আইপিএল স্থগিতের পরে এখনই ফিক্সিং নিয়ে জল্পনা, দিল্লিতে গ্রেফতার দুই জুয়াড়ি 1

 

ভারতের ক্রিকেট নিয়ন্ত্রণ বোর্ডের (বিসিসিআই) দুর্নীতি দমন শাখার (এসিইউ) প্রধান শব্বির হুসেন শেখাদম খান্দওয়ালা আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন যে অরুণ জেটলি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে খেলা ম্যাচে অন্যতম অভিযোগ হল এখানে জুয়াড়ি প্রবেশ করেছিল। সম্প্রতি স্থগিত হওয়া ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) চলাকালীন সুইপ ‘পিচ-ফিডিং’ এর মাধ্যমে সহায়তা করছিল। পিচ-সাইডিংয়ের সাহায্যে বল-বাই-বল ফিক্সিং করা হয়। বুকিরা ম্যাচ টেলিভিশনে প্রচারিত হওয়ার মধ্যবর্তী সময়ের সদ্ব্যবহার করে। মাঠে থাকা ব্যক্তি টেলিভিশনে সম্প্রচারের ঠিক কয়েক মুহুর্তের পরের বলের ফলাফল সম্পর্কে বুকিদের অবহিত করেন।

 

আইপিএল স্থগিতের পরে এখনই ফিক্সিং নিয়ে জল্পনা, দিল্লিতে গ্রেফতার দুই জুয়াড়ি 2

গুজরাট পুলিশের এই প্রাক্তন ডিরেক্টর বুধবার পিটিআইকে বলেছেন, “এক এসিইউ অফিসার এই মামলায় একজনকে গ্রেপ্তার করে বিস্তারিত দিল্লি পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছিলেন। সন্দেহভাজন অপরাধী অবশ্য তার দুটি মোবাইল ফোন রেখে পালাতে সক্ষম হয়। এসিইউ দিল্লি পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেছে। আমরা দিল্লি পুলিশ এর কাছে কৃতজ্ঞ যে এসিইউর তথ্যের ভিত্তিতে তারা অন্য একটি মামলায় কোটলা থেকে দু’জনকে গ্রেপ্তার করেছিল। ২ মে রাজস্থান রয়্যালস এবং সানরাইজার্স হায়দরাবাদের মধ্যে খেলা ম্যাচ চলাকালীন দিল্লি পুলিশ দু’জনকে ভুয়ো পরিচয়পত্র সহ গ্রেপ্তার করেছিল।”

আইপিএল স্থগিতের পরে এখনই ফিক্সিং নিয়ে জল্পনা, দিল্লিতে গ্রেফতার দুই জুয়াড়ি 3

 

হুসেন বলেন, “দু’দিনে এই লোকেরা কোটলা পৌঁছাতে সক্ষম হয়। সেখান থেকে যে পালাতে সক্ষম হয়েছিল সে একজন সুইপার হিসাবে এসেছিল। তিনি যদিও টুর্নামেন্টের জন্য কাজ করছিলেন সে সম্পর্কে আমাদের কাছে সমস্ত বিবরণ রয়েছে। তাঁর আধার কার্ডের বিবরণ দিল্লি পুলিশের হাতে হস্তান্তর করা হয়েছে।”এসিইউ প্রধান বলেন, “আমি আত্মবিশ্বাসী যে দু-একদিনের মধ্যে তিনিও ধরা পড়বেন। এটি একশো পেঁয়াশ হয়ে একশ বা কয়েক হাজার টাকায় কাজ করবে হুসেন হুসেন সম্মতি প্রকাশ করেছেন যে কোভিড -১৯-এর কারণে বায়ো-সেফ ব্যবস্থা গ্রহণের ফলে বাইরের কেউ হোটেলগুলিতে প্রবেশের সুযোগ না থাকায় নিম্ন স্তরের কর্মীরা বৃহত্তর গ্যাং দ্বারা ব্যবহার করতে পারবেন।”

 

Leave a comment

Your email address will not be published.