বাহবা দিলেন অধিনায়ক, হার্দিক-রানাকে এগিয়ে চলার বার্তাও দিলেন তিনি 1
রোহিত শর্মা

শেষ তিন ওভারে বাকি ৪৯ রান। রোহিত শর্মা, কাইরন পোলার্ড ততক্ষণে প্যাভিলিয়নে ফিরে গিয়েছে। কলকাতা নাইট রাইডার্সের বোলিংয়ের সামনে জয় পাওয়াটা কার্যত অসম্ভব ছিল। মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের ড্রেসিং রুমে বসে তখন ক্রিকেটের ভগবান শচীন তেন্ডুলকর। তাঁর মুখও ছোট। কোথাও যেন একটা মিরাকেল হওয়ার আশা দেখছিল মুম্বই। মাঠ ভর্তি সমর্থক, শচীনের মত কিংবদন্তী একজন ক্রিকেটারের সামনে খেলছেন তখন নীতিশ রানা। নায়ক হওয়ার সমস্ত রসদ তৈরি ছিল তাঁর জন্য। দরকার শুধু একবার আগুন জ্বালানোর।

নিজেদের পরাজয়ের জন্য কেকেআর অধিনায়ক দুষলেন এই তারকা খেলোয়াড়কে!


বল হাতে রান আপ শুরু করেছে বোলার। এদিকে জীবনের সেরা ইনিংস খেলতে তৈরি রানা। অগণিত মুম্বই সমর্থকের তখন একটাই ভরসা তিনি। এই ওভারে বারে বারে মাঠের বাইরে বল ফেলে ১৯ রান এল। সঙ্গে এল জেতার একটা ছোট্ট আশা। পরের ওভারে অবশ্য রানা আউট হয়ে গেলে দায়িত্বভার গ্রহণ করলেন হার্দিক পাণ্ড্যিয়া। শেষ ওভারে তাঁর ক্যাচ না ফেললে ম্যাচটা কেকেআরেরই থেকে যেতে পারত। কিন্তু শেষ হাসিটা রোহিত শর্মারাই হাসল।

খারাপ আম্পায়ারিংয়ের ধারা অব্যাহত আইপিএলে, রোহিত-বাটলার হলেন শিকার


এমন একটা রুদ্ধশ্বাস ম্যাচ জেতার পর তাই অধিনায়ক রোহিত বললেন, মুম্বই এমন জয়ের জন্যই বিখ্যাত। তিনি বলেন, ‘জেতাটা আমাদের জন্য খুবই দরকার ছিল। কিন্তু এই ম্যাচে জেতাটা খুবই কঠিন ছিল। তবে এই ধরনের জয়ের জন্যই মুম্বইকে চেনে সবাই।’ এই দারুণ জয়ের ফলে মুম্বই পয়েন্ট টেবিলে তাদের খাতা খুলেছে। আর তার পুরো কৃ্তিত্বটাই দুই তরুণ ক্রিকেটারকে দিলেন অধিনায়ক। বলেন, ‘ব্যাটিংয়ের জন্য এটা একটা ভাল উইকেট ছিল। তবুও শেষের দিকে ম্যাচ অনেক কঠিন জায়গায় এসে দাড়িয়েছিল। ওই অবস্থায় হার্দিক ও রানা নিজেদের স্নায়ুচাপ সামলে সাধারণ খেলাটা খেলতে পেরেছে। এটাই অনেক বড় ব্যাপার।’
আইপিএলে এখও পর্যন্ত মাত্র দু’টো ম্যাচ খেলেছে মুম্বই। এখনও অনেকটা পথ চলা বাকি। নিঃসন্দেহে এটা একটা বড় জয়। দুজন ঘরোয়া ক্রিকেটারও দারুণ ফর্মে। কিন্তু তবুওন এই খুসির জোয়ারে গা না ভাষিয়ে, আগামী চ্যালেঞ্জগুলির জন্য প্রস্তুত হতে চাইছে রোহিত। তাই তিনি বলেন, ‘আমাদের সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। ওরা দুজন খুবই ভাল ব্যাট করেছে। তবুও আমি বলব এখনই সব কিছু হয়ে যায়নি। এটা সবে মাত্র দ্বিতীয় খেলা ছিল। আমাদের আরও অনেকটা পথ যেতে হবে।’

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *