রোহিত শর্মা এই ৪টি অন্ধবিশ্বাসের কারণে হয়েছেন হিটম্যান, এটাই তার দীর্ঘ ছক্কা মারার রহস্য

ক্রিকেট খেলাটাও অন্ধবিশ্বাসের বাইরে নয়। এই খেলা বহু বছর ধরে কোনো না কোনো খেলোয়াড়কে অন্ধবিশ্বাসী হতে দেখা যায়। নিজের মেহনত, প্রতিভার সঙ্গেই ক্রিকেটাদের মধ্যে এমন বেশকিছু তারকা রয়েছেন যারা কোনো না কোনো ভাবে নিজেদের অন্ধবিশ্বাসের উপর ভরসা রাখেন আর তার উপর ভরসা করেই মাঠে নেমে সফলতা পাওয়ার চেষ্টাও করেন।

রোহিত শর্মা করেন এই ৪টি অন্ধবিশ্বাসের উপর ভরসা

রোহিত শর্মা এই ৪টি অন্ধবিশ্বাসের কারণে হয়েছেন হিটম্যান, এটাই তার দীর্ঘ ছক্কা মারার রহস্য 1

অন্ধবিশ্বাসের সোজা মানে হলো টোটকা। এমন বেশকিছু খেলোয়াড়ও রয়েছেন যারা যতই মহানতার শিখরে পৌঁছন কিন্তু অন্ধবিশ্বাসে ভরসা রাখেন। এমনই অন্ধবিশ্বাস ভারতীয় দলের ওপেনিং ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মার মধ্যেও দেখা যায়। রোহিত শর্মা একটা বা দুটো নয় বরং চার চারটি অন্ধবিশ্বাস নিয়ে মাঠে নামেন আর তাকে আপন করেই ব্যাটিং করেন। তো আসুন আপনাদের জানানো যাক হিটম্যান রোহিত শর্মা দ্বারা বিশ্বাস করা চারটি অন্ধবিশ্বাস।

প্রথম অন্ধবিশ্বাস: রোহিত শর্মা নিজের চারটি অন্ধবিশ্বাসের উপর ভরসা রাখেন যার মধ্যে প্রথম অন্ধবিশ্বাস দিনের শুরুতেই কোনোভাবে কফির গ্লাস নেওয়া। কফি খাওয়া স্বয়ং রোহিত শর্মা নিজের জন্য লাকি মনে করেন হয় আর তিনি এমনটা করা কখনো ভোলেন না।

রোহিত শর্মা এই ৪টি অন্ধবিশ্বাসের কারণে হয়েছেন হিটম্যান, এটাই তার দীর্ঘ ছক্কা মারার রহস্য 2

দ্বিতীয় অন্ধবিশ্বাস: ভারতীয় ক্রিকেট দলের ওপেনিং ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মা এক দারুণ প্রতিভার অধিকারী কিন্তু ম্যাচের আগে আর টিম মিটিংয়ের আগে তিনি নিজের স্ত্রী রিতিকা সজদেহকে অবশ্যই ফোন কল করেন। রিতিকাকে ফোন করা রোহিত শর্মা নিজের জন্য সৌভাগ্যশালী মনে করেন।

রোহিত শর্মা এই ৪টি অন্ধবিশ্বাসের কারণে হয়েছেন হিটম্যান, এটাই তার দীর্ঘ ছক্কা মারার রহস্য 3

তৃতীয় অন্ধবিশ্বাস: রোহিত শর্মার জন্য তার স্ত্রীও অন্ধবিশ্বাসী। তার স্ত্রী রিতিকা প্রায়ই মাঠে নিজের স্বামীকে উৎসাহিত করতে পৌঁছন। বেশ কয়েকবার তাকে দেখা গিয়েছে যে তিনি নিজের দুই হাতের আঙুলকে ক্রস করে থাকেন। এবং সেই ক্রস করা আঙুল তিনি তখনই খোলেন যখন রোহিত শর্মা নিজের সেঞ্চুরি পূর্ণ করে নেন।

রোহিত শর্মা এই ৪টি অন্ধবিশ্বাসের কারণে হয়েছেন হিটম্যান, এটাই তার দীর্ঘ ছক্কা মারার রহস্য 4

চতুর্থ অন্ধবিশ্বাস: রোহিত শর্মা যখনই খেলার জন্য মাঠে নামেন তো তিনি নিজের ডান পা আগে মাটিতে ফেলেন। এ ছাড়াও রোহিত শর্মা মাঠে সেই জায়গা খোঁজেন যেখানটা দেখতে তার ভালো লাগে। রোহিত শর্মার উপর চাপ থাকলে তিনি সেই জায়গাটি লাগাতার দেখতে থাকেন যা তার মনকে শান্তি দেয়। আর চাপ কম অনুভব করেন।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *