রিকি পন্টিং মাঙ্কিগেট কান্ড নিয়ে এখন করলেন খোলসা, শচীনকে বলা হয়েছিল মিথ্যেবাদী 1

ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে সফল অধিনায়কদের কথা বলা হয়ে অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক রিকি পন্টিং সবচেয়ে সফল অধিনায়কদের মধ্যে একজন থেকেছেন। রিকি পন্টিংয়ের নেতৃত্বের ক্ষমতা পুরো ক্রিকেট জগত দেখেছে এবং তিনি ভীষণই ভালো অধিনায়ক প্রমানিত হয়েছেন। রিকি পন্টিংয়ের নাম মহান খেলোয়াড়দের মধ্যে নেওয়া হয় তো সেই সঙ্গে কিংবদন্তী অধিনায়কদের সঙ্গেও তার নাম দেওয়া হয়।

রিকি পন্টিংয়ের নেতৃত্বে এই একটা মুহূর্ত থেকেছে সবচেয়ে খারাপ

রিকি পন্টিং মাঙ্কিগেট কান্ড নিয়ে এখন করলেন খোলসা, শচীনকে বলা হয়েছিল মিথ্যেবাদী 2

রিকি পন্টিং ক্রিকেট জগতে নিজের অধিনায়কত্ব আর ব্যাটিংয়ের কারণে আলাদাই স্তরে থেকেছেন আর তাকে সর্বকালীন শ্রেষ্ঠ ব্যাটসম্যান বা অধিনায়ক বলা হলে তা ভুল হবে না। কারণ তার অধিনায়কত্বে অস্ট্রেলিয়া দল অপরাজিতর মতোই প্রদর্শন করেচজে। ক্যাঙ্গারি দলের প্রাক্তন অধিনায়ক যতই এত সফল প্রমানিত হন কিন্তু তার নেতৃত্বের কার্যকালে এমন একটা মুহূর্তও এসেছিল যা তার অধিনায়কত্বের পাশাপাশি পুরো অস্ট্রেলিয়া দলকেই অস্বস্তিতে ফেলেছিল।

রিকি পন্টিং স্বয়ং মানলেন তার অধিনায়কত্বের কার্যকালের সবচেয়ে খারাপ সময়

রিকি পন্টিং মাঙ্কিগেট কান্ড নিয়ে এখন করলেন খোলসা, শচীনকে বলা হয়েছিল মিথ্যেবাদী 3

২০০৮ এ ভারতীয় দল যখন অস্ট্রেলিয়ায় খেলতে গিয়েছিল সেই সময় বর্ডার-গাভাস্কার ট্রফিতে একটি কুখ্যাত মাঙ্কি গেট কান্ড হয়। সেই সময় অস্ট্রেলিয়ার হয়ে রিকি পন্টিং অধিনায়ক ছিলেন অন্যদিকে ভারতের হয়ে অধিনায়ক ছিলেন অনিল কুম্বলে। এই বিতর্ক না শুধু ভারত আর অস্ট্রেলিয়ার সম্পর্কে টেনশন তৈরি করে বরং রিকি পন্টিংয়ের কাজ নিয়েও প্রশ্ন উঠে যায়। মাঙ্কি গেট ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে আলোচিত বিতর্কগুলির মধ্যে একটি। এই মুহূর্তটিকে পুরো ক্রিকেট জগত রিকি পন্টিংয়ের কার্যকালের সবচেয়ে খারাপ মুহূর্ত তো বলেইছে এখন স্বয়ং রিকি পন্টিংও মনে করেছেন যে মাঙ্কি গেট তার অধিনায়কত্ব কার্যকালের সবচেয়ে খারাপ সময়।

রিকি পন্টিং ওই মুহূর্তটিকে বললেন ভীষণই নিরাশাজনক

রিকি পন্টিং মাঙ্কিগেট কান্ড নিয়ে এখন করলেন খোলসা, শচীনকে বলা হয়েছিল মিথ্যেবাদী 4

রিকি পন্টিং স্কাই স্পোর্টসের সঙ্গে কথাবার্তা বলতে গিয়ে বলেন যে, “আমরা সকলে অন্তিম পরিণামকে কম অনুভব করেছিলাম। এই তথ্য আমাদের আগামী ম্যাচের জন্য ক্রিকেট খেলার ধরণ থেকে পেয়েছিলাম। সম্ভবত এটা সবচেয়ে নিরাশাজনক বিষয় ছিল। এই কারণে আমরা ওখানে (পরের টেস্টের জন্য) যাই আর ভারত পার্থে ছিল। আমরা জয়ের আশা করছিলাম আর তারপর আমরা ম্যাচ হেরে যাই আর তারপর তো আগামী কিছুদিন পরিস্থিতি আরো খারাপ হয়ে যায়। মাঙ্কি গেট সম্ভবত সবচেয়ে খারাপ থেকেছে। ২০০৫ এর অ্যাসেজ সিরিজ হারনা কঠিন ছিল কিন্তু আমি সম্পূর্নভাবে ওটার উপর নিয়ন্ত্রণ করেছিলাম। কিন্তু আমি মাঙ্কি গেটের সময় যা কিছু হয়েছে তার সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ করতে পারিনি। এটা একটা লো পয়েন্ট ছিল আর এই কারণে ছিল কারণ এটা এত দীর্ঘ সময় ধরে চলেছে। অ্যাডিলেড টেস্ট ম্যাচ চলাকালীন নামা আর ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার আধিকারিকদের সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলার কথা মনে আছে কারণ শুনানি অ্যাডিলেড টেস্ট ম্যাচের শেষে ছিল”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *