ক্রিকেটের যদি ফুটবলের মতো ট্রান্সফর হত? আইপিএল থেকে অন্যান্য টি- ২০ লিগে শীর্ষ ছয় ট্রান্সফার 1

 

আসুন ক্রিকেটে ফুটবলের এই নিয়মটি থাকলে কি হবে তা দেখে নেওয়া যাক। ফুটবলে এক বছরে দুটি ট্রান্সফার উইন্ডো থাকে যেখানে খেলোয়াড়দের এক লীগ থেকে অন্য লিগে স্থানান্তর করা যায়। তাহলে, ক্রিকেটেও যদি একই সুযোগ থাকত তবে তা কেমন হত? যদি আইপিএল থেকে খেলোয়াড়রা বিশ্বের অন্য কোনও টি- ২০ লিগে ট্রেডে যায়? আসুন আমরা ছয়টি বড় ট্রান্সফার দেখি যদি ক্রিকেটের ফুটবলের মতো উইন্ডো ট্রান্সফার হত তবে কি হত।

ক্রিকেটের যদি ফুটবলের মতো ট্রান্সফর হত? আইপিএল থেকে অন্যান্য টি- ২০ লিগে শীর্ষ ছয় ট্রান্সফার 2
পেশোয়ার জালমিতে রবীন্দ্র জাদেজা: রবীন্দ্র জাদেজা বর্তমানে টি- ২০ ক্রিকেটের অন্যতম দুর্দান্ত অলরাউন্ডার। জাদেজা যে কোনও বোলিং আক্রমণের বিরুদ্ধে অ্যাটাক করতে পারে এবং ব্যাট দিয়ে ডেথ ওভারে সময় যে কোনও প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে রান করতে পারে। তিনি মাঝের ওভারগুলিতেও নিজের ভাল বোলিং করতে পারেন এবং গুরুত্বপূর্ণ উইকেট নিতে পারেন। এবং এটি বলা বাহুল্য যে জাদেজা যুক্তিযুক্তভাবে বিশ্বের সেরা ফিল্ডারদের একজন। সুতরাং, জাদেজাকে যদি পাকিস্তান সুপার লিগে স্থানান্তরিত করা হয় এবং পেশোয়ার জালমি দলের পক্ষে তার পারফর্ম করতে পারবেন। পেশোয়ার দলের কাছে এই মুহুর্তে অনেক অভিজ্ঞতার সাথে মানসম্পন্ন স্পিন বোলিং অলরাউন্ডারের অভাব রয়েছে এবং শূন্যতা পূরণে রবীন্দ্র জাদেজার চেয়ে কে আর ভাল?

ক্রিকেটের যদি ফুটবলের মতো ট্রান্সফর হত? আইপিএল থেকে অন্যান্য টি- ২০ লিগে শীর্ষ ছয় ট্রান্সফার 3

অ্যাডিলেড স্ট্রাইকার্সে জসপ্রীত বুমরাহ: বিশ্বের যে কোনও ব্যাটসম্যানকে জিজ্ঞাসা করুন এবং তিনি আপনাকে বলবেন যে রশিদ খানের মতো বোলারের মুখোমুখি হওয়া সবসময়ই কঠিন। এখন ব্যাটসম্যান হিসেবে অনেকেই বলে যে রশীদ খানের পাশাপাশি জসপ্রীত বুমরাহও ভয়ঙ্কর বোলিং করেন এবং ব্যাটসম্যান অবশ্যই চরম অস্বস্তি বোধ করবেন। রশিদ খান এবং জসপ্রিত বুমরাহ বোলিংয়ে এই মারাত্মক কম্বো সংঘটিত হতে পারে যদি বুমরাহ বিগ ব্যাশ লিগে অ্যাডিলেড স্ট্রাইকার্সদের পক্ষে যান। বুমরাহ সহজেই সীমিত ওভারের ক্রিকেটের অন্যতম সেরা বোলার হিসাবে যোগ্যতা অর্জন করবেন। তিনি নির্ভুলতার সাথে ইয়র্কার বোলিং করতে পারেন, তিনি নিজের গতির সাথে মিশ্রণ করতে পারেন এবং ব্যাটসম্যানকে দ্রুত বাউন্সার দিয়ে চমকে দিতে পারেন যখন দরকার হয়। বুমরাহের গতি এবং রশিদ খানের স্পিন অবশ্যই বিরোধীদের ভয়ে কাঁপিয়ে দেবে।

ক্রিকেটের যদি ফুটবলের মতো ট্রান্সফর হত? আইপিএল থেকে অন্যান্য টি- ২০ লিগে শীর্ষ ছয় ট্রান্সফার 4

হোবার্ট হ্যারিকেন্সে ঋষভ পন্থ: ক্রিকেট অনুরাগীরা টিম পেইন এবং ঋষভ পন্থের যে বিখ্যাত কথোপকথনটি ২০১৮-১৯ সালের ভারতের অস্ট্রেলিয়া সফর করেছিলেন তার কথা মনে পড়বে। অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার পন্থকে তার বাচ্চাদের বাচ্চা সামলাতে বলেছিলেন। এবং পন্থ আসলে এগিয়ে গিয়েছিল এবং পেনের ইচ্ছা পূরণ করেছিল। ভারতীয় উইকেটকিপার তার বাচ্চাদের বেবিসিট করতে পেনের বাড়িতে গিয়েছিলেন। সুতরাং উভয়কে একই সাথে দেখা যেতে পারে। টিম পেইন এবং ঋষভ পন্থ একই দলের হয়ে খেলে অবিশ্বাস্য হবেন, তাই না? পন্থ যদি বিগ ব্যাশ লিগে হোবার্ট হ্যারিকেন্স দলে চলে যান তবে তা সম্ভব হবে। পন্থের মতো বিস্ফোরক মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানের অভাব রয়েছে তাদের দলে। পান্ত এমন ব্যাটসম্যান যিনি নিজের দিনে যে কোনও বোলিং আক্রমণকে ধ্বংস করে দিতে পারেন।

ক্রিকেটের যদি ফুটবলের মতো ট্রান্সফর হত? আইপিএল থেকে অন্যান্য টি- ২০ লিগে শীর্ষ ছয় ট্রান্সফার 5
পার্থ সোকার্সে রোহিত শর্মা: রোহিতকে ‘হিটম্যান’ নামেও ডাকা হয়। তর্কযোগ্যভাবে কোনও ভারতীয় ব্যাটসম্যান নেই যিনি মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের (এমআই) অধিনায়কের মতো ভালো ভাবে বল হিট করতে পারেন। রোহিত শর্মা এমন একজন ব্যাটসম্যান যিনি সারা বিশ্বের যে কোনও বোলিং আক্রমণকে মাঠে বাইরে পাঠাতে পারেন। টি- ২০ ক্রিকেটের ইতিহাসে রোহিত শর্মা একমাত্র ব্যাটসম্যান যিনি ৪ টি টি- ২০ সেঞ্চুরি করেছেন। এমনকি আইপিএল-এও রোহিত একটি অদম্য চিহ্ন রেখেছেন এবং আইপিএল ক্রিকেটের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান হিসাবে যোগ্যতা অর্জন করবেন। পার্থ সোকার্সে দল হবে রোহিত শর্মার পক্ষে আদর্শ। এই দলে কলিন মুনরো এবং জেসন রায়ের মতো বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান রয়েছেন।

ক্রিকেটের যদি ফুটবলের মতো ট্রান্সফর হত? আইপিএল থেকে অন্যান্য টি- ২০ লিগে শীর্ষ ছয় ট্রান্সফার 6

ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স দলে এমএস ধোনি: এমএস ধোনি ক্রিকেট বিশ্বের এক প্রতিমূর্তি। তিনি এমন এক অধিনায়ক যিনি গেমের প্রতিটি একক ফরম্যাটে সাফল্যের স্বাদ পেয়েছেন এবং এমন অধিনায়ক যিনি ক্রিকেট বিশ্বে স্থায়ী চিহ্ন রেখে গেছেন। ধোনি এই খেলার অন্যতম সেরা ফিনিশার এবং ধোনি অনেকবারই ব্যাট হাতে ঠান্ডা মাথায় ম্যাচের ফিনিশ লাইন পেরিয়ে গিয়েছিলেন। আইপিএল ক্রিকেটে ধোনির রেকর্ডও দুর্দান্ত। তিনি স্বল্প ওভারের ক্রিকেটে অন্যতম সেরা উইকেটকিপার এবং টি- ২০ ক্রিকেটে যে কোনও ফ্র্যাঞ্চাইজিতে খেললে তার সম্পদ। ধোনি পুরোপুরি ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের দলের হয়ে ফিট করতে পারেন। ত্রিনবাগো দলটি ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটার কায়রন পোলার্ডের পাশে রয়েছে। পোলার্ড এবং ধোনি ক্রিকেটের বলের দু’জন শক্তিশালী স্ট্রাইকার হিসাবে যোগ্যতা অর্জন করবে। বলা বাহুল্য, সিএসকে কিংবদন্তি ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স দলেরও নেতৃত্ব দিতে পারেন।

Virat Kohli and Babar Azam

করাচি কিংসে বিরাট কোহলি: সাম্প্রতিক সময়ে যদি এমন একটি তুলনা হয় যা নিয়ে কথা হয় তবে তা হল ভারতীয় ব্যাটিং কিংবদন্তি বিরাট কোহলি এবং পাকিস্তানের ব্যাটিং সুপারস্টার বাবর আজমের মধ্যে তুলনা। বাবর আজম এবং বিরাট কোহলি করাচি কিংসের পক্ষে একসাথে ব্যাটিংয়ের ওপেনিং করতে দেখে ভক্তরা অবাক হয়ে যাবে। কোহলি ও বাবর উভয়ই ক্লাসিক কভার ড্রাইভের দ্বারা আশীর্বাদপ্রাপ্ত এবং এই দুজনেই প্রথম দিকে শট বাছাই করতে পারদর্শী। টি- ২০ ক্রিকেটে কোহলির পরিসংখ্যান তাকে যোগ্য করে তুলেছে। ভারতীয় ব্যাটিং স্টার টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী। বোলারদের দুর্দশার কথা একবার কল্পনা করুন, যখন কোহলি এবং বাবর একসাথে ব্যাট করবেন!

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *