যে কারণে ক্রিকেট থেকে ১ বছরের জন্য নির্বাসিত হলেন রাসেল 1
আন্দ্রে রাসেল

পর পর টানা তিনবার ডোপ টেস্টে উপস্থিত না থাকার অপরাধে এক বছরের জন্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ করা হল আন্দ্রে রাসেলকে। ডোপিং আইন লঙ্ঘনের কারণে আগামী এক বছর ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই মারকুটে অলরাউন্ডার ক্রিকেটারটিকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পাশাপাশি আর কোনও ঘরোয়া ক্রিকেট টুর্নামেন্টে দেখা যাবে না। কিংস্টোনে জামাইকা অ্যান্টি ডোপিং কমিশন (জ্যাডকো) রাসেলকে এই কঠিন শাস্তি প্রদান করেছে। যার নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শুরু হল ২০১৭ সালের ৩১ জানুয়ারি থেকেই।

আন্দ্রে রাসেল নিষিদ্ধ কোনও দ্রব্য সেবন করেছেন কিনা তা যাচাইয়ের জন্য তাঁকে ডোপ টেস্ট দিতে বলেছিল জ্যামাইকা অ্যান্টি-ডোপিং কমিশন। সেই মাফিক তাঁকে ২০১৫ সালের ১লা জানুয়ারিতে ডোপ টেস্টের জন্য ডাকা হয়। কিন্তু তিনি সেখানে উপস্থিত হননি। ফের সেই বছরের ১লা জুলাই  এবং ২৫শে জুলাই ডোপ পরীক্ষা দিতে রাসেলকে ডাকে অ্যান্টি ডোপিং সংস্থা। কিন্তু তিনি তাতেও কর্ণপাত করেননি। ১২ মাসের মধ্যে তিনবার ডোপ পরীক্ষায় অনুপস্থিত থাকলে ধরে নেওয়া হয় ওই অ্যাথলেট ডোপ পরীক্ষায় ব্যর্থ হয়েছেন। সেটার ভিত্তিতে ২০১৬ সালের মার্চে জামাইকা অ্যান্টি-ডোপিং কমিশন আন্দ্রে রাসেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে। আর এবারে ওয়ার্ল্ড অ্যান্টি-ডোপিং এজেন্সির নিয়ম অনুযায়ী ক্যারিবিয়ান এই অলরাউন্ডারের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি হল।

রাসেলের বিরুদ্ধে এ নিষেধাজ্ঞা জারি হওয়ায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের পাশাপাশি বিপাকে পড়তে চলেছে ঘরোয়া টি-২০ লিগের ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলিও। চলতি মাসে শুরু হতে চলা পাকিস্তান সুপার লিগে ইসলামাবাদ ইউনাইটেডের জার্সি গায়ে মাঠে নামার কথা ছিল রাসেলের। এপ্রিলে আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়েও তাঁর খেলার কথা ছিল। তবে নতুন এই নিষেধাজ্ঞার ফলে রাসেল আর সামনের আইপিএল, পিসিএল, বিপিএল সহ বিগ ব্যাশ-এ অংশগ্রহণ করতে পারবেন না। উল্লেখ্য, সব টি-২০ লিগ মিলিয়ে আন্দ্রে রাসেল এপর্যন্ত ২৩২টি টি-২০ ম্যাচে অংশগ্রহণ করেছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *