বিরাট জানালেন যে শেষ ওভারে তিনি বুমরাহকে কি বলেছিলেন 1
বিরাট কোহলি

ম্যাচের অন্তিম ওভারে যশপ্রীত বুমরাহ’র অনবদ্য বোলিং-এর দৌলতে ভারত রুদ্ধশাসভাবে ৩-ম্যাচের টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে জয় তুলে নিয়ে সিরিজ ১-১ রেখে দিল। রবিবার নাগপুরে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে ভারত ইংল্যান্ড ৫ রানে পরাস্ত করল।

এদিন টসে জিতে প্রথমে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক ইয়ন মর্গ্যান। নির্ধারিত ২০ ওভারে ভারতকে ১৪৪ রানে (১৪৪/৮) আটকে রাখে ইংল্যান্ড বোলাররা।

জবাবে ইংল্যান্ডের শুরুটা একটু নড়বড়ে হলেও মাঝের দিকে বেশ ভালভাবে সামলে এনেছিল। ম্যাচের একদম অন্তিম ওভারে ইংল্যান্ডের জয়ের জন্য দরকার ছিল মাত্র ৮ রান এবং হাতে ছিল ৬টি উইকেট। উপরন্তু ব্যাট হাতে ক্রিজে ছিলেন জো রুট (৩৮) এবং জস বাটলার (১৫), যেখানে বল হাতে শেষ ওভারের দায়িত্বে ছিল বুমরাহ।

অন্তিম ওভারের প্রথম বলেই বুমরাহ লেগ বিফোরের মাধ্যমে প্যাভিলিয়নে ফেরান রুটকে (৩৮), যদিও বলটি রুটের পায়ে লাগার পূর্বে ব্যাটের কিনারায় লাগায় এই আউটটি ছিল আম্পায়ারের একটি ভুল সিদ্ধান্ত। উপরন্তু ওভারের ৪র্থ বলে বাটলারকে (১৫) আউট করে, ম্যাচটিকে ইংল্যান্ডের পক্ষে একেবারে কঠিন করে তোলে ভারতীয় পেসার বুমরাহ।

ম্যাচের অন্তিম ওভারে ২টি মূল্যবান উইকেট দখলের পাশাপাশি মাত্র ২ রান খরচ করে, ভারতকে এক অসাধারণ জয় এনে দেন ম্যাচের সেরা নির্বাচিত হওয়া বুমরাহ। তার এই অসাধারণ বোলিং ভারতকে শুধু ম্যাচই উপহার দিল না বরং তার সাথে সিরিজেও ভারতকে ফিরিয়ে আনল।

ম্যাচ হেরে যাবার পর সিনিয়রদের নিয়ে অধিনায়ক কোহলি যা বললেন …

স্বভাবতই এই জয়ে উচ্ছসিত ভারতের নতুন টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ভারতের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক হিসেবে এটা বিরাটের প্রথম জয়।

দলের বোলারদের প্রশংসায় পঞ্চমুখ কোহলি। ম্যাচ শেষের সাংবাদিক সম্মেলনে কোহলি বোলারদের সম্পর্কে বলেন, “বিশ্বাস থাকাটা খুবই জরুরি। এটা আমদের ক্ষেত্রে প্রাথমিকভাবে ভাল করে কার্যসম্পাদন করেছে। আপনি কখনও চাইবেন না যে মাঝের ওভারে ম্যাচের রাশ হাত থেকে বেরিয়ে যাক, বিশেষত সিরিজ যখন বিপদে। কিন্তু যেভাবে স্পিনাররা মাঝের ওভারে বল করল এবং তারপর শিশিরে নেহেরা ও বুমরাহ-র প্রয়াস ছিল অসাধারণ।”

কোহলি আরোও যোগ করেন, “নেহেরা জানতেন যে তিনি ঠিক কি করতে চাইছেন, বুমরাহ আমাকে প্রতি বলে জিজ্ঞাসা করছিল যে তার কি করা উচিত। আমি তখন ওকে (বুমরাহ) বললাম যে, শুধুমাত্র নিজের স্বাভাবিক বোলিংটাই করো।”

এছাড়াও এই কঠিন উইকেটে ভারতীয় ওপেনিং ব্যাটসম্যান কে এল রাহুলের (৭১) অনবদ্য প্রচেষ্টাকেও উল্লেখ করতে ভোলেননি কোহলি। এ ব্যাপারে কোহলি বলেন, “এই উইকেটে আমি অল্প সময়ের জন্য খেলেছি, শট খেলা বেশ কঠিন ছিল। আমি তাড়াতাড়ি আউট হয়ে যেতেই রাহুল বুঝে গিয়েছিল যে তাকে লম্বা খেলতে হবে। ওর কাছে সব ধরনের শট খেলার ক্ষমতা আছে। হাতে-চোখের সমন্বয়ের সাথে রয়েছে ভাল রিফ্লেক্স।”  

অন্যদিকে ইংল্যান্ড অধিনায়ক মর্গ্যানও ভারতীয় পেসার যশপ্রীত বুমরাহ’র প্রশংসা করলেন। তিনি বলেন, “অন্তিম ওভারের শুরুটা আমরা ভাল করিনি। উইকেটটা কঠিন ছিল, কিন্তু সত্যি কথা বলতে, ও (বুমরাহ) একটা ম্যাচ জেতানো ওভার উপহার দিয়েছিল।”

তবে এই অপ্রত্যাশিত পরাজয়ের পরেও টি-২০ সিরিজ জেতার ব্যাপারে যথেষ্ট আশাবাদী মর্গ্যান। ইংল্যান্ড অধিনায়ক ব্যক্ত করেন, “এই রান তাড়া করার সময়, আমরা কখনই খুব দূরে সরে যাইনি। রুট, স্টোকস দুর্ধর্ষ রকমের ভাল খেলেছিল। এটা একটা অবিশ্বাস্যরকমের হতাশাদায়ক পরাজয়, তবে এখনও আমাদের এই সিরিজ জেতার সুযোগ আছে ব্যাঙ্গালোরে।”

ভারত বনাম ইংল্যান্ডের মধ্যে ৩-ম্যাচের টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক সিরিজের অন্তিম ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১লা ফেব্রুয়ারি ব্যাঙ্গালোরে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *