DCvsSRH: শ্রেয়স আইয়ারের এই ভুল ডোবাল দলকে, হায়দ্রাবাদ জিতল ৮৮ রানে

আইপিএল ২০২০-র ৪৭তম ম্যাচ দিল্লি ক্যাপিটালস আর সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের মধ্যে দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে খেলা হয়েছে। যেখানে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করে হায়দ্রাবাদের দল ২২০ রানের লক্ষ্য ঠিক করে। যার তাড়া করতে নেমে নেমে ম্যাচ হারে দিল্লি ক্যাপিটালস।

টস জিতে দিল্লি ক্যাপিটালস নেয় ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত

DCvsSRH: শ্রেয়স আইয়ারের এই ভুল ডোবাল দলকে, হায়দ্রাবাদ জিতল ৮৮ রানে 1

দিল্লি ক্যাপিটালস আর সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের মধ্যে আইপিএল ২০২০র ৪৭তম ম্যাচে দিল্লির অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ার টসে জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়। দিল্লির অধিনায়ক নিজেদের গত ম্যাচের দলের সঙ্গে মাঠে নামে। তো অন্যদিকে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার দলে তিনটি পরিবর্তন করেন। যেখানে জনি ব্যারেস্টো, প্রিয়ম গর্গ এবং খলিল আহমেদের জায়গায় কেন উইলিয়ামসন, ঋদ্ধিমান সাহা আর নদীমকে প্রথম একাদশে শামিল করা হয়েছে।

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ করল ২১৯ রান

SRHvsDC: সানরাইজার্সের ইনিংসের পর টুইটারে ছাইলেন ঋদ্ধিমান সাহা, এই খেলোয়াড়কে নিয়ে ঠাট্টা

টসে হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে নামা সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের দলের হয়ে ওপেনিং করতে ডেভিড ওয়ার্নারের সঙ্গে ঋদ্ধিমান সাহা মাঠে নামেন। যেখানে ওয়ার্নার ৩৪ বলে ৮টি বাউন্ডারি আর ২টি ছক্কার সাহায্যে ৬৬ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন। কিন্তু ঋদ্ধিমান সাহা দিল্লির বোলারদের মারা বজায় রাখেন আর ৪৫ বলে ১২টি বাউন্ডারি আর ২টি ছক্কা মেরে ৮৭ রানের এক বিস্ফোরক ইনিংস খেলে স্কোরবোর্ড দ্রুতগতিতে এগিয়ে নিয়ে যান। ২০১৭র পর এক দীর্ঘ অন্তরালের পর সাহার ব্যাট থেকে বিস্ফোরক ইনিংস বেরিয়েছে। এরপর মনীষ পাণ্ডে ৩১ বলে অপরাজিত ৪৪ এবং কেন উইলিয়ামসন ১০ বলে অপরাজিত ১১ রান করেন আর হায়দ্রাবাদের দল ২ উইকেট হারিয়ে বোর্ডে ২১৯ রান তোলে। এটি হায়দ্রাবাদের এখনও পর্যন্ত তৃতীয় সবচেয়ে বড়ো স্কোর।

দিল্লি ক্যাপিটালস হারে ৮৮ রানে

DCvsSRH: শ্রেয়স আইয়ারের এই ভুল ডোবাল দলকে, হায়দ্রাবাদ জিতল ৮৮ রানে 2

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের ২২০ রানের দেওয়া লক্ষ্য তাড়া করতে নামা দিল্লি ক্যাপিটালসের শুরুটা ভাবনার অনুসারে হয়নি। দলের ওপেনিং ব্যাটসম্যান শিখ ধবন খাতা না খুলেই ০ রানে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান। এরপর তারা নিয়মিত অন্তরালে উইকেট হারাতে থাকে। এরপর ৬ বলে ৫ রান করে ইনফর্ম ব্যাটসম্যান মার্কস স্টোইনিসও আউট হয়ে যান। শিমরন হেটমেয়ার ১৩ বলে ১৬ রানই করতে পারেন। এরপর ওপেনিং ব্যাটসম্যান অজিঙ্ক রাহানেও ১৯ বলে ২৬ রান করে আউট হয়ে যান। উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান ঋষভ পন্থ ক্রিজে নিজেকে সেট করার চেষ্টা করেন। অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ার ৭, অক্ষর প্যাটেল ১ আর কাগিসো রাবাদা ৩ রান করে আউট হন। এরপর পন্থও বড় স্কোর করতে পারেননি আর ৩৫ বলে ৩৬ রান করে আউট হয়ে যান। এরপর রবিচন্দ্রন অশ্বিন ৫ বলে ৭ আর তুষার দেশপাণ্ডে ২০ রান করে আউট হন। আর এনরিক নোর্তজে ১ রানই করতে পারেন। এর সঙ্গেই দিল্লি ক্যাপিটালসের দল ১৩১ রানে অলআউট হয়ে যায়। আর শ্রেয়স আইয়ারের দলকে ৮৮ রানে লজ্জাজনক হারের মুখে পড়তে হয়।

এই ম্যাচে দিল্লি ক্যাপিটালসের অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ার সঠিক প্রথম একাদশের নির্বাচন করেননি। এর সঙ্গেই তিনি সেট হায়দ্রাবাদের ব্যাটসম্যানদের সামনে বোলারদের সঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারেননি, যে কারণে হায়দ্রাবাদ এত বড়ো স্কোর খাড়া করতে সফল হয় আর দিল্লিকে হারের মুখে পড়তে হয়।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *