বিরাট কোহলির নেতৃত্বে অস্ট্রেলিয়ার দল লাগালো দাগ, লজ্জাজনক তালিকায় করে নিলেন জায়গা 1

গত কিছু ম্যাচে ভারতীয় দলের প্রদর্শন দেখে এমন মনে হচ্ছে যে বিরাট কোহলির নেতৃত্ব কৌশলের বেহাল দশা হয়ে গিয়েছে। বিপক্ষ দলের সামনে আত্মসমর্পণের পরিস্থিতিতে দেখা যাওয়া ভারতীয় দলের পারফর্মেন্সের গ্রাফ পড়ের যাওয়ার জন্য অধিনায়কের ভূমিকায় প্রশ্ন ওঠা স্বাভাবিক। নিজের ৩ বছরের অধিনায়কত্বে কোথাও না কোথাও সেই সময় এসে গিয়েছে যেখানে বিরাটের অধিনায়ক হিসেবে নিজের ভূমিকা একবার পরিমাপ করে নেওয়া উচিত। এই প্রশ্ন সেই সময় উঠছে যখন ভারতীয় দলকে নিয়মিত হারের মুখে পড়তে হচ্ছে।

নিয়মিত হারে উঠছে প্রশ্ন

বিরাট কোহলির নেতৃত্বে অস্ট্রেলিয়ার দল লাগালো দাগ, লজ্জাজনক তালিকায় করে নিলেন জায়গা 2

বিরাট সীমিত ওভারের ক্রিকেটড়ে ২০১৭ থেকে ভারতীয় দলের দায়িত্ব সামলাচ্ছেন। বিরাটের অধিনায়কত্বের এই সময়ে ভারতীয় দল বেশকিছু ম্যাচ জিতেছে আর কিছু দুর্দান্ত রেকর্ডও নিজের নামে করেছে। কিন্তু গত কিছু সময় ধরে দলের প্রদর্শন আর বিরাটের নেতৃত্বের কৌশল ব্যর্থ হওয়ার পর দলকে নিয়মিত হারের মুখে পড়তে হচ্ছে। ভারতীয় দলের হারের এই ধারা নিউজিল্যান্ড সফরের পর থেকে নিয়মিত বজায় রয়েছে। নিউজিল্যাণ্ডের হ্যামিলটন থেকে শুরু হওয়া এই হারের ধারা সিডনি পর্যন্ত বজায় রয়েছে। এই ধারা ছাড়াও গত বছর অস্ট্রেলিয়ারই বিরুদ্ধে দলকে পরপর তিনটি ম্যাচে হারতে হয়েছিল। বিরাটের উপর প্রশ্ন উঠতে করতে শুরু করার আগে তার নিজের একবার মানসিকভাবে নিজের অধিনায়কত্বের স্কিলকে ফিরে দেখা উচিত।

জয়ের বদলে হারের হচ্ছে রেকর্ড

বিরাট কোহলির নেতৃত্বে অস্ট্রেলিয়ার দল লাগালো দাগ, লজ্জাজনক তালিকায় করে নিলেন জায়গা 3

ওয়ানডেতে ভারতীয় দলের এক মরশুমে পরপর হারের ধারা নিয়ে কথা বলার আগে আমাদের গত ৪৬ বচহরে ভারতীয় দলের প্রদর্শনের পরিমাপ করতে হবে। দলের একভাবে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ হারার রেকর্ড প্রাক্তন অধিনায়ক সুনীল গাভাস্কারের নেতৃত্বে নথিবদ্ধ হয়েছিল। হারের এই নিরাশাজনক ধারা অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধেই সিডনি থেকে শুরু হয়েছিল। এই ব্যাপারটি থেকে সামান্য পরের কথা বলা হলে ১৯৮৯ সালে ভারত পরপর ৭টি ম্যাচ হেরেছিল। সেই সময় দলের দায়িত্বে ছিলেম কৃষ্ণমাচারি শ্রীকান্ত আর দিলীপ বেঙ্গসরকার এটা পঞ্চমবার যখন কোনো একটি মরশুমে ভারতীয় দলকে পরপর ৫টি ম্যাচে হারতে হয়েছিল আর এবারের দলের অধিনায়ক হলেন বিরাট কোহলি।

অধিনায়ক যারা এতবার হারের মুখ দেখেছেন

বিরাট কোহলির নেতৃত্বে অস্ট্রেলিয়ার দল লাগালো দাগ, লজ্জাজনক তালিকায় করে নিলেন জায়গা 4

বিরাটই একমাত্র অধিনায়ক নন যার নামে পরপর হারের এই রেকর্ড রয়েছে। বরং তার আগেও বেশকিছু তারকা অধিনায়ক এর মধ্যে দিয়ে গিয়েছে। এক মরশুমে ধারাবাহিক হারের এই ধারা শুরু হয় ১৯৭৮ থেকে যখন তারকা স্পিনার বিষেন সিং বেদী আর ভেঙ্কটরাঘবনের সংযুক্তভাবে অধিনায়ক ছিলেন আর তারা পরপর ৫টি ম্যাচে হেরেছিল। এরপর ১৯৮৩তে বিশ্বকাপ জিয়ী অধিনায়ক কপিলদেবের অধিনায়কত্বেও দল পরপর ম্যাচটি ম্যাচ জিততে পারেনি। চ্যাম্পিয়ন্স অফ চ্যাম্পিয়ন্সের তকমা হাসিল করা প্রাক্তন অধিনায়ক রবি শাস্ত্রীও ১৯৮৮তে পরপর হারের এই স্বাদ পেয়েছেন। তারপর ২০০২ এ সৌরভ গাঙ্গুলী, ২০০৫ এ রাহুল দ্রাবিড়ও পরপর ৫টি ম্যাচ হারের কড়া স্বাদ পেয়েছেন।
এই পুরো বিষয়টির দিকে আলো ফেলা হতে এই কথা সামনে বেরিয়ে আসে যে বিরাটকে আরও একবার নিজের অ্যাগ্রেসনকে সরিয়ে রেখে ঠাণ্ডা মাথায় নিজের অধিনায়কত্ব আর দলের প্রদর্শনে উন্নতির জন্য ভবিষ্যতের পরিকল্পনা নিয়ে ভাবনা চিন্তা করতে হবে। বিরাট কোহলির অধিনায়কত্ব কৌশল দলের জন্য অপ্রাসঙ্গিক হয়ে যাওয়ার আগে আর সমর্থকদের তাকে অধিনায়ক হিসেবে অস্বীকার করার আগে বিরাটকে নিজের ভেতর একবার তাকিয়ে দেখতে হবে।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *