একসময় গভীর বন্ধু ছিলেন এই ভারতীয় ক্রিকেটারররা, কেউ দিয়েছেন অন্যের স্ত্রীর দিকে নজর তো কেউ রাজনীতির শিকার

ক্রিকেট মাঠে দুই খেলোয়াড়ের মধ্যে গভীর বন্ধুত্বও দেখা যায় তো কখনো কখনো দলের সেই দুই গভীর বন্ধুর মধ্যে এমন কিছু ঝামেলা হতে দেখা যায়, তারপর তাদের মধ্যে দূরত্বের সীমারেখে বেড়েই চলে। ভারতীয় ক্রিকেট ইতিহাসের কথা বলা হলে এমন বেশকিছু উদাহরণ রয়েছে, যেখানে দুই খেলোয়াড়ের মধ্যে দারুণ বন্ধুত্বও দেখা গিয়েছে অন্যদিকে দুই বন্ধূ কোনো ব্যাপারে দূরেও চলে গিয়েছেন।

রায়না-ধোনির মতো ভারতের এই খেলোয়াড়দের মধ্যে হয়ছে ঝামেলা

একসময় গভীর বন্ধু ছিলেন এই ভারতীয় ক্রিকেটারররা, কেউ দিয়েছেন অন্যের স্ত্রীর দিকে নজর তো কেউ রাজনীতির শিকার 1

এই বিষয়টি আজ আমরা উত্থাপন এই কারণে করছি কারণ সম্প্রতিই ভারতীয় ক্রিকেট দলের দুই প্রাক্তন তারকা সুরেশ রায়না আর মহেন্দ্র সিং ধোনির মধ্যে ঝামেলার খবর সামনে এসেছে। দুই খেলোয়াড়োই সম্প্রতিই অবসর ঘোষণা করেছেন। অবসরের পর সুরেশ রায়না আর মহেন্দ্র সিং ধোনি চেন্নাই সুপার কিংসের সঙ্গে আইপিএল খেলতে ইউএই-তে পৌঁছন। কিন্তু সেখানে মিডিয়ায় চলা খবরের মোতাবেক হোটেলের ঘর নিয়ে এই দুই খেলোয়াড়ের মধ্যে ঝামেলা তৈরি হয়ে যায় আর রায়না এর মধ্যে ভারতেও ফিরে আসেন। এই ঝামেলার পর আজ আমরা আপনাদের ভারতীয় ক্রিকেটে এইভাবে গভীর বন্ধুত্বের মধ্যে ঝামেলার ৫টি উদাহরণের ব্যাপারে জানাব।

বীরেন্দ্র সেহবাগ আর মহেন্দ্র সিং ধোনি

একসময় গভীর বন্ধু ছিলেন এই ভারতীয় ক্রিকেটারররা, কেউ দিয়েছেন অন্যের স্ত্রীর দিকে নজর তো কেউ রাজনীতির শিকার 2

ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন ওপেনিং ব্যাটসম্যান বীরেন্দ্র সেহবাগ আর মহেন্দ্র সিং ধোনির মধ্যে ঝামেলা কারও কাছে লুকোনো নেই। ভারতীয় ক্রিকেট দলে সেই যখন মহেন্দ্র সিং ধোনি অধিনায়ক ছিলেন, সেই সময় দীর্ঘদিন ধরে অধিনায়ক ছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। যদিও অধিনায়ক আর সহঅধিনায়ক থাকার সময় এমএস ধোনি আর বীরেন্দ্র সেহবাগ ভারতীয় ক্রিকেট দলকে দুর্দান্ত সফলতা এনে দিয়েছিলেন, কিন্তু দুজনের মধ্যে অধিনায়কত্বের বিষয়ের সঙ্গেও সেহবাগের কমজুরি ফিল্ডিং নিয়ে যথেষ্ট বড়ো ঝামেলা হয়েছিল। নেতৃত্বের চক্করে দুজনে নিজেদের মধ্যে এমন ঝামেলা তৈরি করেন যে এই ঝামেলা দীর্ঘদিন পর্যন্ত চলে। এরপর বীরেন্দ্র সেহবাগ আর মহেন্দ্র সিং ধোনির মধ্যে যে ভাঙন দেখা দেয় সেটা আজও সম্পূর্ণভাবে ঠিক হয়নি।

বিনোদ কাম্বলি আর শচীন তেন্ডুলকর

একসময় গভীর বন্ধু ছিলেন এই ভারতীয় ক্রিকেটারররা, কেউ দিয়েছেন অন্যের স্ত্রীর দিকে নজর তো কেউ রাজনীতির শিকার 3

ভারতীয় ক্রিকেট ইতিহাসের সর্বকালীন মহান ব্যাটসম্যান শচীন তেন্ডুলকর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ২৪ বছর সময় ধিয়েছেন। যার মধ্যে তিনি দুর্দান্ত প্রদর্শন করেছেন। আজ শচীন ভারতীয় ক্রিকেটে তাঁর গড়া রেকর্ড আর প্রতিভার সৌজন্যেই মহানতা হাসিল করেছেন। শচীন তেন্ডুলকরের মতোই তার ছেলেবেলার বন্ধু বিনোদ কাম্বলিও দারুণ প্রতিভাবান ছলেন। বিনোদ কাম্বলির সেই সময় শচীনের চেয়ে কম প্রতিভা ছিল না। কিন্তু কাম্বলি ভারতের হয়ে হাতে গোনা ম্যাচই খেলতে পেরেছেন। কাম্বলি আর শচীন দারুণ ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিলেন কিন্তু দলে জায়গা না পাওয়ায় কাম্বলি এটাই বলে দিয়েছিলেন যে তিনি রাজনীতির শিকার হয়েছিলেনার যদি শচীন চাইতেন তো তাঁকে সাহায্য করতে পারতেন।

রাহুল দ্রাবিড় সৌরভ গাঙ্গুলী

একসময় গভীর বন্ধু ছিলেন এই ভারতীয় ক্রিকেটারররা, কেউ দিয়েছেন অন্যের স্ত্রীর দিকে নজর তো কেউ রাজনীতির শিকার 4

ভারতীয় ক্রিকেট দলে একসঙ্গে টেস্ট খেলা শুরু করা রাহুল দ্রাবিড় আর সৌরভ গাঙ্গুলীর বন্ধুত্বও উদাহরণ হিসেবে থেকেছে। রাহুল দ্রাবিড় আর সৌরভ গাঙ্গুলী ভীষণই ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিলেন। দুজনে ভারতীয় দলের হয়ে খুবই স্মরণীয় যোগদান দিয়েছেন যা আজও স্মরণ করা হয়। গাঙ্গুলী আর দ্রাবিড়ের মধ্যে সবকিছুই সঠিক চলছিল, কিন্তু যখন ২০০৫ এ গ্রেগ চ্যাপেল দলের কোচ হন তো গাঙ্গুলী আর দ্রাবিড়ের মধ্যে দূরত্ব তৈরি করে দেন। চ্যাপেল গাঙ্গুলীকে দলের নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে রাহুলকে দলের অধিনায়ক করে দেন। যারপর এই দুজনের মধ্যে ঝামেলা তৈরি হয়ে যায়।

বিরাট কোহলি আর গৌতম গম্ভীর

একসময় গভীর বন্ধু ছিলেন এই ভারতীয় ক্রিকেটারররা, কেউ দিয়েছেন অন্যের স্ত্রীর দিকে নজর তো কেউ রাজনীতির শিকার 5

ভারতীয় দলে কিছু খেলোয়াড় শুরু থেকেই যথেষ্ট আক্রামণাত্মক থেকেছেন। ভারতের এই আক্রামণাত্মক খেলোয়াড়দের মধ্যে প্রথম দু’নম্বরে বিরাট কোহলি গৌতম গম্ভীরকেই ধরা হয়ে থাকে। গম্ভীর আর বিরাট কোহলি দুজনেই দিল্লির মানুষ আর ভীষণই আক্রামক এবং রাগী মেজাজের মানুষ। দুজনের মধ্যে যথেষ্ট ভালো বন্ধুত্ব ছিল যখন তারা দিল্লির হয়ে একসঙ্গে খেলতেন। কিন্তু আইপিএলে নিজেদের রাগের কারণে দুজনে এমন ভুল করে বসেন যে বন্ধুত্বে ভাঙন দেখা দেয়। ২০১৩য় খেলা হওয়া আইপিএলে কেকেআর আর আরসিবির মধ্যে চলা ম্যাচে কোহলি গম্ভীর তর্কাতর্কিতে জড়িয়ে পড়েন। ফলে দুজনের বন্ধুত্বে বিচ্ছেদ দেখা যায়। আজও দুজনের মধ্যে সেই ঝামেলার প্রভাব দেখা যায়।

দীনেশ কার্তিক আর মুরলী বিজয়

একসময় গভীর বন্ধু ছিলেন এই ভারতীয় ক্রিকেটারররা, কেউ দিয়েছেন অন্যের স্ত্রীর দিকে নজর তো কেউ রাজনীতির শিকার 6

ভারতীয় ক্রিকেট দলের দুই খেলোয়াড় মুরলী বিজয় আর দীনেশ কার্তিক দুজনেই তামিলনাড়ুর খেলোয়াড়। দীনেশ কার্তিক আর বিজয় একসঙ্গে তামিলনাড়ুর হয়ে যথেষ্ট ক্রিকেট খেলেছেন আর দুজনের মধ্যে দারুণ বন্ধুত্ব ছিল। কিন্তু এমন একটা ঘটনা ঘটে যে দুজনের মধ্যে এমন দূরত্ব তৈরি হয় যা পূরণ হওয়া এখন অসম্ভব হয়ে গিয়েছে। দীনেশ কার্তিক আর মুরলী বিজয়ের বন্ধুত্বে সেই সময় ভাঙন ধরে যখন দীনেশ কার্তিক জানতে পারেন যে তারই ঘনিষ্ঠ বন্ধু মুরলী বিজয়ের তার নিকিতার সঙ্গে অ্যাফেয়ার চলছে। এরপর কার্তিক নিকিতাকে ডিভোর্স দেন আর অন্যদিকে বিজয়ের সঙ্গে তার বন্ধুত্বও ভেঙ্গে যায়।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *