"ধোনির জেতার কোনও ইচ্ছাই ছিল না", অকপট মন্তব্য বীরেন্দ্র সেহওয়াগের 1

বয়সও হয়েছে, দীর্ঘদিন ক্রিকেটও খেলেননি। কিন্তু আইপিএল-এর মত হেভিওয়েট টুর্নামেন্টে খেলতে এসে এই ধরণের বাহানা কখনই টেকে না। গতকালের ম্যাচে রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে ২১৭ রান তাড়া করতে গিয়ে একা ফাফ ডু প্লেসিস ছাড়া চেন্নাই সুপার কিংসের আর কোনও ব্যাটসম্যানই দাঁড়াতে পারেননি।

Chennai Super Kings Players "Share The Load In Winning Games", Says Faf Du Plessis | Cricket News

শেষ ওভারে ইংরেজ পেসার টম কারানকে তিনটি ছয় মারলেও প্রশ্ন উঠেছে ধোনির ব্যাটিং ও তার ইচ্ছাশক্তি নিয়ে। এছাড়াও দলের কঠিন সময়ে যেভাবে একের পর এক খেলোয়াড়কে এগিয়ে দিয়ে নিজেকে পিছনে রেখে দিয়েছিলেন, সেই নিয়েও প্রশ্ন উঠছে অজস্র।

IPL 2020 - MS Dhoni reveals WHY he demoted himself to no.7 in RR vs CSK thriller

এবার ধোনির এই অদ্ভুত মানসিকতা নিয়ে নিজের মতামত দিলেন প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনার বীরেন্দ্র সেহওয়াগ। তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দেন, আদৌ সেই ম্যাচটি জেতার ইচ্ছা ছিল না ধোনির। পাশাপাশি ধোনির অধিনায়কত্বকে মার্কসও দিলেন বিধ্বংসী এই ওপেনার।

Virender Sehwag makes debut in a web series - The Hindu BusinessLine

জনপ্রিয় ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকবাজ-এ দেওয়া সাক্ষাৎকারে মহেন্দ্র সিং ধোনির অধিনায়কত্ব ও ব্যাটিং নিয়ে একেবারে স্পষ্ট বার্তা দিলেন দিল্লির এই কিংবদন্তী ব্যাটসম্যান। তিনি বলেছেন, “শেষ ওভারে ধোনির তিনটি ছয় দেখে মনে হয়েছিল যে চেন্নাই সুপার কিংস লক্ষ্যের কাছাকাছি পৌঁছেছে, কিন্তু বাস্তবে বিষয়টি একেবারেই আলাদা। মাঝের দিকে ধোনি যেভাবে একের পর এক ডট বল খেলছিল, তাতে মনে হচ্ছিল যেন ওর ম্যাচ জেতানোর কোনও ইচ্ছাই নেই।”

MI vs CSK: MS Dhoni Is "Genius", Says Sam Curran On CSK Skipper's Decision To Promote Him In Batting Order | Cricket News

পাশাপাশি কঠিন পরিস্থিতিতে সাত নম্বরে নেমে ব্যাট করানোর এই সিদ্ধান্তকে সমর্থন করেননি সেহওয়াগ। প্রথম ম্যাচে নিজের আগে ইংরেজ পেসার স্যাম কারানকে নামিয়ে ভালো ফাটকা লাগিয়েছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। কিন্তু বড় রান তাড়া করতে গিয়ে অবশ্যই ধোনির মত অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানদের আগে আসা উচিত বলে মনে করেন সেহওয়াগ।

IPL 2020: CSK gives a savage reply to claims regarding the release of MS Dhoni

এই বিষয়ে বীরু বলেছেন, “আমার মনে হয় ধোনির আরও আগে ব্যাটিংয়ে নামা উচিত ছিল অথবা স্যাম কারানের আউটের পরে রবীন্দ্র জাদেজাকে নামাতে পারত। মাঝের ওভারে চেন্নাইয়ের রান রেট অনেকটাই কমে গিয়েছিল। যদি এমনটা না হত এবং শেষ ওভারে ২০-২২ রান মত বাকি থাকত, ধোনির ঐ তিনটি ছয় দেখে মানুষ বলতে পারত, বাহ কি দারুণ ফিনিশ! কিন্তু যদি শেষ ওভারে ৩০ এর বেশি রান বাকি থাকে, তাহলে ঐ তিনটি ছয় কোনও পার্থক্য তৈরি করবে না। আমার মনে হয় অন্তত কেদার যাদবের আগে ধোনির ব্যাটিংয়ে নামা উচিত ছিল। যে পরিমাণ বল কেদার যাদব খেলেছে, সেই একই পরিমাণ যদি ধোনি খেলত, চেন্নাই সুপার কিংস হয়ত এই ১৭-১৮ রানের পার্থক্যে ম্যাচ শেষ করত না।”

 

পাশাপাশি ক্রিকবাজের এই সাক্ষাৎকারে ধোনির অধিনায়কত্বকে নম্বর দেন বীরেন্দ্র সেহওয়াগ। যখন তাকে এই প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করা হয়, তখন সবদিক বিচার করে সেহওয়াগ ধোনিকে দশে চার মার্কস দেন।

 

Leave a comment

Your email address will not be published.