ভারতের সাফল্যের রহস্য কি তা ফাস করলেন রোহিত শর্মা! 1

ভারতের সাফল্যের রহস্য কি তা ফাস করলেন রোহিত শর্মা! 2

‘১৫ বছর আগে অস্ট্রেলিয়াকে যেমন খেলতে দেখতাম, এখনকার ভারত ঠিক তেমনটাই খেলছে।’— কথাগুলো বলেছেন ভারতীয় ক্রিকেট বিশ্লেষক রবি শাস্ত্রী। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে হারার পর যেন জয়ের রথ থামছে ই না ভারতে। হোক সেটা ক্যারিবিয়ান দ্বীপে কিংবা উপমহাদেশের দ্বীপ রাষ্ট্র শ্রীলঙ্কা অথবা নিজেদের ঘরে মাঠে ; সর্বত্র ই অজয়ে ‘টিম ইন্ডিয়া’। পাঁচ ম্যাচ সিরিজের অস্ট্রেলিয়া কে ৪-১ ব্যবধানে সিরিজ হারিয়ে রবি শাস্ত্রীর সেই তুলনটা কেই যেন আরো বাস্তব করল ভারত। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে এই সিরিজ জয় একদিনের ক্রিকেটে ভারতের চলমান আধিপত্য বিস্তারের একটি অংশ। এ বছরের শুরুতে ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এই ভারত কে দেখছে ক্রিকেট বিশ্ব। অস্ট্রেলিয়াকে সিরিজের প্রথম তিন ম্যাচে ই হারিয়ে আইসিসির ওয়ানডে ক্রিকেটের পয়েন্ট তালিকায় দক্ষিণ আফ্রিকা কে সরিয়ে চলে এসেছে এক নাম্বারেও। শ্রীলঙ্কায় শ্রীলঙ্কাকে ৫-০ তে ধোবল ধোলাইয়ের আগে ৩-১ ব্যবধানে ওয়েস্ট উইন্ডিজের মাটি ক্যারিবিয়ানদেরও হারিয়েছে ভারত। চতুর্থ ওয়ানডে হারার আগে ভারত জয়ী ছিল টানা নয় ওয়ানডেতে।

চতুর্থ ম্যাচে হারার কারনে নামতে হয়েছিল আইসিসির পয়েন্ট তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে,কিন্তু আবার ৫ম ও শেষ ম্যাচেও জয়ী হয়ে স্বাগতিক ভারত আবারো পৌছে যায় আইসিসির পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে। শেষ ম্যাচে নাগপুরে ভারতের বিপক্ষে আগে ব্যাট করে সফরকারী অস্ট্রেলিয়া। এদিন টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় অস্ট্রেলিয়া। বেঙ্গালুরু ম্যাচে দলে সুযোগ পেয়ে কার্যকরী পারফরম্যান্স করতে পারেননি উমেশ যাদব ও মহম্মদ শামি। এদিন অধিনায়ক বিরাট কোহলি তাই এই সিরিজের পরীক্ষিত পেস বোলিং জুটিকে ফিরিয়ে আনেন। ভুবনেশ্বর কুমার ও জসপ্রীত বুমরাহ ভারতীয় বোলিং আক্রমনের দায়িত্ব সামলান। ওয়ার্নার অর্ধশতরান করলেও এদিন অ্যারন ফিঞ্চকে বেশি বাড়তে দেননি ভারতীয় বোলাররা। অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ বড় কিছু করতে পারেননি, কেদার যাদব তার উইকেটটি তুলে নেন। হেড ও স্টোনিস ৪২ ও ৪৬ রান করেন। তবে এদিন নিয়মিত ব্যবধানে উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া। ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৪২ রান করে তারা। ভারতের হয়ে সফলতম বোলার অক্ষর প্যাটেল ৩ উইকেট নেন। এদিকে রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই দারুণ স্বচ্ছন্দ্য ছিল ভারতীয় দল। ওপেনিং জুটিতেই উঠে যায় ১২৪ রান। রাহানে ৬১ করে আউট হন।

তবে দুরন্ত ফর্মে থাকা রোহিত শর্মা কোনও ভুল করেননি। ১০৯ বলে ১২৫ রান করেন তিনি। তাঁর এদিনের ইনিংস ৫ টি ছয় ও ১১টি চার দিয়ে সাজানো ছিল। আন্তর্জাতিক কেরিয়ারে একদিনের ম্যাচে নিজের ১৪তম শতরান পূর্ণ করে নিলেন তিনি। এরপর বিরাট কোহলি ৩৯ রানে আউট হয়ে গেলেও কোনও অসুবিধা হয়নি। ৪২.৫ ওভারে ৭ উইকেটে ম্যাচ জিতে যায় টিম ইন্ডিয়া। এদিকে এক টুইটে রোহিত শর্মা ভারতে এই সাফল্যের রহস্য হিসেবে লিখেছেন, “প্রতি ম্যাচ আমরা মাঠে জয় করার আগে আমাদের চিন্তায় জয় করেছি। এটাই এ দলের বড় যোগ্যতা।”

 

Nazmus Sajid

Sports Fanatic!

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *