খেলার আগেই বিশ্বকাপ জিতে গেলো ভারতীয় মহিলা দল 1
ছবি সংগৃহিতঃ ইএসপিএনক্রিকইনফো

রবিবার ফাইনাল ম্য়াচ। সামনে তিনবারের বিশ্ব চ্য়াম্পিয়ন ইংল্য়ান্ড। তীরে এসে যাতে তরি না ডোবে, সেই জন্য জোর গা ঘামাচ্ছেন ভারতের মেয়েরা। শুধু একশো ত্রিশ কোটি কেন, সারা বিশ্ব জুড়ে ছড়িয়ে থাকা মানুষ মিতালি রাজের দলের দিকে তাকিয়ে। বিশ্বকাপটা কখন ঘরে আসবে সেই অপেক্ষা। মেয়েদের ক্রিকেট নিয়ে লোকে মাথা ঘামায় না। অর্জুন পুরস্কার হাতে ওঠার কারণে কয়েকজন মহিলা ক্রিকেটারের নাম স্মৃতির ঘর ঝাড়লে হয়ত বা পাওয়া যাবে। জিতলে শুভেচ্ছা জানানোর লোক তো দূরের কথা, হেরে ফিরে এলেও গালাগালি দেওয়ার লোক পাওয়া যায় না। কিন্তু, ভারতের মেয়েরা এবার ঝড়ের মতো ফাইনালে ওঠায় সেই ছবিটা বদলেছে। মিডিয়ার ফোকাসটা ওদিকে চলে আসায় যাঁরা মহিলা ক্রিকেট নিয়ে মাথা ঘামাতেন না এতদিন, তাঁরাই মহিলা ক্রিকেটের খবর নিতে ব্য়স্ত। আর অজানা খবর জানার উপায় একটাই, সেটা হল উইকিপিডিয়া। হেন খবর বা বিষয় নেই – যা উইকিপিডিয়া জানে না। আইসিসি উইমেনস ওয়ার্ল্ড কাপ, কে কে ক-বার জিতেছে, কবে থেকে শুরু হয়েছে খবরটা নিতে গিয়েই বিপত্তি। উইকিপিডিয়ার মারাত্মক ভুলে ছানাবড়া একঝাঁক চোখ। রবিবার লর্ডসে ফাইনাল ম্য়াচে মাঠে নামার আগেই উইকিপিডিয়া বিজয়ী ঘোষণা করে দিয়েছে ভারতের মহিলা দলকে।

খেলার আগেই বিশ্বকাপ জিতে গেলো ভারতীয় মহিলা দল 2

এখানে দেখুনঃ মিতালিদের অভিনন্দন জানাতে গিয়ে এ কী ভুল করে বসলেন অাইপিএল চেয়ারম্যান রাজীব শুক্ল!

ইদানিং উইকিপিডিয়াতে হামেশাই ভুল থেকে যাচ্ছে নানা বিষয়ে। তা যেমন জন্ম-মৃত্য়ুর তারিখ হোক কিংবা সামান্য় তথ্য়। ফলে অজান্তেই ভুল তথ্য় ছড়িয়ে পড়ছে সারা বিশ্বে। ঘটনা ঘটার আগেই ভবিষ্য়দ্বাণীর মতো ভারতকে বিজয়ী ঘোষণা করে দেওয়ায় হাসির রোল উঠেছে সোশ্য়াল মিডিয়াতে। ফেসবুক ও ট্য়ুইটারে পোস্ট হচ্ছে দেদার জোকস ও মেমে।

অবশ্য়, ব্য়াপারটি সামনে আসার পরই নিজেদের ভুল শুধরে নিয়েছে উইকিপিডিয়া। ব্য়াখ্য়া দেওয়া হয়েছে, যেহেতু উইকিপিডিয়াতে অপশন দেওয়া আছে, তা যে কেউ নতুন আর্টিকেলের জন্য় পেজ খুলতে পারেন বা কোনও বিষয় ভুল থাকলে এডিট করতে পারেন। বিভিন্ন অলাভজনক সংস্থা এগুলি করে থাকে, ফলে বহু লেখক এর সঙ্গে জড়িত। কার ভুলে এটা হয়েছে, তা বলা সম্ভব নয়। একমাত্র অত্য়ন্ত স্পর্শকাতর বিষয়গুলিতে উইকিপিডিয়া এডিট অপশন দেয়নি। সেগুলি নিজেদের লেখক দিয়ে লেখায় উইকিপিডিয়া।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার ডিফেন্ডিং চ্য়াম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়াকে সেমিফাইনালে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে ভারত। হরমনপ্রীত কউর ১১৫ বলে ১৭১ রানের এক অনবদ্য় ইনিংস খেলেন। ২৮ বছরের পাঞ্জাবের অলরাউন্ডারটি শুরুটা ধীরে করলেও আচমকাই আক্রমণাত্মক মেজাজ ধরেন। ৯০ বলে সেঞ্চুরিতে পৌঁছনোর পর বাকি ৭১ রান করতে নেন মাত্র ২৫টি বল। ২০টি চার ও ৭টি ছয়ে সাজানো তাঁর গোটা ইনিংস। প্রথমে ব্য়াট করতে নেমে একসময় ২৫ ওভারে ভারতের স্কোর ছিল ৩ উইকেটে ১০১ রান। বৃষ্টি বিঘ্নিত ৪২ ওভারের খেলায় ঝড়ের গতিতে শেষ ১৭ ওভারে ১৮০ রান তোলে ভারতের মেয়েরা। ২৮২ রানের লক্ষ্য় মাত্রা তাড়া করতে নেমে ৪০.১ ওভারে ঝুলন গোস্বামী, শিখা পান্ডেদের আঁটোসাটো পেস বোলিংয়ের সামনে ২৪৫ রানে অজিরা শেষ হয়ে যাওয়ায় ৩৬ রানে ম্য়াচটি জিতে নেয় ভারত।

খেলার আগেই বিশ্বকাপ জিতে গেলো ভারতীয় মহিলা দল 3

খেলার আগেই বিশ্বকাপ জিতে গেলো ভারতীয় মহিলা দল 4

খেলার আগেই বিশ্বকাপ জিতে গেলো ভারতীয় মহিলা দল 5

খেলার আগেই বিশ্বকাপ জিতে গেলো ভারতীয় মহিলা দল 6

এখানে দেখুনঃ হরমনপ্রীতে মুগ্ধ হয়ে তাঁকে নিজের জার্সিটাই দিয়ে দিলেন এই অজি ক্রিকেটারটি

অন্য়দিকে, ইংল্য়ান্ড গত মঙ্গলবার প্রথম সেমিফাইনালে ২ উইকেটে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেছে। ২০০৫ সালে ভারত মিতালি রাজের নেতৃত্বেই ফাইনালে খেলেছিল। সেবার অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে বিশ্বকাপ রানার্স-আপ হয়েছিল ভারতীয় মহিলা দল।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *