এই পাকিস্তানী সৌরভ গাঙ্গুলীকে নিয়ে দিলেন এমন বয়ান, জিতে নিলেন কোটি কোটি ভারতীয়র মন

ভারত আর পাকিস্তানের খেলোয়াড়দের মধ্যে সবসময়ই একটা দারুণ প্রতিদ্বন্ধীতা দেখতে পাওয়া যায়। যদিও দুই দেশের কিছু খেলোয়াড়ের মধ্যে যথেষ্ট ভালো বন্ধুত্বও রয়েছে। এর মধ্যে পাকিস্তানের প্রাক্তন অফ স্পিনার সাকলেন মুস্তকা বিসিসিআইয়ের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলীকে নিয়ে একটি বয়ান দিয়েছেন, যেখানে তিনি ভারতের প্রাক্তন অধিনায়কের জমিয়ে প্রশংসা করেছেন।

সৌরভ গাঙ্গুলীকে বললেন অল দ্য বেস্ট

এই পাকিস্তানী সৌরভ গাঙ্গুলীকে নিয়ে দিলেন এমন বয়ান, জিতে নিলেন কোটি কোটি ভারতীয়র মন 1

পাকিস্তানের প্রাক্তন অফ স্পিনার সাকলেন মুস্তাক নিজের ইউটিউব চ্যানেলে কথা বলতে গিয়ে বলেছেন,

“সৌরভ গাঙ্গুলী যখন ভারতের অধিনায়কত্ব করছিলেন, তো তিনি দারুণ কাজ করেছিলেন। আমার বিশ্বাস যে তিনি বিসিসিআইয়ের সভাপতি হিসেবে নিজের দেশে ক্রিকেটকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য লম্বা সফর পার করবেন। এর জন্য আমি ওকে অল দ্যা বেস্টও জানাচ্ছি”।

সৌরভের সঙ্গে কোনো বিষয় নিয়েই আমার কোনো ভুল বোঝাবুঝি নেই

এই পাকিস্তানী সৌরভ গাঙ্গুলীকে নিয়ে দিলেন এমন বয়ান, জিতে নিলেন কোটি কোটি ভারতীয়র মন 2

নিজের কথা বলতে গিয়ে সাকলেন মুস্তাক আগে বলেন,

‘যখন আমরা খেলতাম,তখন দু-দিকেই যথেষ্ট প্যাশন থাকত। সমর্থকরা নিজেদের উপস্থিতি অনুভব করতেন। সেখানে কিছু ভুল বোঝাবুঝিও হত, আর এমনকী আমিও এটার অংশ থেকেছি। যদিও ম্যাচ শেষ হতেই আমরা সমস্ত বিষয়গুলিকে পেছনে ফেলে দিতাম। যদিও সৌরভের সঙ্গে কোনো বিষয় নিয়ে আমার কোনো ভুল বোঝাবুঝি হয়নি”।

সৌরভ গাঙ্গুলী জিতেছেন আমার হৃদয়

এই পাকিস্তানী সৌরভ গাঙ্গুলীকে নিয়ে দিলেন এমন বয়ান, জিতে নিলেন কোটি কোটি ভারতীয়র মন 3

সৌরভ গাঙ্গুলীর সঙ্গে যুক্ত একটি ঘটনার কথা বলে তিনি জানিয়েছেন,

“যখন একবার ভারত, ইংল্যান্ড সফর করছিল, তো আমি সেই সময় সাসেক্সের হয়ে খেলতাম। ওদের সাসেক্সের সঙ্গে তিনদিনের প্র্যাকটিস ম্যাচ ছিল। যদিও সৌরভ গাঙ্গুলী ওই ম্যাচ খেলছিলেন না। সাসেক্স টস জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়। আমি ওই ম্যাচে নিজের হাঁটুর সার্জারি করে প্রত্যাবর্তন করছিলাম আর সৌরভ ওই ম্যাচকে দেখছিল। যখন সাসেক্স ব্যাটিং করছিল, সৌরভ আমাকে ব্যালকনিতে দেখে, যদিও আমি ওকে দেখতে পাইনি, কারণ আমাদের ড্রেসিংরুম অন্যদিকে ছিল। এরপর আমাদের ড্রেসিংরুমে ও আসে আর আমাকে এক কাপ কফি অফার করে আর আমার হাঁটু, আমার জীবন আর পরিবারের ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করে, তারপর আমরা ব্যস্ত কথা বলতে শুরু করি। ও আমার সঙ্গে ৪০ মিনিট পর্যন্ত বসেছিল আর ও আমার হৃদয় জিতে নেয়”।

Leave a comment

Your email address will not be published.