা। চলতি বছরের অক্টোবর মাসেই ভারতীয় বোর্ড ঘোষণা করেছে যে ভারতীয় মহিলা দলের চুক্তিবদ্ধ খেলোয়াড়’রা এবার থেকে পুরুষ দলের সমান ম্যাচ ফি পাবে। অর্থাৎ টেস্ট ম্যাচ প্রতি ১৫ লাখ, একদিনের ম্যাচ প্রতি ৬ লাখ, এবং প্রতিটি টি-২০ ম্যাচ খেলে ৩ লাখ টাকা করে পাবেন দীপ্তি শর্মা, পূজা বস্ত্রকার’রা। ২৭শে অক্টোবর ট্যুইট করে বিসিসিআই সচিব জয় শাহ এই কথা ঘোষণা করায় সদ্য প্রাক্তন ঝুলন গোস্বামী থেকে ভারতীয় দলের অধিনায়ক হরমনপ্রীত, আনন্দে উদ্বেল হয়েছেন সকলেই। অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ডের মত দেশেও রয়েছে এই বেতন সাম্যের বিষয়টি। তবে ছবি’টা এক নয় পাকিস্তানে। আয়ারল্যান্ড সিরিজের আগে তা জানিয়েছেন পাক দলের অধিনায়ক বিশমা মারুফ।

কি জানালেন বিশমা মারুফ ?

Bismah Maroof | image: Gettyimages
Pakistan Women’s Team captain Bismah Maroof has talked about the issues women cricketers are facing in her country

আট বছর নাকি এক পয়সা বেতন বাড়ে নি পাকিস্তানের মহিলা দলের ক্রিকেটারদের। এমন চাঞ্চল্যকর দাবী করেছেন বিশমা। আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে তাঁদের প্রথম ম্যাচ গদ্দাফি স্টেডিয়ামে। তার আগে লাহোরে এক সাংবাদিক সম্মেলনে মারুফ জানান, “আমি মনে করি মহিলা ক্রিকেটার’রা যথেষ্ট পরিশ্রম করেন। কিন্তু ভারত, নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ডের মত দেশের সঙ্গে একাসনে বসতে গেলে আমাদের আরও উন্নতি প্রয়োজন। আমাদের বোর্ড একদম কিছু করে নি আমাদের জন্য তা আমি বলবো না, আমাদের ট্রেনিং-এর সুবিধা, উন্নত কোচিং-এর ব্যবস্থা করেছে। তবে বেতন একদম না বাড়ানোয় আমি এবং গোটা টিম নিশ্চিত ভাবেই অস্বস্তি’তে রয়েছি।” অধিনায়কের এহেন মন্তব্যের পর পাকিস্তান বোর্ড মহিলা ক্রিকেট দল নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেয় কিনা সেদিকেই এখন তাকিয়ে ক্রিকেটমহল।

Leave a comment

Your email address will not be published.