নিজের দেশের সমর্থকের বিদ্রুপের স্বীকার হয়েছিলেন সরফরাজ, এইবার পাশে পেলেন ভারতকে 1

ভারতের বিপক্ষে হারের পর থেকেই খবরের শিরোনামে রয়েছেন পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ।একদিকে হতে হচ্ছে সমালোচিত আবার একদিকে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে হয়েছেন ঠাট্টার পাত্র।তবে এইবার যা হলো তা বাকী ঘটনা গুলো কে ছাপিয়ে গেলো, এইবার সরাসরি সরফরাজকে সামনে পেয়ে তাকে কটু কথা বলতে ছাড়লেন না তার দেশের এক ক্রিকেট ভক্ত।

নিজের ছেলের সামনেই দেশের এক ক্রিকেট ভক্তের কাছে নিগৃহীত হতে হলো সরফরাজকে। ইংল্যান্ডের একটি মলে জনসমক্ষে এমনটা ঘটেছে সরফরাজের সাথে।ছেলেকে নিয়ে কেনাকাটা করতে গেছিলেন সরফরাজ, সেখানে বিদ্রুপের মুখে পড়েন তিনি।শুধু তাই নয়, তাকে ” শুয়োর ” বলতেই ছাড়েননি তিনি।

একদিকে যেমন দেশের ক্রিকেট ভক্তদের নিগ্রহের মুখে পড়তে হয়েছে সরফরাজকে, ঠিক তখন অন‍্যদিকে এইসময় ভারতকে পাশে ফেলেন সরফরাজ।তার সমর্থনে একের পর এক টুইট করা যায় লক্ষ্য।সকলেই ওই পাক ক্রিকেট সমর্থকের তীব্র সমালোচনা করেছেন । একসময় বিষয়টি এমন আকার ধারন করে যে সেই অভিযুক্ত পাক ক্রিকেট সমর্থক ক্ষমা চেয়ে নেন সরফরাজ এবং তার দেশের মানুষের কাছে।

প্রসঙ্গত, এবারের বিশ্বকাপে এক অদ্ভুত চড়াই – উৎরাই এর মধ্যে দিয়ে এগোচ্ছে পাকিস্তান , কখনো বিধ্বস্ত হচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে, আবার কখনও চমক দেখাচ্ছে ইংল‍্যান্ডকে হারিয়ে।এরই মাঝে বিশ্বকাপের মন্চে ফের আরেকবার হেরে গলো সরফরাজরা ভারতের কাছে।এ নিয়ে বিশ্বকাপের মন্চে ভারত- পাকিস্তান ম‍্যাচের সামগ্রিক ফলাফল দাড়ালো ৭-০ ।সেইদিন ম‍্যানচেস্টারে ভারতের জয়ের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন রোহিত শর্মা।শুরু থেকে পাক বোলারদের বেধড়ক পেটানো শুরু করেন তিনি।খেলেন ১১৩ বলে ১৪০ রানের ঝোড়ো ইনিংস।প্রসঙ্গত , এইটাই রোহিতের কেরিয়ারে ২৪ তম একদিবসীয় শতরান।এদিন রোহিত কে ওপেন করতে নেমে যোগ্য সঙ্গত দিয়েছিলেন কে এল রাহুল।চোটের জন্য শিখর ধাওয়ান দলের বাইরে যাওয়ায় এই ম‍্যাচে ওপেনে সুযোগ পান রাহুল।এবং সুযোগ পেয়েই নিজেকে প্রমাণ করলেন রাহুল,খেলেন ৫৭ রানের ইনিংস।রাহুল এবং রোহিত প্রথম উইকেটে যোগ করেছিলেন ১৩৬ ।এছাড়াও ৬৫ বলে ৭৭ করেন বিরাট।এর জেরে ৫০ ওভার শেষে ভারতের স্কোর দাড়ায় ৫ উইকেটের বিনিময়ে ৩৩৬ ।সেই লক্ষ্যমাত্রা চেজ করতে নেমে ৪০ ওভারে ২১২ রান করেন তোলে পাক দল, এবং শেষে ৮৯ রানে পরাজিত হয় ভারতের কাছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *