নিজেও শিকার হয়েছেন বর্নবিদ্বেষের, এই নোংরামো নিয়ে কড়া ভূমিকা নেওয়ার দাবি রবিচন্দ্রন অশ্বিনের 1

সিডনিতে আয়োজিত তৃতীয় টেস্টের দ্বিতীয় দিনে যাবতীয় শিরোনাম উঠে এসেছে ম্যাচের পর, যেখানে অভিযোগ উঠেছিল, ভারতীয় দলের দুই ক্রিকেটার মহম্মদ সিরাজ এবং জসপ্রীত বুমরাহের উপর বর্নবিদ্বেষমূলক আক্রমণ করেছিলেন মাঠে উপস্থিত কিছু দর্শক। সেই নিয়ে ইতিমধ্যেই অধিনায়ক অজিঙ্ক রাহানে এবং তারকা অফ স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন অভিযোগ জানিয়েছিলেন আম্পায়ার পল রাইফেল এবং পল উইলসনকে। এরপর সিরাজ এবং বুমরাহ দুজনকেই দেখা যায় দুই আম্পায়ারের সাথে এই বিষয় নিয়ে কথা বলতে।

নিজেও শিকার হয়েছেন বর্নবিদ্বেষের, এই নোংরামো নিয়ে কড়া ভূমিকা নেওয়ার দাবি রবিচন্দ্রন অশ্বিনের 2

এমনকি, তৃতীয় দিনেও ভারতের তারকা পেসার মহম্মদ সিরাজকে নিয়েও উড়ে এসেছে বিদ্বেষমূলক মন্তব্য। এই নিয়ে ম্যাচ চলাকালীনই অধিনায়ক অজিঙ্ক রাহানে এবং মহম্মদ সিরাজ সহ গোটা ভারতীয় দল এসে অভিযোগ করেন আম্পায়ারদের কাছে। আর সেই অভিযোগ শুনে আম্পায়ার চলে যান মাঠের কর্তৃপক্ষের কাছে এই বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য। আর তার পর মাঠে উপস্থিত পুলিশ এসে বিদ্বেষমূলক মন্তব্য ছোঁড়া সেই দর্শকদের সাথে এই নিয়ে কথা বলেন এবং তাদের মাঠ থেকে বের করে দেন।

নিজেও শিকার হয়েছেন বর্নবিদ্বেষের, এই নোংরামো নিয়ে কড়া ভূমিকা নেওয়ার দাবি রবিচন্দ্রন অশ্বিনের 3

এবার এই নোংরামো নিয়ে আওয়াজ তুললেন তারকা অফ স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন। তিনি স্বীকার করেছেন, এই ধরণের বিদ্বেষমূলক মন্তব্যের শিকার হয়েছেন তিনিও। এমনকি, এই সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে এর আগেও উড়ে এসেছে এমন মন্তব্য। যদিও সেই সময় তিনি জানতেন না এই বিষয়ে, কিন্তু আজ যখন ক্রীড়া বিশ্বে এই নিয়ে আন্দোলন শুরু হয়েছে, তখন এই ধরণের নোংরামোকে বন্ধ করার আর্জি জানিয়েছেন অশ্বিন।

নিজেও শিকার হয়েছেন বর্নবিদ্বেষের, এই নোংরামো নিয়ে কড়া ভূমিকা নেওয়ার দাবি রবিচন্দ্রন অশ্বিনের 4

চতুর্থ দিনের খেলার শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রবিচন্দ্রন অশ্বিন বলেছেন, “২০১১ সালে, আমি জানতাম না বর্নবিদ্বেষ নিয়ে এবং এতে আপনি কিভাবে ছোট হয়ে যাবেন। এবং মানুষ এতে দিব্যি হেসে উড়িয়ে দেন। এছাড়াও এর আগে সিডনিতে এই বিষয়টির মুখোমুখি হয়েছি। এই বিষয়গুলিকে শক্ত হাতে সামলানো উচিত। অ্যাডিলেড এবং মেলবোর্ন এতটা খারাপ ছিল না, কিন্তু যেমনটা আমি বলেছি এই বিষয়টি সিডনিতে চলেই এসেছে। আমি এর আগেও এই বিষয় নিয়ে ভুগেছি, এখানকার দর্শকরা নোংরামো করতে পছন্দ করেন। আমি জানি না কেন তারা এরকম করেন, যতদিন না এই বিষয়ে কড়া কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে, মানুষ এটির বিষয়ে ভাবতে তেমন দ্বিধাবোধ করেন না।”

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *