সঞ্জয় মঞ্জরেকরের কমেন্ট্রি প্যানেল থেকে বাদ পড়ার এটা হতে পারে একটা বড়ো কারণ

প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার আর কমেন্টেটর সঞ্জয় মঞ্জরেকরকে কমেন্ট্রি প্যানেল থেকে বিসিসিআই বাদ দিয়েছে। যারপর থেকে এখন সকলেই এই কারণ অনুসন্ধান করছেন। তবে কমেন্ট্রি চলাকালীন তার বয়ান ছাড়াও বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলোর সঙ্গে তার সম্পর্কও এর মধ্যে একটি বড়ো ভূমিকা পালন করেছে।

প্রথম সিরিজ চলাকালীন ঝামেলায় জড়িয়েছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলী আর সঞ্জয় মঞ্জরেকর

সঞ্জয় মঞ্জরেকরের কমেন্ট্রি প্যানেল থেকে বাদ পড়ার এটা হতে পারে একটা বড়ো কারণ 1

কিছু বছর আগে সৌরভ গাঙ্গুলী যখন নিজের প্রথম সফরে গিয়েছিলেন তো সেই সময় মঞ্জরেকর ছিলেন একজন প্রতিষ্ঠিত খেলোয়াড়। যিনি সেই সময় ভালো প্রদর্শন করেছিলেন। কিন্তু ওই সফর চলাকালীন একটি ম্যাচের পর সঞ্জয় মঞ্জরেকর সৌরভ গাঙ্গুলীকে নিজের রুমে ডেকে উল্টোপাল্টা শুনিয়েছিলেন। যে ব্যাপারে কথা বলতে গিয়ে গাঙ্গুলী জানিয়েছিলেন যে,

“একদিন একটি ম্যাচের পর সঞ্জয় মঞ্জরেকর আমাকে নিজের রুমে ডেকেছিলেন। যেখানে তিনি আমাকে বকেন। তিনি আমাকে বলেছিলেন যে আমার ব্যবহার ভালো ছিল না। আমাকে নিজের আচরণে পরিবর্তন করতে হবে। আমি এখন একজন বড়ো স্তরের খেলোয়াড় হয়ে গিয়েছি। আমি সেই সময় তাকে কোনো জবাব দিই নি। ১৫ মিনিট রুমে থাকার পর আমি বাইরে বেরোই আর ভাবতে থাকি যে এসব আমাকে কেনো শোনানো হলো”।

কমেন্ট্রির সময়ও ভালো ছিল না সম্পর্ক

সঞ্জয় মঞ্জরেকরের কমেন্ট্রি প্যানেল থেকে বাদ পড়ার এটা হতে পারে একটা বড়ো কারণ 2

বিশ্বকাপ চলাকালীন যখন দুই খেলোয়াড় একসঙ্গে বসে কমেন্ট্রি করছিলেন সেই সময় সঞ্জয় মঞ্জরেকর একটি বয়ান দিয়েছিলেন যে যখন কমেন্ট্রি বক্সে সৌরভ গাঙ্গুলী উপস্থিত থাকেন তখন অন্যের কথা বলার সুযোগ খুবই কম থাকে। যে ব্যাপারে কিছুদিন পর সৌরভ গাঙ্গুলী টুইটারে একটি টুইট করে লিখেছিলেন,

“ওর টুইটারে করা কমেন্টও ঠিক তেমনই হয়। যেমন খেলার সময় তার ব্যাটিং টেকনিক ছিল। কী হচ্ছে কিছুই জানা ছিল না। হতে পারে যে সকলের মনোযোগ নিজের দিকে করার জন্যই খারাপভাবে বলেছেন”।

তবে এটা পরিস্কার ছিল না যে সৌরভ গাঙ্গুলী সঞ্জয় মঞ্জরেকরের জন্য লিখেছিলেন কি না। তবে দাদার ব্যাপারে তার আগে সঞ্জয়ই বলেছিলেন।

মিটিং চলাকালীনও হয়েছিল ঝামেলা

সঞ্জয় মঞ্জরেকরের কমেন্ট্রি প্যানেল থেকে বাদ পড়ার এটা হতে পারে একটা বড়ো কারণ 3

ইন্ডিয়া টুডের একটি রিপোর্টসের অনুযায়ী বিসিসিআই সভাপতি হওয়ার আগেও সৌরভ গাঙ্গুলী আর সঞ্জয় মঞ্জরেকরের মধ্যে একটি ঝামেলা হয়েছিল। আসলে সঞ্জয় মঞ্জরেকরের ধারনা যে কনফ্লিক্টস অফ ইন্টারেস্টের বিষয়টি সঠিক। অন্যদিকে গাঙ্গুলী সবসময়ই কনফ্লিক্টস অফ ইণ্টারেস্টের বিষয়টির বিরোধিতা করেছেন। এটা নিয়েই বিসিসিআইয়ের একটি বৈঠক চলাকালীন এই দুই তারকার মধ্যে ঝামেলা হয়েছিল। যদি এখন এই তিনটি বিষয়টিকে দেখা যায় তো হতে পারে যে বিসিসিআই সভাপতির সঙ্গে খারাপ সম্পর্কের কারণেও সঞ্জয় মঞ্জরেকরকে নিজের কাজ হারাতে হয়েছে।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *