ভারতের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির দলে সুযোগ না পেয়ে হতাশায় একি বললেন সুরেশ রায়না! 1

চলতি আইপিএলে গুজরাট লায়ন্সের হয়ে ব্যাট হাতে ধারাবাহিকভাবে নজরকাড়া পারফরম্যান্স করে চলেছেন সুরেশ রায়না। এই মুহূর্তে ১২ ম্যাচে ৪৩৪ রান সংগ্রহ করে নিজেকে একটা আলাদা উচ্চতায় তুলে নিয়ে গিয়েছেন তিনি। তাই অনেকে ধরে নিয়েছিলেন, ব্যাট হাতে চূড়ান্ত ফর্মে থাকা গুজরাট লায়ন্সের অধিনায়ক সুরেশ রায়না নিশ্চিতভাবে আসন্ন আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ভারতীয় দলে নিজের জায়গা পাকা করে নেবেন। যদিও সোমবার বিসিসিআই নির্বাচক কমিটির মন্ডলীরা ১৫ সদস্যের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির যে দল ঘোষণা করলেন, সে দলে তাঁরা রাখেননি রায়নাকে। আর সেটা দেখে হতাশ রীতিমতো ভেঙে পড়েছেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের নির্ভরযোগ্য এই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যানটি।

অফ ফর্মের কারণে দীর্ঘ সময় জাতীয় দলের বাইরে ছিলেন রায়না। ২০১৫ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ভারতীয় দলে সুযোগ পেয়েও, পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ব্যাট হাতে সেভাবে নিজের জাত চেনাতে পারেননি তিনি। তার পর থেকে তিনি ফের জাতীয় দলের বাইরে। গত বছরের অক্টোবরে নিউজিল্যান্ড সিরিজে রায়না ফের জাতীয় দলে খেলার জন্য ডাক পান। যদিও শারীরিক অসুস্থতার কারণে সে সিরিজে খেলতে পারেননি তিনি। চলতি বছরের শুরুতে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজে দলে জায়গা পেয়ে দূর্দান্ত পারফরম্যান্স করে উত্তরপ্রদেশের এই বাঁ-হাতি ব্যাটম্যানটি ফর্মে ফেরার ইঙ্গিত দেন। এমনকি চলতি আইপিএলেও রায়নার ব্যাট থেকে ধারাবাহিকভাবে বেরিয়ে আসছে রানের ফুলকি। যার ফলে আসন্ন জুনে ইংল্যান্ডে আয়োজিত হতে চলা চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ভারতীয় দলে রায়নার সুযোগ পাওয়াটা ছিল শুধু সময়ের অপেক্ষা। যদিও ক্রিকেট ঈশ্বরের নিষ্ঠুর পরিহাসে এবারেও তাঁকে রীতিমতো খালি হাতে ফিরতে হল।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ২০১৭: পাঁচজনের ‘ব্যাকআপ স্কোয়াড’ টিম ইন্ডিয়ার, দেখে নিন এই তালিকায় কাদের নাম রয়েছে

সামনের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিকে মাথায় রেখে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচক মন্ডলীরা যে ১৫ সদস্যের দলের নাম ঘোষণা করেছেন, সে দলের মিডল অর্ডারে রয়েছে মহেন্দ্র সিং ধোনি, মনীশ পান্ডে, যুবরাজ সিং এবং কেদার যাদবের মতো ব্যাটসম্যানের নাম। বাকিদের পাশাপাশি নিজের নামটা সেখানে না দেখতে পেয়ে রীতিমতো হতাশ সুরেশ রায়না। এক প্রতিক্রিয়ায় নিজের হতাশা না লুকিয়ে তিনি বলেন, ‘এখন আমার আর কি বলার থাকতে পারে? এটা সত্যি হতাশাজনক ঘটনা আমার কাছে। আমি আশা করেছিলাম, এবারে জাতীয় দলে ডাক পাব।’ একটু থেমে, ‘এবারের আইপিএলে আমি কিন্তু ধারাবাহিকভাবে ভালো পারফরম্যান্স করে গিয়েছি। পাশাপাশি ব্যাট হাতে নিজেকে আবারও প্রমাণ করেছি। এটা আমি প্রত্যাশা না করলেও, আশা করছি মাঠে এর জবাব আমার ব্যাট দেবে। আমার বিশ্বাস, ভারতীয় দলে ফের নিজের জায়গা পাকা করে নিতে পারবো।’

সন্দীপ কি এমন চেয়েছিলেন প্রীতি জিনটার কাছে থেকে, যে তার উত্তরে প্রীতি এই জিনিসটি আবদার করে বসলেন?

গতবারের আইপিএলের নক আউটে খেলা গুজরাট লায়ন্স এবারের প্রতিযোগিতার প্লে অফ ওঠার রাস্তা থেকে ছিটকে গিয়েছে। এ বিষয়ে রায়নার বক্তব্য, ‘এই মুহূর্তে আমার ফোকাশ শুধু আইপিএলে নিজেদের বাকি ম্যাচগুলির ওপর। আমার চেষ্টা থাকবে লিগের অবশিষ্ট ম্যাচে ভালো পারফরম্যান্স করে দলকে জয় উপহার দেওয়া।’ তাঁর আরও সংযোজন, ‘লিগের বাকি ম্যাচগুলিতে জয় তুলে নিতে পারলে আমাদের আত্মবিশ্বাস একলাফে অনেকটা বেড়ে যাবে। যদিও এরই মধ্যে আ্মরা এবারের আইপিএলের প্লে অফে ওঠার রাস্তা থেকে ছিটকে গিয়েছি। তাতে অবশ্য প্রতিযোগিতায় আমাদের ম্যাচ জয়ের ক্ষিদে কোনওভাবে্ই কমে যাবে না। ‘

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *