তথ্য সহ প্রমাণিত বিরাটের অভিযোগ, আইসিসির রোষের মুখে পড়তে পারে স্মিথ 1
স্টিভ স্মিথ

সাম্প্রতিককালে ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলির নেওয়া ডিআরএসের বেশিরভাগটাই তাঁর বিরুদ্ধে গিয়েছে। তাই বাইশ গজে একথাও প্রচলিত হয়েছে বিরাট কোহলি ডিআরএস নিলে তা, তাঁর বিরুদ্ধেই যাবে। এদিকে, অস্ট্রেলিয়ার কোনও ক্রিকেটার ডিআরএস গ্রহণ করলে তাঁদেরকে চ্যাম্পিয়ন বলেই বিবেচিত করা হয়। কিন্তু সেই চ্যাম্পিয়ন দলের অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ মঙ্গলবার বেঙ্গালুরুতে যা করলেন তা দেখে লজ্জায় মাথা কাটা গেল অস্ট্রেলিয়ার।

টুইটারের মাধ্যমে ঘোষণা করলেন বীরেন্দ্র সেহওয়াগ, বিরাট আজ অবসর নেবে


উমেশ যাদবের বলে এলবিডব্লু হওয়ার পরে স্মিথ ডিআরএস নেবে কি নেবে না তা জানার জন্য ড্রেসিং রুমের দিকে তাকায়। কারণ নন স্ট্রাইকার এন্ডে থাকা ব্যাটসম্যান এবিষয়ে তাঁকে ঠিক সহায়তা করতে পারছিলেন না। কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এধরনের কাজ নিয়মবর্হিভূত এবং অপরাধ বলেই বিবেচিত। বিরাট কোহলি বিষয়টি দেখে ও আম্পায়ারকে গিয়ে তৎক্ষণাৎ জানায়। ম্যাচ জেতার পর সাংবাদিক সম্মেলনেও বিরাট এই বিষয়টি সকলের গোচরে আনেন। তিনি বলেন, ‘ডিআরএসের কোনও সিদ্ধান্ত নিতে হলে আমরা নিজেই বা মাঠে উপস্থিত কোনও সতীর্থের সঙ্গে কথা বলেই নিই। তার জন্য ড্রেসিং রুমের দিকে তাকাতে হয়না। কারণ এটা ক্রিকেটের নিয়ম নয়।’ কোহলির এই অভিযোগ নেহাতই কোনও ভূয়ো অভিযোগ নয়। কারণ এক জাতীয় টিভি চ্যানেলের ভিডিও ফুটেজে এই অভিযোগের স্পষ্ট প্রমাণ রয়েছে। কাজেই স্মিথের কাছে এই অভিযোগ নস্যাৎ করার কোনও রাস্তাই নেই। কোহলির অভিযোগের ভিত্তিতে আইসিসি স্মিথের বিরুদ্ধে কবে ব্যবস্থা গ্রহণ করে সেটাই এখন দেখার।

ছোট্ট একটা ভুল বোঝাবুঝি, তাতেই লেখা হল অস্ট্রেলিয়ার অ্যান্টি ক্লাইম্যাক্স

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *