বিশ্বের প্রথম পেসার হিসেবে একাধিক কীর্তি গড়লেন জেমস অ্যান্ডারসন! টপকালেন শচীন-দ্রাবিড়কেও 1

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ইংল্যান্ডের ফাস্ট বোলার জেমস অ্যান্ডারসন (James Anderson) এমন সব রেকর্ড নিজের নামে করে নিচ্ছেন, যা ভাঙা খুবই কঠিন হবে। ইংল্যান্ড এবং নিউজিল্যান্ডের মধ্যে তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের চতুর্থ দিনে, টম ল্যাথাম (Tom Latham) আউট হওয়ার সাথে সাথে অ্যান্ডারসন টেস্ট ক্রিকেটে ৬৫০ উইকেটের সীমা স্পর্শ করেন। বিশ্বের প্রথম ফাস্ট বোলার তিনিই এমনটা করলেন। এছাড়া আরও একটি বিশেষ রেকর্ড গড়েছেন তিনি। অ্যান্ডারসন ৩০ বছর বয়স পেরিয়ে যাওয়া বিশ্বের দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে ১০০টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন।

তরুণ ফাস্ট বোলারদের জন্য উদাহরণ হয়ে রয়েছেন অ্যান্ডারসন

বিশ্বের প্রথম পেসার হিসেবে একাধিক কীর্তি গড়লেন জেমস অ্যান্ডারসন! টপকালেন শচীন-দ্রাবিড়কেও 2

ইংল্যান্ডের প্রাক্তন উইকেটকিপার অ্যালেক স্টুয়ার্ট (Alec Stewart) ৩০ বছর বয়স পেরিয়ে যাওয়ার পর সবচেয়ে বেশি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন, যখন এটি অ্যান্ডারসনের ১০০তম টেস্ট ম্যাচ। একই সময়ে, শচীন তেন্ডুলকর (Sachin Tendulkar) এবং রাহুল দ্রাবিড় (Rahul Dravid) ক্রমানুসারে ৯৫-৯৫ টেস্ট নিয়ে এই তালিকার তিন নম্বরে রয়েছেন। অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক স্টিভ ওয়া ৩০ বছর বয়স পেরিয়ে যাওয়ার পর ৯২টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন। এই তালিকায় অ্যান্ডারসনের অন্তর্ভুক্তি বিশেষ কারণ তিনি একজন ফাস্ট বোলার। এমনকি ৩৯ বছর বয়সেও, তিনি তরুণ ফাস্ট বোলারদের জন্য উদাহরণ হয়ে রয়েছেন। অ্যান্ডারসন যেভাবে বোলিং করছেন, তাতে মনে হচ্ছে তিনি আগামী অন্তত দুই-তিন বছর টেস্ট ক্রিকেট খেলতে থাকবেন। জেমস অ্যান্ডারসনের সামনে এখন সুযোগ থাকবে অ্যালেক স্টুয়ার্টকে পেছনে ফেলে বিশ্ব রেকর্ড গড়ার।

প্রথম ফাস্ট বোলার হিসেবে এমনটা করলেন জেমস অ্যান্ডারসন

View this post on Instagram

A post shared by Cricbuzz (@cricbuzzofficial)

ইংল্যান্ড দলে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন ফাস্ট বোলার জেমস অ্যান্ডারসন। ইংল্যান্ডের হয়ে অনেক ম্যাচ জিতিয়েছেন তিনি। শেষ দুই টেস্ট সিরিজের বাইরে রাখা হয়েছিল তাকে। এরপরই জল্পনা শুরু হয় তার ক্রিকেট কেরিয়ার শেষ। কিন্তু তার দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তন সমালোচকদের উপযুক্ত জবাব দিয়েছে। কিউই ব্যাটসম্যান টম ল্যাথামকে আউট করে অ্যান্ডারসন ৬৫০ উইকেট পূর্ণ করেন। প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে এমনটা করেছেন তিনি। তাই, অস্ট্রেলিয়ার সাবেক কিংবদন্তি গ্লেন ম্যাকগ্রা ৫৬৩ উইকেট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন। সবচেয়ে বেশি উইকেট নিয়ে টপ-৫ বোলারদের তালিকায় যোগ দিয়েছেন অ্যান্ডারসন। এই তালিকায় প্রথমেই আসে মুথাইয়া মুরলিধরনের নাম, যিনি টেস্ট ক্রিকেটে ৮০০ উইকেট নিয়েছেন। অন্যদিকে, ৭০৮ উইকেট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন শেন ওয়ার্ন। এমতাবস্থায় ওয়ার্নের এই রেকর্ড ভাঙার সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন অ্যান্ডারসন। ২০০৩ সালে জিম্বাবওয়ের বিপক্ষে টেস্ট অভিষেক হয় অ্যান্ডারসনের। তারপর থেকে তিনি আর পিছনে ফিরে তাকাননি। অ্যান্ডারসন ইংল্যান্ডের হয়ে ১৯৪টি ওডিআই এবং ১৯টি টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক ম্যাচও খেলেছেন। ওডিআইতে, অ্যান্ডারসন ৪.২৯ ইকোনমি রেটে ২৬৯ উইকেট নিয়েছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published.