ভিডিয়ো: রোহিত শর্মা নিলেন মার্টিন গুপ্তিলের অবিশ্বসনীয় ক্যাচ, ফিটনেস নিয়ে সমালোচকদের দিলেন কড়া জবাব

ভারতীয় দলের অন্যতম সেরা ওপেনার রোহিত শর্মা ভারত নিউজিল্যাণ্ডের মধ্যে চলা টি-২০ সিরিএজ্র প্রথম ম্যাচে বাউন্ডারি লাইনের ধারে অবিশ্বসনীয় ক্যাচ নিয়ে ভারতকে প্রথম সফলতা এনে দেন। ভারতীয় সহঅধিনায়ক রোহিত শর্মা এই ক্যাচ তখন নেন যখন ভারতীয় ক্রিকেট দলের উইকেটের ভীষণই প্রয়োজন ছিল। নিউজিল্যান্ড সেই সময় কোনো উইকেট না হারিয়ে ৮০ রান করে ফেলেছিল।

রোহিত শর্মা নিলেন অবিশ্বসনীয় ক্যাচ

ভিডিয়ো: রোহিত শর্মা নিলেন মার্টিন গুপ্তিলের অবিশ্বসনীয় ক্যাচ, ফিটনেস নিয়ে সমালোচকদের দিলেন কড়া জবাব 1

ভারত প্রথম সফলতা তখন পায় যখন শিভম দুবের বাউন্সারে মার্টিন গুপ্তিল একটি জোরদার পুল শট মারেন, সকলের মনে হয়েছিল এটি ওভার বাউন্ডারি হয়ে যাবে, কিন্তু রোহিত শর্মা বাউন্ডারি লাইনে একটি অবিশ্বসনীয় ক্যাচ নিয়ে গুপ্তিলকে ৩০ রানের ব্যক্তিগত স্কোরে প্যাভিলিয়নে ফেরত পাঠান। নিউজিল্যান্ডের ৭.৫ ওভারে ৮০ রানে প্রথম উইকেট পড়ে।

নিউজিল্যান্ড করে ২০৩ রান

ভিডিয়ো: রোহিত শর্মা নিলেন মার্টিন গুপ্তিলের অবিশ্বসনীয় ক্যাচ, ফিটনেস নিয়ে সমালোচকদের দিলেন কড়া জবাব 2

এই ম্যাচের টস ভারতীয় দল জেতে আর প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নেয়। প্রথমে ব্যাট করতে নামা নিউজিল্যান্ডের শুরুটা দুর্দান্ত হয়। দলকে মার্টিন গুপ্তিল আর কলিন মুনরো ৭.৫ ওভারে ৮০ রানের এক দুর্দান্ত শুরু এনে দেন। মার্টিন গুপ্তিলের আউট হওয়ার পর অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন আর কলিন মুনরো দ্বিতীয় উইকেটের হয়ে ৩৬ রান যোগ করেন। চতুর্থ উইকেটের হয়েও রস টেলর আর কেন উইলিয়ামসন ৬১ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। ব্যাটসম্যানদের ভালো প্রদর্শনের সৌজন্যে নিউজিল্যাণ্ডের দল নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২০৩ রানের এক বিশাল স্কোর খাড়া করতে সফল হয়। নিউজিল্যান্ডের হয়ে কলিন মুনরো সবচেয়ে বেশি ৪২ বলে ৫৯ রানের ইনিংস খেলেন। অন্যদিকে দলের হয়ে রস টেলর ২৭ বলে অপরাজিত ৫৪ রানের ইনিংস খেলেন। অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনও ২৬ বলে ৫১ রানের এক বিস্ফোরক ইনিংস খেলেন।

ভারত জেতে ৬ উইকেটে

ভিডিয়ো: রোহিত শর্মা নিলেন মার্টিন গুপ্তিলের অবিশ্বসনীয় ক্যাচ, ফিটনেস নিয়ে সমালোচকদের দিলেন কড়া জবাব 3

জবাবে লক্ষ্য তাড়া করতে নামা ভারতীয় দলের শুরুটা খারাপ হয়। ওপেনার রোহিত শর্মা (৭ রান) দলের মাত্র ১৬ রানের মাথায় আউট হয়ে যান। দ্বিতীয় উইকেটের হয়ে অধিনায়ক বিরাট কোহলি আর কেএল রাহুল ৯৯ রানের এক দুর্দান্ত পার্টনারশিপ গড়েন। কিন্তু এই পার্টনারশিপ ভাঙার পর ভারতীয় দলের ইনিংস নড়বড়ে হতে শুরু করে আর ১৪২ রানের স্কোর পর্যন্ত ভারত নিজেদের চার উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল। পঞ্চম উইকেটের হয়ে শ্রেয়স আইয়ার আর মনীষ পান্ডে ৬২ রানের অপরাজিত পার্টনারশিপ গড়েন আর ভারতীয় দলকে জয় এনে দেন। ভারতের হয়ে ২৭ বলে ৫৬ রানের ইনিংস ওপেনার কেএল রাহুল খেলেন। অন্যদিকে দলের হয়ে ৩২ বলে ৪৫ রানের যোগদান অধিনায়ক বিরাট কোহলি দেন। এছাড়াও শ্রেয়স আইয়ারও ২৯ বলে ৫৮ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন।

এখানে দেখুন ভিডিয়ো:

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *