ধোনির গ্লাভসে " বলিদান ব‍্যাজ " এ কোন ভুল নেই, মনে করেন এই প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ক 1

গত ৫ ই জুন, এবারের বিশ্বকাপ অভিযান শুরু ক‍রেছিলো ভারত‌।সাউথ আফ্রিকার বিরুদ্ধে সেই ম‍্যাচে জয়ের মধ্যে দিয়ে এবারের বিশ্বকাপটা দারুণ ভাবে শুরু করলেও।ম‍্যাচের পরবর্তী সময় থেকে তীব্র বিতর্কের সৃষ্টি হয় ধোনির গ্লাভসে ভারতীয় সেনাবাহিনীর ” বলিদান ব‍্যাজ ” পড়ে খেলার জন্য‌।দেশের সেনাবাহিনীর প্রতি ধোনির অসীম শ্রদ্ধা নিয়ে নতুন করে কিছু বলার নেই।এবার বিশ্বক্রিকেটের মন্চে ফের আরেকবার দেশের সন্মান কে এক অন‍্যমাত্রায় নিয়ে গেছিলেন তিনি।যদিও পরবর্তী সময় তা ঘিরে সৃষ্টি হওয়া বিতর্ক সৃষ্টি করেছিলো বিভাজন।

ধোনির গ্লাভসে " বলিদান ব‍্যাজ " এ কোন ভুল নেই, মনে করেন এই প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ক 2

বিভাজন সৃষ্টি হয় বিসিসিআই এবং আইসিসির মধ্যে।একদিকে যখন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের তরফে আইসিসি’র কাছে অনুরোধ করা হয় বিশ্বকাপজয়ী ভারত অধিনায়ক কে এই ব‍্যাজ পড়ে খেলতে দেওয়ার জন্য।তখন তা সরাসরি নাকচ করে দেওয়া হয় ” আইসিসির ” তরফে।কারন আইসিসি’র স্বীকৃত প্রাপ্ত ছাড়া আর কোনও রকমের লোগা ব‍্যবহার করতে পারবেনা এমনটাই রয়েছে নিয়ম।

একদিকে যখন গোটা বিষয়টি নিয়ে খানিকটা ঠান্ডা লড়াই তৈরি হয়েছিল ভারত এবং আন্তর্জাতিক ক্রিকেট বোর্ডের মধ্যে।ঠিক তখন গোটা বিষয়টি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র সরব হয়ে ওঠে নেটিজেনরা।যদিও এর মধ্যে কোনও রকম বিতর্কের কিছু খুঁজে পাননি প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক কপিল দেব।

ধোনির গ্লাভসে " বলিদান ব‍্যাজ " এ কোন ভুল নেই, মনে করেন এই প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ক 3

প্রসঙ্গত, তার নেতৃত্বে প্রথম বারের মতো বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ পেয়েছিলো ভারত।১৯৮৩ তে লর্ডসের ফাইনালে শক্তিশালী ওয়েস্ট ইন্ডিজ কে হারিয়ে সেইবার গোটা বিশ্বকে চমকে দিয়েছিলো কপিলের ভারত।সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে ” ধোনির গ্লাভস ” বিতর্ক প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ” এর মধ্যে বিতর্কের কোনও কিছু নেই, দেশের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এমনটা করেছে।আমার তো মনে হয় এমনটা ক‍রার সময় ও কোনও রকম আঁচ করেনি যে এমন পরিনতি হতে পারে।তবে নিয়ম যা তাতো মানতেই হবে ” । ধোনির প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে তার এমন কাজের জন্য গর্ববোধ করেন তিরাশির নায়ক।

ধোনির গ্লাভসে " বলিদান ব‍্যাজ " এ কোন ভুল নেই, মনে করেন এই প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ক 4

প্রসঙ্গত, আগামী রোববার ওল্ড ট্রাফোডে মুখোমুখি হতে চলেছে ভারত – পাকিস্তান।এই ম‍্যাচ কে নিয়ে আর নতুন কিছু বলার নেই।আর এই মুহূর্তে তো বিষয়টি সম্পূর্ণ অন‍্য এক মাত্রা নিয়েছে।যার প্রধান কারন অবশ্যই এই দুই দেশের মধ্যে অস্থির এক সম্পর্ক।ঠিক এইরকম একটি আবহের মধ্যে আগামী ১৬ ই জুনের মুখোমুখি হতে চলেছে ভারত -পাক।

১৯৯২ সালে বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো মুখোমুখি হয়েছিল দুই দেশ।এখনো অবধি একবারও ভারতকে হারাতে পারেনি তারা।এবারের তিন নম্বর বিশ্বকাপ জিতবে ভারত এমনটাই মনে করা হচ্ছে।এমনকি সেই সম্ভাবনা কেও প্রবল করে তুলেছেন বিরাটরা, এখন ও অবধি তাদের খেলায় তার পরিচয় দিয়েছে।গতকাল প্রবল বৃষ্টির জন্যে একটিও বল খেলা হলোনা ভারত – নিউজিল্যান্ডের মধ্যে।প্রথমে সাউথ আফ্রিকা তারপর অস্ট্রেলিয়া কে দারুন ভাবে হারিয়ে তিন নম্বর কাপ জয়ের স্বপ্ন কে ক্রমশ উস্কে দিচ্ছে বিরাটরা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *