ধোনির অধিনায়কত্ব ছাড়ার সিদ্ধান্তটা একদম সঠিক, বলছেন যুবরাজ 1

বিশেষ প্রতিবেদন: ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওয়ান ডে ও টি-২০ সিরিজ শুরু হওয়ার আগেই অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। এই সিদ্ধান্ত অনেককেই হতবাক করলেও খুশি হয়েছে যুবরাজ সিং। এক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সেই কথাই জানিয়ে দেন ভারতের এই বাঁ হাতি ব্যাটসম্যানটি। সেই সঙ্গে ২০০৭ সালে অধিনায়ক হওয়ার পর ধোনি কীভাবে ‘টিম ইন্ডিয়া’ তৈরি করেন, সেই বিষয়েও মুখ খোলেন যুবি।

ধোনির সঙ্গে যুবরাজের অন্তরঙ্গ সম্পর্কের কথা ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে অজানা নয়। তাই এমন একটা মুহূর্তে প্রাক্তন অধিনায়কের সম্পর্কে যুবি ‘বিশেষ’ কিছু বলবেন, সেটাই খুব স্বাভাবিক। দীর্ঘ ১০ বছর পর শুধুমাত্র উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান হিসেবে দলে রয়েছেন ধোনি। ইংল্যান্ড সিরিজে তাই তাঁর ব্যাট থেকে মারকারাটি ইনিংস দেখতে চাইছেন যুবরাজ। ‘ক্যাপ্টেন কুল’-এর প্রশংসা করে তিনি বলেন, ‘ভারতের হয়ে দুর্দান্ত অধিনায়কত্ব করেছে ধোনি। ওর নেতৃত্বে আমরা ২০০৭ সালে টি-২০ বিশ্বকাপ, ২০১১ সালে ক্রিকেট বিশ্বকাপ ও ২০১৩ সালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জিতেছি। এগুলো সত্যিই বড় সাফল্য। ওর নেতৃত্বে আমরা টেস্টে এক নম্বর দল হই। এমন সাফল্য আর কজন অধিনায়কের রয়েছে সেটা আমার জানা নেই।’

২০১৯ বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখেই অধিনায়কত্বের পালাবদল ঘটেছে ভারতীয় ক্রিকেটে। ধোনির এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন যুবরাজ। তাঁর মতে, এই সময় ক্রিকেটের নবীন প্রজন্মের হাতে দায়িত্ব তুলে দেওয়াটা সঠিক কাজ। যুবি বলেন, ‘ধোনি খুব ঠান্ডা মাথায় মাঠে সিদ্ধান্ত নিতে ওস্তাদ। মাঠের বাইরেও একইরকম। সেই জন্যই ২০১৯ বিশ্বকাপের আগে বিরাটের হাতে দায়িত্ব তুলে দিল। আমি নিশ্চিত বিরাটের মধ্যে নেতৃত্ব দেওয়ার যাবতীয় গুন রয়েছে দেখেই ও এই কাজটা করেছে।’ অধিনায়কত্ব ছাড়লেও, একজন ক্রিকেটার হিসেবে ধোনি যে এখনও ভারতীয় দলের জন্য অপরিহার্য, সেটাও জানাতে ভোলেননি তিনি। যুবরাজের কথায়, ‘আমার দৃঢ় বিশ্বাস একজন ক্রিকেটার হিসেবে ধোনির এখনও ভারতীয় দলকে অনেক কিছুই দেওয়ার আছে।’

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *