এমএসকে প্রসাদের ভাগ্যের সিদ্ধান্ত সৌরভ গাঙ্গুলীর হাতে, থাকবেন কি নির্বাচক প্রধান? 1

ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড নিজের নতুন সভাপতি পেয়ে গিয়েছে, যেখানে বুধবার সৌরভ গাঙ্গুলী সভাপতির পদের দায়িত্ব নিয়ে ফেলেছেন। এখন সৌরভ গাঙ্গুলীর হাতে আগামী ১০ মাস পর্যন্ত বিসিসিআইয়ের কাজকর্মের দায়িত্ব থাকবে যেখানে তার দ্বারা বেশকিছু ভালো আর গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।

এমএসকে প্রসাদের ভাগ্যের সিদ্ধান্ত সৌরভ গাঙ্গুলীর হাতে

এমএসকে প্রসাদের ভাগ্যের সিদ্ধান্ত সৌরভ গাঙ্গুলীর হাতে, থাকবেন কি নির্বাচক প্রধান? 2

এইভাবেই ভারতীয় দলের নির্বাচক প্রধান এমএসকে প্রসাদের কার্যকালও পূর্ণ হয়ে গিয়েছে। যারপর এখন বিসিসিআই নতুন নির্বাচক প্রধানের সন্ধানে রয়েছে। বৃহস্পতিবার ভারতের নির্বাচক প্রধান এমএসকে প্রসাদ বাংলাদেশের বিরুদ্ধে আগামী সিরিজ নিয়ে দলের নির্বাচন করেছেন কিন্তু এখন বিসিসিআইয়ের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলীকে ঠিক করতে হবে যে এমএসকে প্রসাদের কার্যকাল বাড়ানো হবে নাকি তাকে সরানো হবে।

এমএসকে প্রসাদের নতুন সংবিধান অনুসারে বাড়ানো যেতে পারে কার্যকাল

এমএসকে প্রসাদের ভাগ্যের সিদ্ধান্ত সৌরভ গাঙ্গুলীর হাতে, থাকবেন কি নির্বাচক প্রধান? 3

এইভাবে এটা তো পরিস্কার যে নির্বাচক প্রধান এমএসকে প্রসাদের ভাগ্যের সিদ্ধান্ত সৌরভ গাঙ্গুলীর হাতে চলে গিয়েছে। বিসিসিআইয়ের নতুন সংবিধান সংশোধনে এখনো এমএসকে প্রসাদের কার্যকাল বাকি রয়েছে মনে করা হচ্ছে। যদিও পুরোনো সংবিধান অনুসারে বিসিসিআইয়ের নির্বাচক প্রধানের কাজ ৪ বছরের ছিল কিন্তু এখন এতে সংশোধন করে একে অধিকতম পাঁচ বছরের করে দেওয়া হয়েছে।

দাদা নেবেন সিদ্ধান্ত কোন নির্বাচকরা থাকবে বজায়

এমএসকে প্রসাদের ভাগ্যের সিদ্ধান্ত সৌরভ গাঙ্গুলীর হাতে, থাকবেন কি নির্বাচক প্রধান? 4

বিসিসিআইয়ের নতুন সংবিধানে অনুচ্ছেদ ২৬ (৩) অনুসারে তো যে কোনো ব্যক্তি যিনি ক্রিকেট কমিটির মোট পাঁচ বছর পর্যন্ত সদস্য থেকেছে তিনি কোনো দ্বিতীয় ক্রিকেট কমিটির সদস্য হওয়ার যোগ্য হবেন না। এছাড়াও যদি বিসিসিআইয়ের এজিএমে নিযুক্তি সদস্যদের কথা বলা হয় তো সেখানে এমএসকে প্রসাদ আর গগণ খোদাকে ২০১৬য় নিযুক্ত করা হয়েছিল সেই আধারে তাদের কার্যকাল নতুন সংবিধান অনুসারে সেপ্টেম্বর ২০২০ শেষ হবে। এরপর অন্য তিন নির্বাচকদের মধ্যে যতীন পরাঞ্জপে, শরনদীপ সিং আর দেবাং গান্ধী ২০১৬য় শুরু করেছিলেন তো তাদের এখনো দু বছরের কার্যকাল বেঁচে আছে।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *