স্পট-ফিক্সিং, আট বছরের জন্য় নির্বাসিত  এই দক্ষিণ আফ্রিকান খেলোয়াড়! 1

পেস বোলার লোনাবো সোসোবেকে আট বছরের জন্য় নির্বাসিত করল দক্ষীণ আফ্রিকার ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থা ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা (সিএসএ)। অভিযোগ ফিক্সিং-এর। ২০১৫ সালে দক্ষীণ আফ্রিকার ঘরোয়া টি-২০ লিগে ব়্যামস্ল্য়াম টুর্নামেন্টে এই ঘৃণ্য় কাজ করে সে। তাকে যে ফিক্সিং করার জন্য় বুকিরা অফার দিয়েছিল এব্য়াপারে সোসোবে কিছুই জানায়নি সিএসএ-কে। আর এর জেরেই তাকে শাস্তি দিল ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা।Image result for tsotsobe with sa team

জানা গিয়েছে, শুধু ফিক্সিংই নয়, রয়েছে আরও গুরুতর অভিযোগ। বুকিদের কাছ থেকে এর জন্য় উৎকোচও নিয়েছিল সোসোবে। ঘুষ নেওয়া ও ফিক্সিং ব্য়াপারটি বোর্ডের কাছ থেকে পুরোপুরি চেপে যাওয়ায় সিএসএ প্রথম থেকেই কড়া মনোভাব নিয়ে ব্য়াপারটির ফয়সালা করে। গত ২৪ এপ্রিল থেকে নির্বাসনের মেয়াদ শুরু হয়েছে. কারণ, অভিযোগ আসার পরই ওই সময় থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বাইরে সোসোবে। বিষয়টি নিষ্পত্তি হওয়ার জন্য় অপেক্ষা করছিল সিএসএ। গত সোমবার নির্বাসনের সাজা ঘোষণা করা হয়।

Image result for tsotsobe with sa team

দক্ষীণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের মুখ্য় কার্যনির্বাহী আধিকারিক হারুন লোর্গ্য়াট সংবাদ মাধ্য়মকে জানান, সোসোবে তার দোষ স্বীকার করে নিয়েছে। এও জানিয়েছে যে সে দক্ষীণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের দুর্নীতি-দমন আইন লঙ্ঘন করেছে। যদিও সেদিন ওই ম্য়াচে কোনওরকম ফিক্সিং হয়নি শেষ পর্যন্ত। কিন্তু, স্পট-ফিক্সিং হওয়ার পরিকল্পনা ছিল। আর সোসোবে তাতে জড়িত ছিল সক্রীয়ভাবে। এই কারণেই সোসোবেকে দক্ষীণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড নির্বাসিত করল।

Image result for tsotsobe with sa team

শাস্তির পাওয়ার পর সমগ্র ক্রিকেটে বিশ্বের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিয়ে তার বিবৃতিতে সোসোবে জানায়, সারা বিশ্বের ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে আমি ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি আমার এই কাজের জন্য়। ওই সময় আমি আর্থিক সঙ্কটের মধ্য়ে ছিলাম। সেই কারণে ওই ফাঁদে সহজে পা দিয়ে ফেলেছিলাম। এই ভুল কাজের জন্য় আমি লজ্জিত। আমার খেদ ব্য়ক্ত করার কোনও ভাষা নেই। আশা করি, ক্রিকেট বিশ্ব আমায় ক্ষমা প্রার্থনা গ্রহণ করবে এবং আমি কতটা অনুতপ্ত সেটাও বুঝবে।

Image result for tsotsobe with sa team

২০১৬ সালে ম্য়াচ-ফিক্সিংয়ের ঘটনাটি জনসমক্ষে আসে। প্রথম প্রথম সোসোবে বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্য়ে বলে এড়িয়ে এলেও শেষ একবছর পর স্বীকার করে নেনে যে ওই দিন ম্য়াচ-ফিক্সিং না হলেও , ম্য়াচ-ফিক্সিং হওয়ার কথা ছিল। আর এর জন্য় সে অর্থও নিয়েছিল বুকিদের কাছ থেকে। তদন্তে এই কথাও সামনে আসে সেদিন সোসোবে ছাড়াও আরও অনেকে স্পট-ফিক্সিংয়ে জড়িত ছিল।Related image

উল্লেখ্য়, ২০১১ সালে মেলবোর্নে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে এক টি-২০ ম্য়াচে বাঁ-হাতি পেস বোলার সোসোবের অভিষেক হয়। ২০১০ সালে অবশ্য় টেস্টে অভিষেক হয় তার। দক্ষীণ আফ্রিকার হয়ে খেলা শেষ আন্তর্জাতিক ম্য়াচ ২০১৪ সালে টি-২০ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে। সোসোবে কোনও প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে শেষ খেলেছিল ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে। লোনাবো সোসোবে দক্ষীণ আফ্রিকার ষষ্ঠ ক্রিকেটার যাকে ফিক্সিংয়ে জড়িত থাকার দায়ে নির্বাসিত করল ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *