মুম্বাই-পাঞ্জাব ম্যাচে হঠাৎই হল লোডশেডিং, দর্শকরা অশ্বিনের স্ত্রীকে এমন কিছু বলল যা শুনে হাসি থামবে না আপনার

গতকাল মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়েতে মুখোমুখি হয়েছিল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব এবং মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। ওই ম্যাচে মুম্বাই কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে তিন রানে হারিয়ে দিয়ে প্লে অফে নিজেদের আশা জিইয়ে রাখে। অন্যদিকে ফের একবার নিরাশাই হাতে আসে পাঞ্জাবের। ওপেনার লোকেশ রাহুলের ৬০ বলে ৯৪ রানের ইনিংসও তাদের জেতাতে পারে নি। কিন্তু গতকালের ম্যাচে এমন এক ঘটনা ঘটে যা চর্চার বিষয় হয়ে ওঠে। আসলে যখন মুম্বাই ব্যাট করছিল, সেই সময় ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামের ফ্লাডলাইটে কোন সমস্যা দেখা দেয় আর হঠাৎ করেই দুটি ফ্লাড লাইট বন্ধ হয়ে যায়। ফলে বেশ কিছুক্ষণের জন্য খেলা বন্ধ রাখতে হয়। এই ঘটনায় অশ্বিনের স্ত্রী প্রীতি অশ্বিন অবাক হন এবং টুইট করে লেখেন যে খেলার মধ্যেই ফ্লাড লাইট বন্ধ হয়ে যায়।

মুম্বাই-পাঞ্জাব ম্যাচে হঠাৎই হল লোডশেডিং, দর্শকরা অশ্বিনের স্ত্রীকে এমন কিছু বলল যা শুনে হাসি থামবে না আপনার 1
ছবি সৌজন্যে বিসিসিআই

মুম্বাইয়ের ইনিংসে দশম ওভার শেষে হঠাৎ করেই ফ্লাড লাইতের দুটি টাওয়ার অফ হয়ে যায় ফলে ম্যাচও বন্ধ হয়ে যায়। ওই সময় রান করার জন্য মুম্বাই দল লড়াই করছিল। সেই সময় মুম্বাইয়ের ৭৯ রানে চার উইকেট পড়ে গিয়েছিল। আউট হওয়া খেলোয়াড়দের মধ্যে ছিলেন সূর্যকুমার যাদব, এভিন লুইস, ঈশান কিষাণ এবং রোহিত শর্মা। সেই সময় ক্রিজে ক্রুণাল পান্ডিয়ার সঙ্গে কায়রণ পোলার্ড রান করার জন্য সংঘর্ষ করছিলেন। যদিও এর বেশ কিছু পরেই ম্যাচ দ্রুত শুরু হয়ে যায়। এর মধ্যেই পাঞ্জাব অধিনায়ক আর অশ্বিনের স্ত্রী প্রীতি অশ্বিন টুইট করেন, “ খেলার মাঝ পথেই লাইট বন্ধ, হোয়াট!!!”

প্রীতি নিজের টুইটের সঙ্গে একটি ছবিও পোষ্ট করেন যাতে ওয়াংখেড়ের দুটি ফ্লাড লাইট বন্ধ পড়ে থাকতে দেখা যায়। এই টুইটে টুইরাত্তিরা মজাদার কমেন্টস করা শুরু করেন। কেউ কেউ স্টেডিয়াম স্টাফদের তুলোধনা করার চেষ্টা করেন, কেউ কেউ প্রীতিকে বলেও ফেলেন চিন্তা করবেন না পাঞ্জাবই জিতবে। এক ভক্ত তো এটাও বলে দেন যে আপনি নিজের আইফোনের ফ্ল্যাশ লাইট জ্বেলে দিন।
মুম্বাই-পাঞ্জাব ম্যাচে হঠাৎই হল লোডশেডিং, দর্শকরা অশ্বিনের স্ত্রীকে এমন কিছু বলল যা শুনে হাসি থামবে না আপনার 2

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *