ইনি বললেন বিশ্বকাপ ২০১১র পর ধোনিকে নেতৃত্ব থেকে সরাতে চেয়েছিলেন নির্বাচকরা, আমি বাঁচিয়েছি 1

ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের প্রাক্তন সভাপতি এন শ্রীনিবাসন সম্প্রতিই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়া প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিকে নিয়ে একটি খোলসা করেছেন। শ্রীনিবাসনের কথা অনুযায়ী ২০১১য় তিনি ধোনির অধিনায়কত্ব বাঁচিয়েছিলেন। নির্বাচক কমিটি ধোনির কাছ থেকে নেতৃত্ব ছিনিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, কিন্তু শ্রীনিবাসন বিসিসিআই সভাপতি হিসেবে নিজের অধিকার প্রয়োগ করে এই বিষয়ে হস্তক্ষেপ করেন যারপর ধোনির অধিনায়কত্ব বজায় থাকে।

ধোনিকে নিয়ে শ্রীনিবাসনের বড়ো খোলোসা

ইনি বললেন বিশ্বকাপ ২০১১র পর ধোনিকে নেতৃত্ব থেকে সরাতে চেয়েছিলেন নির্বাচকরা, আমি বাঁচিয়েছি 2

জানিয়ে দিই যে এপ্রিল ২০১১তেই টিম ইন্ডিয়া ধোনির অধিনায়কত্বে ২৮ বছর পর দ্বিতীয়বার বিশ্বকাপ জিতেছিল। তবে বিশ্বকাপ ২০১১ জেতার পর ২০১১০-১২তেই ভারতীয় দল অস্ট্রেলিয়া সফরে গিয়েছিল, যেখানে টিম ইন্ডিয়া অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সেই টেস্ট সিরিজ ০-৪ ফলাফলে হেরেছিল। এরপর তৎকালীন নির্বাচক কমিটি পরবর্তী সিরিজের জন্য মহেন্দ্র সিং ধোনিকে অধিনায়কত্ব থেকে সরানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছিল। নির্বাচক কমিটির এই সিদ্ধান্ত আটকাতে শ্রীনিবাসন গলফ কোর্স থেকে সোজা নির্বাচক কমিটির বৈঠকে পৌঁছে গিয়েছিলেন।

ধোনিকে সরাতে চেয়েছিল নির্বাচক কমিটি

ইনি বললেন বিশ্বকাপ ২০১১র পর ধোনিকে নেতৃত্ব থেকে সরাতে চেয়েছিলেন নির্বাচকরা, আমি বাঁচিয়েছি 3

শ্রীনিবাসন ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে এই ব্যাপারে সম্পূর্ণ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি এই বিষয়েও খোলসা করেছেন যে নির্বাচক কমিটি ধোনকে অবশ্যই সরাতে চেয়েছিল, কিন্তু তারা ততক্ষণে কোনো নতুন অধিনায়কের সন্ধান করতে পারেনি। শ্রীনিবাসন এই বিষয়ে বলেন,

“সেটা ২০১১ সাল ছিল। ভারত বিশ্বকাপ জিতেছিল আর তখন অস্ট্রেলিয়াতে আমরা টেস্টে ভালো প্রদর্শন করিনি। এই কারণে নির্বাচকদের মধ্যে একজন ওকে (ধোনি) ওয়ানডে অধিনায়ক হিসেবে সরাতে চেয়েছিল। ব্যাপার হল যে আপনি ওকে একদিনের অধিনায়ক হিসেবে কীভাবে সরাতে পারেন? ও কিছু মাস আগেই বিশ্বকাপ জিতেছিল। ওরা (নির্বাচকরা) এটাও ভেবেছিল যে ওর জায়গায় কে হবে। একটি আলোচনা হয় আর তারপর ঔপচারিক বৈঠকের আগে আমি বলেছিলাম এটা কোনো ধরণ নয়”।

গলফ কোর্স থেকে সোজা মিটিংয়ে পৌঁছেছিলেন এন শ্রীনিবাসন

ইনি বললেন বিশ্বকাপ ২০১১র পর ধোনিকে নেতৃত্ব থেকে সরাতে চেয়েছিলেন নির্বাচকরা, আমি বাঁচিয়েছি 4

এন শ্রীনিবাসন জানিয়েছেন যে কীভাবে যখন তিনি খবর পান যে নির্বাচকরা ধোনিকে সরানোর ব্যাপারে ভাবছেন, তো তিনি গলফ কোর্স থেকে সোজা মিটিংয়ে যান। এই ব্যাপারে আলোচনা করতে গিয়ে শ্রীনিবাসন বলেন,

“বাস্তবে ওই দিন আমার ছুটি ছিল। আমি গলফ খেলছিলাম। আমি ফেরত আসি। সঞ্জয় জগদালে সেই সময় সচিব ছিলেন। ও উনি আমাকে জানান যে স্যার ওরা (নির্বাচকরা) ধোনিকে অধিনায়ক নির্বাচিত করতে অস্বীকার করছেন। ওরা ওকে (ধোনিকে) দলে নেবেন। তখন আমি গলফ কোর্স থেকে সোজা বৈঠকে যাই। আমি বলি যে এমএস ধোনিই অধিনায়ক হবে। আমি বিসিসিআই সভাপতি হিসেবে নিজের সমস্ত অধিকার প্রয়োগ করি”।

আপনাদের জানিয়ে দিই যে বিসিসিআইয়ের পুরনো সংবিধান অনুযায়ী, সিলেকশন কমিটির দল নির্বাচনের জন্য বোর্ড সভাপতির মঞ্জুরির আবশ্যকতা থাকত। তবে লোঢা কমিটির সুপারিশ চালু হওয়ার পর থেকে নির্বাচনের বিষয়ে শেষ সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার নির্বাচক কমিটির প্রধানের রয়েছে”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *