৩ ভারতীয় ক্রিকেটার, যাদের দীর্ঘসময় পর্যন্ত ভারতীয় দলে খেলা সুযোগ পাওয়া উচিৎ ছিল

ভারতীয় ক্রিকেট দল বিশ্বের সবচেয়ে দুর্দান্ত আর শক্তিশালী দলগুলির মধ্যে একটি। এখনও পর্যন্ত ভারতীয় দল ক্রিকেটের বেশকিছু বড় বড় রেকর্ড নিজেদের নামে করেছে। ভারতের দল ২ বার বিশ্বকাপের খেতাবও জিতেছে আর একবার টি-২০ ক্রিকেট বিশ্বকাপও জিতেছে। সেই সঙ্গে ভারতীয় দল চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিও জিতেছে। ভারতীয় দলের সফলতার সবচেয়ে বড় রহস্য এখনও পর্যন্ত দলের তারকা খেলোয়াড়রাই থেকেছেন। ভারত বিশ্ব ক্রিকেটকে এক সে এক বেশকিছু তারকা খেলোয়াড় দিয়েছে। শচীন তেন্ডুলরক, সুনীল গাভাস্কার, নবাব মনসুর আলি খান পতৌদি, বিশেষ সিং বেদী, ইরাপল্লি প্রসন্ন, মহম্মদ আজহারউদ্দিন, কপিল দেব, বীরেন্দ্র সেহবাগ, সৌরভ গাঙ্গুলী, রাহুল দ্রাবিড়, ভিভিএস লক্ষণ, অনিল কুম্বলে- আপনি তালিকা গুনতেই থাকবেন কিন্তু নাম শেষ হবে না। এরা এমন খেলোয়াড় যারা ক্রিকেটের দুনিয়ায় যথেষ্ট নাম করেছেন।

ভারতে এত দুর্দান্ত খেলোয়াড় রয়েছেন যে বেশকিছু খেলোয়াড় তো সুযোগই পান না। বহু মুশকিলের পর কোনো খেলোয়াড় ভারতের জার্সি পড়ার সুযোগ পান আর যদি তার প্রদর্শন ভাল না হয় তো দ্রুতই অন্য কোনো খেলোয়াড় তাকে রিপ্লেস করেন। এই কারণে বেশকিছু খেলোয়াড় শুধুমাত্র কয়েকটি ম্যাচই খেলার সুযোগ পান। আমরা এই প্রতিবেদনে এমন তিনজন খেলোয়াড়ের ব্যাপারেই জানাব যারা ভারতীয় দলের হয়ে বেশি খেলার সুযোগ পাননি কিন্তু তাদের আরও বেশি খেলার সুযোগ পাওয়া উচিৎ ছিল।

৩. মুরলী কার্তিক

৩ ভারতীয় ক্রিকেটার, যাদের দীর্ঘসময় পর্যন্ত ভারতীয় দলে খেলা সুযোগ পাওয়া উচিৎ ছিল 1

মুরলী কার্তিকের নামে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ৬৪৪টি উইকেট রয়েছে, কিন্তু ভারতের হয়ে তিনি ৮টি টেস্ট, ৩৭টি একদিনের ম্যাচ আর ১টিই টি-২০ ম্যাচ খেলতে পেরেছেন। মুরলী কার্তিক নিজের টেস্ট ডেবিউ ২০০০ সালে করেছিলেন আর সেই সময় ভারতীয় ক্রিকেট দলে অনিল কুম্বলে আর হরভজন সিংয়ের জুটি জনপ্রিয় ছিল।

এই জুটি বেশিরভাগ ম্যাচে ভারতের প্রথম একাদশে থাকতে আর এটাই কারণ যে সেই সময় মুরলী কার্তিক বেশি সুযোগ পাননি। নিজের শেষ টেস্ট তিনি ২০০৪ আর শেষ ওয়ানডে ২০০৭ এ খেলেছিলেন। তবে কার্তিক এক দুর্দান্ত বোলার ছিলেন আর একার দমে তিনি ম্যাচ জেতানোর ক্ষমতা রাখতেন। নিশ্চিতভাবেই ভারতীয় দলের হয়ে আরও বেশি ম্যাচ খেলার সুযোগ পাওয়া উচিৎ ছিল কার্তিকের।

২. মনোজ তেওয়ারি

৩ ভারতীয় ক্রিকেটার, যাদের দীর্ঘসময় পর্যন্ত ভারতীয় দলে খেলা সুযোগ পাওয়া উচিৎ ছিল 2

প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ৫০ এর বেশি গড়ে রান করা মনোজ তেওয়ারি ভারতীয় দলের হয়ে খুব বেশি ম্যাচ খেলার সুযোগ পাননি। তিনি ভারতীয় দলে নির্বাচিত হলেও বেশিরভাগ ম্যাচেই তাকে বেঞ্চে বসেই কাটাতে হত। ২০০৮ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ডেবিউ করা মনোজ তেওয়ারি ভারতীয় দলে কখনও নিজের জায়গা পাকা করতে পারেননি আর বারবার দলে আসা যাওয়া করতে পারেন।

মনোজ তেওয়ারি ভারতের হয়ে ১২টি ওয়ানডে আর ৩টি টি-২০ ম্যাচ খেলেছেন। তার নামে ওয়ানডেতে একটি সেঞ্চুরিও রয়েছে। এছাড়াও তিনি একজন দুর্দান্ত ফিল্ডারও ছিলেন। বেশকিছু সময় তিনি নিজের দুর্দান্ত ফিল্ডিংয়ের নমুনাও পেশ করেছেন। যদি মনোজ তেওয়ারি লাগাতার সুযোগ পেতেন তো সম্ভবত ভারতীয় দলের মিডল অর্ডারের সমস্যা দূর করতে পারতেন তার মধ্যে এতটাই যোগ্যতা ছিল।

১. ইরফান পাঠান

৩ ভারতীয় ক্রিকেটার, যাদের দীর্ঘসময় পর্যন্ত ভারতীয় দলে খেলা সুযোগ পাওয়া উচিৎ ছিল 3

ইরফান পাঠান ভারতের সবচেয়ে দুর্দান্ত অলরাউন্ডারদের মধ্যে একজন ছিলেন। তিনি দুর্দান্ত সুইং বোলিংয়ের জন্য পরিচিত তো ছিলেনই কিন্তু তা ছাড়াও তিনি একজন পিঞ্চ হিটার হিসেবেও যথেষ্ট জনপ্রিয় ছিলেন। বেশকিছু ম্যাচে তিনি নিজের ব্যাটিংয়ে দলকে ম্যাচ জিতিয়েছেন। এছাড়াও করাচি টেস্ট ম্যাচে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে তার হ্যাটট্রিক কখনও ভোলানো যাবে না।

ইরফান পাঠান নিজের কেরিয়ারে ভারতীয় দলের হয়ে ২৯টি টেস্ট, ১২০টি ওয়ানডে আর ২৪টি টি-২০ ম্যাচ খেলেছেন। এর মধ্যে তিনি টেস্টে ১০০টি, ওয়ানডেতে ১৭৩টি আর টি-২০তে ২৮টি উইকেট নিয়েছেন। তার এই পরিসংখ্যানকে কখনই খারাপ বলা যাবে না। কিছু ম্যাচে খারাপ প্রদর্শনের পর তাকে দলের বাইরে করে দেওয়া হয় আর নতুন খেলোয়াড়দের দলে আসায় তিনি দলে ফিরতে পারেননি। কিন্তু পাঠান যে স্তরের খেলোয়াড় তা দেখে এটা বলা যায় যে তার নিশ্চিতভাবেই আরও বেশি সুযোগ পাওয়ার দরকার ছিল।

Leave a comment

Your email address will not be published.