আইপিএলে পাকিস্তানের ক্রিকেটারেরা না খেলার সুযোগ পাওয়ায় ক্ষুব্ধ শাহিদ আফ্রিদি, করলেন এই মন্তব্য 1

ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে ২০২০ আইপিএল।গত ১৯ শে সেপ্টেম্বর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে শুরু হয়েছে এবারের এই টুর্নামেন্ট।প্রথম ম‍্যাচে আবু ধাবিতে মুখোমুখি হয়েছিল চেন্নাই সুপার কিংস – মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।টুর্নামেন্ট জয়ের মধ্যে দিয়ে এবারের আইপিএল জার্নি শুরু করেছিলো চেন্নাই।

২০০৮ সাল থেকে শুরু হওয়া এই টুর্নামেন্ট ইতিমধ্যে গোটা বিশ্ব জুড়ে দারুণ জনপ্রিয়তা লাভ করে নিয়েছে ইতিমধ্যে।ব‍্যাট – বলে উন্মাদনা সঙ্গে বিনোদন, সব মিলিয়ে এক অন‍্য মার্গে পৌঁছে দেয় এই টুর্নামেন্ট’কে।

এযাবৎ কালে আইপিএলের একাধিক ক্রিকেট খেলিয়ে দেশের ক্রিকেটারকে দেখা গেছে আইপিএলের মন্চে।প্রথম বছর খেলতে দেখা গেছিলো পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের।শোয়েব আখতার থেকে উমার গুল, পাকিস্তানের প্রথম সারির একাধিক ক্রিকেটার খেলেছিলেন আইপিএল।যদিও এরপরের বছর থেকে দুই দেশের রাজনৈতিক সম্পর্ক অবনতি হলে আর খেলতে দেখা যায়নি পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের।
আইপিএলে পাকিস্তানের ক্রিকেটারেরা না খেলার সুযোগ পাওয়ায় ক্ষুব্ধ শাহিদ আফ্রিদি, করলেন এই মন্তব্য 2

প্রথম বারের আইপিএলে এ্যডাম গিলক্রিস্টের নেতৃত্বাধীন ডেকান চার্জাস দলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব ক‍রেছিলেন শাহিদ আফ্রিদি।তিনি মনে করেন আইপিএলে না খেলতে পারায় বড়ো সুযোগ মিস করছে তাদের দেশের ক্রিকেটারেরা।

তিনি মনে করেন তার দেশে রয়েছে আন্তর্জাতিক মানের ক্রিকেট তারকা বাব‍র আজম,যে আইপিএলে খেলার দাবী রাখে,দাবী রাখে বিশ্বের অন‍্যান‍্য দেশের ক্রিকেট তারকাদের সঙ্গে ড্রেসিংরুম ভাগাভাগি করার।প্রসঙ্গত, আইপিএলের প্রথম বছরে ডেকান চার্জাসের হয়ে ৮১ রান করার পাশাপাশি নয় উইকেট নিয়েছিলেন আফ্রিদি।
আইপিএলে পাকিস্তানের ক্রিকেটারেরা না খেলার সুযোগ পাওয়ায় ক্ষুব্ধ শাহিদ আফ্রিদি, করলেন এই মন্তব্য 3

“আইপিএল অত‍্যন্ত উন্নত মানের একটি ব্রাড।আমাদের দেশে বাবর এবং অন‍্যান‍্য নানান ক্রিকেটারেরা আছেন যারা ওই লিগে সমান চাপ নিয়ে খেলার দাবী রাখে ।আমার মনে হয়,আইপিএলে খেলার সুযোগ না পেয়ে বড়ো সুযোগ থেকে বন্চিত হচ্ছে পাকিস্তানি ক্রিকেটারেরা “।মন্তব্য আফ্রিদির।

তিনি মনে করেন দুই দেশের সম্পর্কের উন্নতি সাধনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে ক্রিকেট ,কারণ ভারত ,পাকিস্তানের মতো দেশকে ক্রিকেট’কে ধর্মের মতো গন‍্য করা হয় ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *