শচীন তেন্ডুলকরের খোলসা, হাতজোড় করে ওপেনিংয়ের জন্য অনুনয় বিনয় করার পর পেয়েছিলেন প্রথম সুযোগ

শচীন তেন্ডুলকর, এই নাম শুনতেই সবার ক্রিকেটের ভগবানের কথা মনে আসে। তার দুর্দান্ত শটস, অসাধারণ ইনিংস মনে পড়ে, কিন্তু আপনি কি এটা ভাবতে পারেন যে এক সময় এই ক্রিকেটের ভগবানকে ওপেনিং করার জন্য হাতজোড় করে অনুনয় বিনয় করতে হয়েছিল। আপনি এ কথা জেনে অবাক হয়ে যাবেন, কিন্তু এই কথার পুষ্টি স্বয়ং শচীন করেছেন। কেরিয়ারের শুরুতে শচীনকে মিডল অর্ডারে খেলানো হয়েছিল, কিন্তু তিনি সেখানে বেশি সফলতা পাননি।

প্রথমবার ওপেনিং করতেই জিতেছিলেন সকলের হৃদয়

শচীন তেন্ডুলকরের খোলসা, হাতজোড় করে ওপেনিংয়ের জন্য অনুনয় বিনয় করার পর পেয়েছিলেন প্রথম সুযোগ 1

শচীন তেন্ডুলকরের মত যে নিজের প্রথম হারে ঘাবড়িও না বুক চিতিয়ে মুখোমুখি হও, ১৯৮৪র সেপ্টেম্বরে প্রথমবার তাকে ভারতীয় দলে ওপেনিং ব্যাটসম্যান হিসেবে নামানো হয়েছিল, এই ম্যাচে তিনি ৪৯ বলে দুর্দান্ত ইনিংস খেলে ৮২ রান করেছিলেন। যারপর তিনি সবার হৃদয়ে নিজের জায়গা করে নিয়েছিলেন। শচীন বলেন যে,

“প্রথম ম্যাচে (অকল্যান্ডে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে) আমি ৪৯ অলে ৮২ রান করেছি এই কারণে দ্বিতীয়বার সুযোগ দেওয়ার ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করার প্রয়োজন পড়েনি। ওরা আমাকে দিয়ে ওপেনিং করাতে প্রস্তুত ছিলেন। আমি এটা বলতে চাই যে ব্যর্থ হতে ঘাবড়িও না”।

অনুনয় করার পর শচীন তেন্ডুলকর পেয়েছেন ওপেনার হওয়ার সুযোগ

শচীন তেন্ডুলকরের খোলসা, হাতজোড় করে ওপেনিংয়ের জন্য অনুনয় বিনয় করার পর পেয়েছিলেন প্রথম সুযোগ 2

এই সব কথা শচীন তেন্ডুলকর একটি চ্যাট শোয়ে শেয়ার করেছেন যে তার মধ্যেই তিনি ওপেনিং করার জন্য নিজের পুরো কাহিনি শুনিয়েছেন। শচীন বলেছেন যে,

“১৯৯৪তে যখন আমি ভারতের হয়ে ব্যাটিং শুরু করেছিলাম তখন সমস্ত দলের রণনীতি উইকেট বাঁচানোর ছিল। আমি আলাদাভাবে ভাবার চেষ্টা করেছি। আমি ভেবেছি আমি উপরে গিয়ে বিপক্ষ দলের বোলারদের উপর হামলা করি। কিন্তু আমাকে এই সুযোগের জন্য অনুনয় বিনয় করতে হয়। আমি বলেছিলাম যদি আমি ব্যর্থ হই তো দ্বিতীয়বার আপনাদের কাছে যাব না”।

এমনটা নয় যে ওপেনিং ব্যাটসম্যান হিসেবে তিনি বেশ কিছু উচ্চতা হাসিল করেননি, একজন দুর্দান্ত ওপেনিং ব্যাটসম্যানের পর তিনি নিজের আগামী পাঁচ ইনিংসে লাগাতার নিজের ব্যাট হাতে কামাল দেখিয়েছেন। আর নিজের জায়গা পাকা করে নিয়েছিলেন, তিনি সেই পাঁচ ইনিংসে ৮২, ৬৩, ৪০, ৬৩ আর ৭৩ রান করেছিলেন। শচীন তেন্ডুলকর যখন অবসর নিয়েছিলেন তখন তার নামে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০০ সেঞ্চুরি ছিল।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *