কেউ সাপোর্ট না করলেও এই ভারতীয় খেলোয়াড় যুবিকে খুব সাপোর্ট করেন, জানালেন যুবির মা! 1

কেউ সাপোর্ট না করলেও এই ভারতীয় খেলোয়াড় যুবিকে খুব সাপোর্ট করেন, জানালেন যুবির মা! 2

সময়ে ভারতীয় দলে অপরিহার্য যুবরাজ সিং এখন আবারো দলের বাহিরে। যখন অনেকে ই মনে করছেন যুবরাজ সিং আর ফিরতে পারবে, তখন ই তার ফিরে আসা নিয়ে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করলেন তার মা শবনব সিং। দীর্ঘ দিন দলের বাহিরে থাকার পর এবছরে শুরুতে ঘরের মাটিতে ইংল্যান্ডে বিরুদ্ধে দলে সুযোগ পেয়েছিলেন যুবরাজ সিং। কিন্তু এরপর খারাপ খেলার কারনে যখন শ্রীলঙ্কা সফরে বাদ পড়েন তখন অনেকেই বলেছিলেন যুবরাজের ক্যারিয়ার শেষ। কিন্তু তখন ভারতের প্রধান নির্বাচক জানান যুবরাজ বাদ পড়ে নি বরং বিশ্রামে আছেন। তখন সবাই ধারনা করেছিলেন তাহলে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজে ই দলে ফিরবেন এই অলরাউন্ডার। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সিরিজের প্রথম তিন ম্যাচের জন্য ঘোষিত দলে তার নাম না দেখে এটা ই প্রমাণ হয় প্রধান নির্বাচক এমএসকে প্রাসাদ তখন যুবরাজ ভক্তদের শান্ত রাখার জন্য এমন কথা বলেছিলেন। কারন ইতিমধ্যে খবর বের হয় শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য দল ঘোষনার আগে জাতীয় ক্রিকেট একাডেমী যে ইয়ো ইয়ো পরীক্ষা হয় তাতে আদর্শ ফিটনেস পাওয়া যায় নি তার। আর বর্তমান টিম ম্যানেজমেন্ট দল নির্বাচনের ক্ষেত্রে ফিটনেসের বিষয় অনেক সতর্ক। আর তারা ইয়ো ইয়ো কে একটি আদর্শ ফিটনেস পরীক্ষা হিসেবে ব্যবহার করতে চান।

ঠিক এই সময় নিজের ছেলে আবারো সব শর্ত পূরন করে ই দলে ফিরবেন এমনটা জানিয়ে তার মা বলেন, ” গোটা বিশ্ব তার লড়াকু মন ভাবের কথা জানে। তার অবসর নেওয়ার সময় অন্য কেউ ঠিক করে দিতে পারে না। কারো এটা ভুলে যাওয়া উচিত হবে না যে সে ক্যান্সারের বিরুদ্ধে জয়ী হয়ে ই ভারতীয় দলে ফিরে এসেছে। এবারো সে জয়ী হয়ে ই ফিরবে। ” ফিটনেসের বিষয় সমালোচনাকে যুবরাজ ইতিবাচক ভাবে নিচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, ” তার দক্ষতার বিষয় কারো সন্দেহ থাকা উচিত নয়, ফিটনেসের ঘাটতি রয়েছে সে তা দ্রুত কাটিয়ে উঠবে। সে এই বিষয়ে তার সমালোচনাকে ইতিবাচক ভাবে ই নেয়। প্রতিদিন সে পাঁচ ঘন্টা সময় দেয় ফিটনেস ফিরে পেতে। ইয়ো ইয়ো নামক ফিটনেস পরীক্ষায় ভাল করে ই সে আবার দলে ফিরবে।”

শবনব সিং আরো বলেন, ” খাবারের বিষয়ও যুবরাজ খুব সতর্ক। সে তার পুরানো খেলার ভিডিও দেখেও তা হতে নিজের উদ্যম নিচ্ছে। শচিনের সাথে তার সম্পর্ক খুব ভাল। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের আগেও যেমন বিভিন্ন বিষয় নিয়ে শচিনের সাথে কথা বলত, এখনো সে আগে শচিনের সাথে কথা বলে।” কোহলীর প্রশংসা করে তিনি বলেন, ” নিশ্চয় কোহলী অসাধারন একজন অধিনায়ক। তার ফিটনেস অনেক ভাল। প্রতিটি অধিনায়ক ই আলাদা। সৌরভের সময় দলে সুযোগ পেতে ফিটনেস এত গুরুত্বপূর্ণ ছিল যেমনটা এখন।আর পরও ২০১৯ সালের বিশ্বকাপে খেলা যুবরাজের শীর্ষ প্রাধান্য।”

Nazmus Sajid

Sports Fanatic!

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *