আবার বলবিকৃতি!! প্রাক্তন অজি অধিনায়কের বিস্কোরক অভিযোগ দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে !! 1

ক্রিকেটভক্তদের মনে ২০১৮ সালের অস্ট্রেলিয়া বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা’র কেপ টাউন টেস্ট’টির স্মৃতি এখনো তাজা। ক্রিকেট ইতিহাসে ম্যাচ’টি ‘স্যান্ডপেপার গেট’ নামে বিখ্যাত বা বলা ভালো কুখ্যাত হয়ে রয়েছে। ঐ টেস্টম্যাচের পর অস্ট্রেলিয়া’র ক্রিকেট’কে যে ডামাডোলের মধ্যে দিয়ে যেতে হয় সাম্প্রতিক অতীতে তা কখনো ঘটে নি। সম্প্রতি সেই সিরিজ নিয়ে মন্তব্য করেছেন কেপ টাউন টেস্টের পর অস্ট্রেলিয়ার নেতৃত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন সেই টিম পেইন। আর তাঁর মন্তব্যের সাথে সাথেই ফিরে এসছে ‘বলবিকৃতি’র বিতর্ক।  দক্ষিণ আফ্রিকা’র বিরুদ্ধে ২০১৮ জোহানেসবার্গ টেস্টে বলের আকার পরিবর্তন করতে চেষ্টা করার অভিযোগ এনেছেন পেইন।

কি হয়েছিলো সেদিন?

আবার বলবিকৃতি!! প্রাক্তন অজি অধিনায়কের বিস্কোরক অভিযোগ দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে !! 2

কেপ টাউন টেস্টে স্যান্ডপেপার দিয়ে ঘষে বলের আকার পরিবর্তন করার চেষ্টা করতে দেখা যায় ক্যামেরন ব্যানক্রফট’কে। চার টেস্টের সিরিজে তৃতীয় টেস্ট ছিলো এটি। মাঠের মধ্যে অনৈতিক উপায় অবলম্বন করার সাজা হিসেবে ৯ মাস ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত হন ব্যানক্রফট। একই সাথে সেই ম্যাচে দলের অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ এবং সহ-অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার’কে ১ বছরের জন্য সবধরনের ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত করে অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট বোর্ড। সাংবাদিক বৈঠকে এসে ভেঙে পড়েন স্মিথ। দেশে বিদেশে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েন অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার’রা। ক্রিকেট লিখিয়েরা এই কুখ্যাত অধ্যায়ের নাম দেন , ‘স্যান্ডপেপার গেট।’ এহেন চরম ডামাডোলের মধ্যেই নেতৃত্বের ব্যাটন তুলে নেন তাসমানিয়া’র উইকেটরক্ষক টিম পেইন।

সম্প্রতি কি বলেছেন পেইন?

আবার বলবিকৃতি!! প্রাক্তন অজি অধিনায়কের বিস্কোরক অভিযোগ দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে !! 3

কিছুদিন আগেই প্রকাশিত হয়েছে টিম পেইনের আত্মজীবনী ‘দ্য পেইড প্রাইস।’ নিজের বইতে তিনি  দাবী করেছেন যে সেই সিরিজে একা অজি’রা নয়, বলবিকৃতি’তে জড়িত ছিলো দক্ষিণ আফ্রিকা ‘ও। সিরিজের চতুর্থ ও শেষ টেস্ট’টি খেলা হয়েছিলো জোহানেসবার্গের ‘নিউ ওয়ান্ডারার্স স্টেডিয়ামে।’ সেখানেই প্রোটিয়া দল’কে বল বিকৃত করতে দেখেছেন বলে অভিযোগ পেইনের। “সিরিজের চতুর্থ টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকা’কে আমি বল নিয়ে কাটাছেঁড়া করতে দেখেছি। কেপ টাউনে যা হয়েছিলো, সেই ঘটনার পর কেউ এরম করতে পারে, আমি ভাবতেও পারি না।” অস্ট্রেলিয়া’র শিরীষ কাগজ স্ট্র্যাটেজি ফাঁস হওয়ার পেছনে টিভি ক্যামেরা’র ভূমিকা ছিলো বিশাল। ক্যামেরা’র ফুটেজ দেখেই দোষী চিহ্নিত হন ক্যামেরন ব্যানক্রফট। সম্প্রচারকারী সংস্থা’র দিকেও আঙুল তুলেছেন পেইন। সটান বলেছেন, “আমি বোলারের এন্ডে দাঁড়িয়ে ছিলাম, বল যখন মিড অফের ফিল্ডারের কাছে গেলো তাতে একটা বড় ফাটল ছিলো। সেই ফুটেজ স্ক্রিণে আসামাত্র সরিয়ে দেওয়া হয় সম্প্রচারকারী সংস্থার পক্ষ থেকে। পরে তা গায়েব করে দেওয়া হয়।” যে সম্প্রচারকারী সংস্থা ব্যানক্রফট’কে দোষী প্রমাণে এত সচেষ্ট ছিলো, দক্ষিণ আফ্রিকা’র বেলা তাদের এরম দ্বিচারিতা কিসের, তা বুঝে পান নি পেইন। “আমরা আম্পায়ারের কাছেও নালিশ জানিয়েছিলাম কিন্তু ওনারা বলেন সিরিজের শুরু থেকে এমন বল’ই ব্যবহার করা হচ্ছে।”

‘স্যান্ডপেপার গেট’ নিয়ে কি মন্তব্য পেইনের?

আবার বলবিকৃতি!! প্রাক্তন অজি অধিনায়কের বিস্কোরক অভিযোগ দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে !! 4

বই’তে অজি ক্রিকেটের সেই কুখ্যাত অধ্যায় নিয়েও মন্তব্য করেছেন পেইন। তিনি বলেছেন, “ক্রিকেট মাঠে অনেকেই অনেক কিছু নিজের কাছে রাখে। বিশ্বের সেরা দলের সেরা খেলোয়াড়’রা অব্দি করে এটা। এমনকি কোচ বা সাপোর্ট স্টাফদের’ও নানান জিনিস কাছে রাখতে দেখেছি। তবে টিভি’র পর্দায় ব্যানক্রফটের আঙুলের ফাঁক থেকে শিরীষ কাগজের টুকরো উঁকি মারতে থেকে আমরা সবাই খুব অবাক হয়েছিলাম।” ক্রিকেটে বলবিকৃতি খুবই সাধারন ঘটনা বলেছেন পেইন। তিনি বিভিন্ন সময় ক্রিকেটারদের আঙুলে আঠা দিয়ে শিরীষ কাগজের টুকরো লাগিয়ে রাখতে দেখেছেন বলেও দাবী করেছেন। তাঁর প্রাক্তন সতীর্থদের অবশ্য পাশেই দাঁড়িয়েছেন পেইন। বলেছেন, “এই ঘটনা’র (স্যান্ডপেপার গেট) পর দলের উচিৎ ছিলো অভিযুক্ত তিন জনের পাশে আরও বেশী করে থাকা। ক্যামেরন আর স্টিভ’কে আলাদা করে দেওয়া হয়েছিলো। আমার মনে হয় ওয়ার্নার’ও একা হয়ে গেছিলো। কেউ ওদের খোঁজখবর রাখছিলো না।”

Leave a comment

Your email address will not be published.