কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের হারের জন্য দায়ী আম্পায়ার নীতিন মেননকে বিশেষ 'সম্মান' বীরেন্দ্র সেহওয়াগের 1

গতকালের আইপিএল-এর দ্বিতীয় ম্যাচে সুপার ওভারে দিল্লি ক্যাপিটালস হারায় কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে। কিন্তু সেই ম্যাচটি জিততেই পারত কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব, যদি না স্কোয়্যার লেগ আম্পায়ার নীতিন মেনন ক্রিস জর্ডানের দুই রানকে শর্ট রান ঘোষিত না করতেন। আর এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্রিকেটপ্রেমীরা ক্ষুদ্ধ এমন সিদ্ধান্তের জন্য।

Image

এবার এই নিয়ে মুখ খুললেন প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনার বীরেন্দ্র সেহওয়াগ। গোটা ম্যাচ দেখার পর গতকাল রাতেই টুইটারে নিজের বক্তব্য জারি করলেন বিধ্বংসী এই ব্যাটসম্যান। সোশ্যাল মিডিয়ায় বরাবরই বেশ মজাদার পোস্ট করেন  সেহওয়াগ, আর এবারেও তার কোনও খামতি রাখলেন না।

An India vs Pakistan match is not another game: Virender Sehwag - Telegraph India

ম্যাচের পর গতকাল রাতে টুইটারে একটি ছবি ছাড়েন বীরেন্দ্র সেহওয়াগ। সেই ছবিতে ক্রিস জর্ডান ক্রিজে ব্যাট ঢোকাচ্ছেন অথচ সেই রানটি দেননি স্কোয়্যার লেগ আম্পায়ারের দায়িত্বে থাকা নীতিন মেনন। দুর্ধর্ষ সেই ম্যাচে ম্যান অফ দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হন দিল্লি ক্যাপিটালসের অসি অলরাউন্ডার মার্কাস স্টোইনিস। কিন্তু সেই সিদ্ধান্তে অখুশি সেহওয়াগ। তার স্পষ্ট বার্তা, ম্যান অফ দ্য ম্যাচের পুরষ্কার দেওয়া উচিত দোষী আম্পায়ার নীতিন মেননকে।

IPL 2020, DC vs KXIP highlights: Delhi beats Punjab in Super Over thriller | Business Standard News

টুইটারে সেই ছবিতে সেহওয়াগ লিখেছেন, “ম্যান অফ দ্য ম্যাচের সিদ্ধান্তের সাথে আমি সহমত নই। যে আম্পায়ার এই শর্ট রানের ঘোষণা করেছেন তাকেই ম্যাচ অফ দ্য ম্যাচ ঘোষণা করা উচিত। ওটা শর্ট রান নয়। আর এই সিদ্ধান্তটিই বড়সড় পার্থক্য গড়ে দিয়েছে।”

যদিও টুইটটি ব্যাঙ্গাত্মক হলেও তা যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। সোশ্যাল মিডিয়ায় অধিকাংশের মত, কার্যত গোটা ম্যাচের মোড় একাই ঘুরিয়ে দিয়েছেন আইসিসির এলিট প্যানেলের নতুন সদস্য নীতিন মেনন।

Want to keep the Indian flag flying high: Nitin Menon

সেহওয়াগের এই টুইটকে রিটুইট করে নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের সহ-মালকিন প্রীতি জিন্টা। তিনি লিখেছেন, “অতিমারির মাঝেও আমি এখানে খুবই উৎসাহের সাথে এসেছি। ছয়দিন কোয়ারেন্টিন ও পাঁচবার কোভিড টেস্ট করেছি হাসি মুখে। কিন্তু এই একটি শর্ট রান আমায় বড় ধাক্কা দিল। কি দরকার এমন প্রযুক্তির যদি তা কখনও ব্যবহারই না হয়? এখনই সময় বিসিসিআই-এর যাতে তারা নতুন নিয়ম নিয়ে আসে। প্রতি বছর এরকম ধরণের ভুল সিদ্ধান্ত চলতে পারে না।”

আইপিএল-এ এই ধরণের ভূল নতুন নয় 

এটি সত্যবচন। আইপিএল-এ এই ধরণের প্রযুক্তিগত তথা আম্পায়ারের ভুল নতুন নয়। এরকম একটি তালিকা বানাতে গেলে তা দীর্ঘ হবে। তাই সম্প্রতিকালের একটি ঘটনাকেই ধরা যাক। গত বছর আইপিএল-এ মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর ম্যাচে লাসিথ মালিঙ্গার বোলিংয়ে শেষ বলে ম্যাচ জেতে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স।

IPL 2019 - RCB vs MI: Kohli left fuming over Malinga no-ball howler - Sportstar

কিন্তু ম্যাচ শেষে টিভি রিপ্লেতে দেখা গিয়েছে, শেষ বলে লাসিথ মালিঙ্গার পা ক্রিজের বাইরে ছিল, যা নো বল হিসেবে ঘোষিত হয়। আর সেই নিয়ে পোস্ট প্রেজেন্টেশনে এসে নিজের ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছিলেন আরসিবি অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *