মহম্মদ কাইফের ছেলে বলেছিলেন শোয়েব আকতারকে মারা সহজ, এখন শোয়েব দিলেন এই জবাব

পাকিস্তানের প্রাক্তন জোরে বোলার আর রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস নামে জনপ্রিয় শোয়েব আকতার নিজের দ্রুতগতির বোলিংয়ের জন্য পরিচিত। শোয়েব আকতারের বোলিংয়ের সামনে বড়ো বড়ো ব্যাটসম্যানরা টিকে থাকতে পারতেন না। কিন্তু ভারতীয় দলের প্রাক্তন খেলোয়াড় মহম্মদ কাইফের ছেলের তা মনে হয় না। তার মনে হয় যে শোয়েব আকতারের জোরে বলে রান করা সহজ কারণ তার বোলিংয়ে গতি রয়েছে।

শোয়েব আকতারের বল মারা সহজ, কারণ বলে বেশি গতি

মহম্মদ  কাইফের ছেলে বলেছিলেন শোয়েব আকতারকে মারা সহজ, এখন শোয়েব দিলেন এই জবাব 1

টিম ইন্ডিয়ার সর্বশ্রেষ্ঠ ফিল্ডারদের মধ্যে একজন মহম্মদ কাইফ নিজের ছেলে কবিরের একটি ভিডিয়ো শেয়ার করে লিখেছেন, “ধন্যবাদ স্টারস্পোর্টস ইন্ডিয়া, শেষমেশ কবির ভারত-পাকিস্তানের ঐতিহাসিক ম্যাচ দেখতে পেয়েছে। কিন্তু জুনিয়র নিজের বাবার দ্বারা বেশি প্রভাবিত নয়। ওর মনে হয় যে শোয়েব আকতারের বলে হিট করা সহজ হবে কারণ ওর বোলিংয়ে গতি রয়েছে। আজকের ছেলে”।

শোয়েব দিলেন এই জবাব

মহম্মদ  কাইফের ছেলে বলেছিলেন শোয়েব আকতারকে মারা সহজ, এখন শোয়েব দিলেন এই জবাব 2

অন্যদিকে পাকিস্তানের প্রাক্তন জোরে বোলার শোয়েব আকতারও কাইফকে জবাব দিতে বেশি দেরী করেননি আর তিনি বড়োই ঠাট্টার ঢঙে কাইফের ছেলের জন্য জবাব লেখেন। শোয়েব আকতার লেখেন, “তাহলে তো মহম্মদ কাইফ ম্যাচ হয়ে যাক কবির আর মিখাইল আলি আকতারের? ও বোলিংয়ের গতি নিয়ে সমস্ত প্রশ্নের জবাব পেয়ে যাবে। হাহাহা ওকে আমার ভালোবাসা দিও”। জানিয়ে দিই যে করোনা ভাইরাসের কারণে এই মুহূর্তে ক্রিকেট সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে। এই অবস্থায় সমর্থকদের জন্য এই মুহূর্তে টিভিতে পুরোনো ম্যাচ দেখানো হচ্ছে। এর মধ্যেই টিভিতে যখন ২০০৩ সালের ভারত পাকিস্তানের ম্যাচ দেখানো হচ্ছিল সেই সময়ই কাইফ আর তার ছেলের মধ্যে এই কথাবার্তা হয়। ২০০৩ এর বিশ্বকাপে ভারত পাকিস্তানকে ৬ উইকেটে হারিয়েছিল। ওই ম্যাচে শোয়েব আকতার মাত্র একটিই উইকেট নিতে পেরেছিলেন।

২০১২র পর দুই দেশের মধ্যে খেলা হয়নি সিরিজ

মহম্মদ  কাইফের ছেলে বলেছিলেন শোয়েব আকতারকে মারা সহজ, এখন শোয়েব দিলেন এই জবাব 3

প্রসঙ্গত ভারত বনাম পাকিস্তানের মধ্যে হতে চলা ম্যাচ নিয়ে ক্রিকেট সমর্থকদের উৎসাহ আলাদাই স্তরে থাকে। কিন্তু দীর্ঘ ৭ বছর ধরে এই দুই দলের মধ্যে কোনো দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলা হয়নি। পাকিস্তান এবং ভারতের বেশকিছু খেলোয়ায়ড় এই বিষয়ে আফসোস প্রকাশ করেছেন। ২০১২য় পাকিস্তান ক্রিকেট দল ৩ ম্যাচের ওয়ানডে আর ২ ম্যাচের টি-২০ সিরিজ খেলতে ভারত এসেছিল। এই সিরিজে ওয়ানডে সিরিজ ভারত ২-১ ফলাফলে হেরেছিল এবং টি-২০ সিরিজ ১-১ ড্র থেকেছিল। পাকিস্থান সীমিত ওভারের সিরিজের জন্য ভারত সফর করেছিল। যদি টেস্টের কথা বলা হয় তো এই দুই চিরপ্রতিদ্বন্ধী ২০০৭ এ শেষবার ভারত সফরে টেস্ট সিরিজ খেলছিল। এরপর ২০০৮এ মুম্বাইতে হওয়া সন্ত্রাসবাদী হামলার পর থেকেই দুই দলে একে অপরের বিরুদ্ধে কোনো টেস্ট ম্যাচ খেলেছি। শেষবার দুই দলে অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল, যেখানে ভারতের তরুণ দল নিজেদের চিরপ্রতিদ্বন্ধী পাকিস্তানকে ১০ উইকেটে হারিয়ে দেয়।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *