অস্ট্রেলিয়ার এই তারকা পেসারকে আর দেখা যাবেনা মাঠে, কেন জেনে নিন 1
শন টেইট

অবসর ঘোষণা করল বিশ্বের দ্বিতীয় দ্রুততম বোলার শন টেইট। অস্ট্রেলিয়ান এই তারকা বোলার সোমবার আনুষ্ঠানিকভাবে নিজের অবসর নেওয়ার কথা ঘোষণা করেন। সোয়েব আখতারের পর তিনিই একমাত্র বোলার যে, ঘন্টায় ১৬০ কিলোমিটারের বেশি বেগে বল করে রেকর্ড করেছিলেন।

http://bengali.sportzwiki.com/829/top-10-fastest-bowlers-international-cricket-history/10/

৩৪ বছর বয়সী এই বোলার বেশিরভাগ সময়ে চোটে জর্জড়িত থাকায় অস্ট্রেলিয়ার হয়ে বেশি ক্রিকেট খেলতে পারেননি। ২০০৫ সালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে অ্যাসেজ সিরিজে অভিষেক হওয়ার পর টেইট বারো বছরে মাত্র তিনটি টেস্ট তিনটি টেস্ট, ৩৫টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ ও ২১ টি টি টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন। তবে এই কম সংখ্যক ম্যাচ খেললেও টেইট বিশেষ ছাপ ফেলেছিলেন অস্ট্রেলিয়ান বোলিং বিভাগে। তিনটি বিভাগের ক্রিকেট খেলে টেইটের সংগ্রহ মোট ৯৫ টি উইকেট। নিজের অবসর ঘোষণা করতে গিয়ে টেইট বলেন, “আমি আরও বছর দুয়েক ক্রিকেট খেলতে চেয়েছিলাম। তবে এখনকার তরুণ ক্রিকেটারদের সঙ্গে পাল্লা দেওয়াটাও বেশ কঠিন কাজ। বেশিরভাগ সময়ই আমাকে চোট ভুগিয়েছে। এখনও কনুইয়ের জন্য সমস্যায় ভুগি। তাই এই সিদ্ধান্ত নিয়েই নিলাম।”

খুব বেশি ক্রিকেট না খেললেও এতদিনের ক্রিকেটীয় জীবনে টেইটের উপলব্ধি, “আমার ৩৪ বছর বয়স হয়ে গিয়েছে। এখন বল করতে গেলে বুঝতে পারি নিজের সেরাটা আমি দিতে পারছি না। বলের গতিও অনেক কমে গিয়েছে। নিজের সম্পূর্ণটা যখন দিতে পারছিনা, তখন এটাই শ্রেষ্ঠ সময় নিজেকে সব কিছুর থেকে গুটিয়ে নেওয়া।”

নিজের অবসর ঘোষণা করতে গিয়ে টেইট বেশ আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন। তিনি বলেন, “এই খবরটা ঘোষণা করতে গিয়ে আমার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের অভিষেকের দিনটার কথা মনে পড়ছে। মনে হচ্ছে এই তো গতকালই গেছে সেই দিনটা।”

২০০৭ সালের অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ জেতার পিছনে এক মূল কান্ডারী ছিলেন শন টেইট। ২০১১ সালে সেমিফাইনালে ভারতের কাছে হেরে যাওয়ার পরই তিনি একদিনের ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণা করেছিলেন। এবার সমস্ত রকম ক্রিকেট থেকেই অবসর নিলেন তিনি।

ভারতীয় নাগরিকত্ব পেলেন অস্ট্রেলিয়ান ফাস্ট বোলার শন টেইট

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *