দ্বিতীয় প্র্যাকটিস ম্যাচে ছন্দে ফিরতে দলে বড়োসড়ো পরিবর্তন কোহলির

আইসিসি বিশ্বকাপে শনিবার ওভালে ভারত আর নিউজিল্যাণ্ডের মধ্যে একটি প্র্যাকটিস ম্যাচ খেলা হয়েছে। এই ম্যাচে টিম ইন্ডিয়ার কোনো ব্যাটসম্যানই কিউরি দলের বোলিংয়ের সামনে লড়াই করতে পারেননি। পুরো দল বোল্ট আর নীশমের বোলিংয়ের সামনে আত্মসমপর্ণ করে দেয়। একমাত্র হার্দিক পাণ্ডিয়া আর রবীন্দ্র জাদেজাকে পিচে কিছুটা সংঘর্ষ করতে দেখা যায়। জাদেজা এই ম্যাচে হাফ সেঞ্চুরি করেন। তার এই হাফসেঞ্চুরির সৌজন্যেই টিম ইন্ডিয়া এই ম্যাচে ১৭৯ রান পর্যন্ত পৌঁছতে সক্ষম হয়। পুরো ভারতীয় দল মাত্র ৪০ ওভারের ভেতরেই প্যাভিলিয়নে ফিরে যায়। ট্রেন্ট বোল্ট ৪ উইকেট আর নীশম ৩ উইকেট হাসিল করেন। টিম ইন্ডিয়ার অর্ধেক দল মাত্র ১০০ রানের ভেতরেই আউট হয়ে যায়। এরপর রবীন্দ্র জাদেজা খানিকটা লড়াকু ইনিংস খেলে দলকে সম্মানজন স্কোরে পৌঁছে দেন।

টিম ইন্ডিয়ার শুরুটা খারাপ হয়

প্র্যাকটিস ম্যাচে হারের পর একে দোষ দিয়ে বিরাট বললেন এদের নিতে হবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা 1

বিশ্বকাপ খেতাবের দাবীদার হিসেবে টুর্নামেন্ট খেলা ভারতীয় দলের শীর্ষ ব্যাটসম্যানরা প্র্যাকটিস ম্যাচে নিউজিল্যাণ্ডের বিরুদ্ধে ছন্নছাড়া হয়ে পড়ে। ওপেনার রোহিত শর্মা আর ধবন দুজনেই উইকেটে টিকে থাকতে পারেনি আর মাত্র ৩ ওভারের মাঝেই প্যাভিলিয়নে ফিরে যান। এরপর আসা অধিনায়ক বিরাট কোহলি এবং কেএল রাহুলও বিশেষ কিছুই করতে পারেননি। রোহিত শর্মা মাত্র ২ রান করে ট্রেন্ট বোল্টের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে যান। ধবনও ২ রান করে ট্রেন্ট বোল্টের ব্লেই টম ব্লণ্ডেলকে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান। এরপর আসা অধিনায়ক কোহলি মাত্র ১৮ রানই করতে পারেন আর গ্র্যান্ড হোমের বলে বোল্ড হন। রাহুল (৬)কে বোল্ড করেন ট্রেন্ট বোল্ট।

নিউজিল্যাণ্ড সহজেই করে জয় হাসিল

প্র্যাকটিস ম্যাচে হারের পর একে দোষ দিয়ে বিরাট বললেন এদের নিতে হবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা 2

কিউয়ি দলের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন আর রস টেলরের হাফসেঞ্চুরির দৌলতে ৩৭ ওভারেই মাত্র ৪ উইকেট হারিয়ে নিউজিল্যান্ড এই লক্ষ্য হাসিল করে নেয়। যদিও জসপ্রীত বুমরাহেক নিজের মেজাজে দেখা গিয়েছে। তিনি ৪ ওভারে ২টি মেডেন সহ ২ উইকেট হাসিল করেন মাত্র ২ রান দিয়ে।

ম্যাচ শেষে বিরাট বললেন এই কথা

প্র্যাকটিস ম্যাচে হারের পর একে দোষ দিয়ে বিরাট বললেন এদের নিতে হবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা 3

এই ম্যাচে হারের পর ভারতীয় দলের অধিনায়ককে যথেষ্ট নিরাশ দেখিয়েছে। ম্যাচ শেষে তিনি বলেন,

“দ্বিতীয় ইনিংসে এটা ভীষণই আলাদা হয়ে গিয়েছিল। আমাদের হাতে বেশি উইকেট ছিল না। জাদেজার খুব ভাল ইনিংস খেলেছে। ৫০রানে ৪ উইকেট থেকে ১৮০ পর্যন্ত যাওয়া খুবই ভাল প্রচেষ্টা। বিশ্বকাপের মত টুর্নামেন্টে যদি টপ অর্ডার দ্রুত আউট হয়ে যায় তো সেই সময় লোয়ার অর্ডারকে রান করতে হবে। হার্দিক খুব ভাল ব্যাট করেছে, এমএসও ভালভাবে চাপ শুষে নিয়েছে এবং জাদেজাও খুব ভাল খেলেছে। এখানে ফিল্ডারদের ভূমিকা মুখ্য হবে। ওই হাফ চান্সগুলোকে গুনতিতে ধরতে হবে। আমাদের প্রত্যেকটা বিভাগেই সুনির্দিষ্ট হতে হবে”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *