ক্রিকেট নয়, বরং ছেলে মন দিক দাবা খেলায়, চাইতেন যুজবেন্দ্র চাহালের বাবা 1

এই মুহূর্তে ভারতীয় ক্রিকেট দলের স্পিন দলের অন‍্যতম সদস্য যুজবেন্দ্র চাহাল।এখন একজন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার হলেও চাহাল কেরিয়ারের শুরু করে ছিলেন দাবা খেলা দিয়ে। যদিও পরবর্তী সময়ে ক্রিকেট খেলায় মন দেন তিনি। সম্প্রতি তিনি শোনালেন তার ক্রিকেটার থেকে দাবাড়ু হয়ে ওঠার গল্প। সাত বছর বয়সে ক্রিকেটের প্রতি অনুরাগী হয়ে ওঠেন চাহাল। যদিও তার বাবা স্বপ্ন দেখতেন ছেলে খেলুক দাবা। এমনকি দাবাতে একাধিক সাফল্য আছে তার।২০০৩ সালে ” ওয়াল্ড ইউথ চ‍্যাম্পিয়ানশিপ ” এ দেশকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন তিনি।

ক্রিকেট নয়, বরং ছেলে মন দিক দাবা খেলায়, চাইতেন যুজবেন্দ্র চাহালের বাবা 2

তারপর ক্রিকেটের দিকে মনোনিবেশ করেন চাহাল।কারণ বাবাকে শর্ত দিয়েছিলেন একবার দেশের হয়ে দাবাতে প্রতিনিধিত্ব করার পর ক্রিকেটের প্রতি মনোনিবেশ করবেন তিনি।সম্প্রতি একটি অনুষ্ঠানে এসে ” দাবা পর্ব ” এর ঘটনা শেয়ার করেন এই তারকা ক্রিকেটার।

তিনি বলেন, ” ক্রিকেটের প্রতি আমার আগ্রহটা বরাবর একটু বেশি রকমের ছিলো।কিন্তু বাবার ইচ্ছা আমি দাবা খেলি।তবে বাবাকে আমি জানিয়েছিলাম একবার দাবাতে দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করার পর আমি তা খেলা ছেড়ে দেব “। ক্রিকেট কেরিয়ারের শুরুর দিকে তা বাবা তাকে কি রকম সাহায্য করেছিলো এইদিন তাও শোনা গেল তার মুখে।

ক্রিকেট নয়, বরং ছেলে মন দিক দাবা খেলায়, চাইতেন যুজবেন্দ্র চাহালের বাবা 3

” সাত বছর বয়স থেকে আমি মাঠে খেলতে যেতাম।আমাদের আর্থিক অবস্থা খুব একটা ভালো ছিলো না।খেলাধুলা হোক অথবা পড়াশোনা কোনও কিছুতে আমার বাড়ি থেকে চাপ সৃষ্টি করা হয়নি কখনও।সেই সময় প্রতিদিন ৩০ কিলোমিটার সাইকেল চালিয়ে মাঠে যেতাম আমি।আজ আমি যা কিছু সব আমার বাবার জন্যে। ”

প্রসঙ্গত, চাহালে ভারতীয় ক্রিকেট দলে অন্তভুক্ত হওয়ায় শক্তিশালী হয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট দল।ইতিমধ্যে তিনি খেলেছেন ৫০ টা ওয়ানডে এবং ৩১ টা টি টোয়েন্টি ম‍্যাচ।নিয়েছেন যথাক্রমে ৮৫ এবং ৪৬ টি উইকেট।খেলেছেন ২০১৯ এর বিশ্বকাপ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *