আইপিএল ২০২০- কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে বোলিং করার সময় রশিদ খানের মাথায় ছিল এই বিষয়

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে বৃহস্পতিবার একটি বড়ো ম্যাচ খেলা হয়েছে। এই মরশুমের ২২ তম ম্যাচে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ এবং কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব মুখোমুখি হয়েছিল। এই ম্যাচে দুই দলই জয়ের লক্ষ্য মাঠে নেমেছিল। কিন্তু সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ অসাধারণ প্রদর্শন করে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে সহজেই হারিয়ে দিয়েছে।

কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে সহজ জয় হায়দ্রাবাদের

আইপিএল ২০২০- কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে বোলিং করার সময় রশিদ খানের মাথায় ছিল এই বিষয় 1

বৃহস্পতিবার খেলা হওয়া এই ম্যাচে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ প্রথমে ব্যাট করে আর পরে বোলিংয়ে অসাধারণ প্রদর্শন করে দুর্দান্ত জয় হাসিল করে। এই জয়ের ফলেই সানরাইজার্স পয়েন্ট তালিকায় তৃতীয় স্থানে পৌঁছে গিয়েছে। এই ম্যাচে ব্যাটিংয়ের কথা বলা হলে, সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের ব্যাটসম্যান ডেভিড ওয়ার্নার আর জনি ব্যারেস্টো অসাধারণ প্রদর্শন করেন, তো এরপর বোলিংয়ে রশিদ খান দুর্দান্ত প্রদর্শন করেছেন। আর কিংস ইলেভেনকে পিছিয়ে দিতে প্রধান ভূমিকা পালন করেন।

খালি ডট বল করার করি চেষ্টা

আইপিএল ২০২০- কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে বোলিং করার সময় রশিদ খানের মাথায় ছিল এই বিষয় 2

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের রহস্যময় স্পিনার রশিদ খান এই ম্যাচে ৩টি সফলতা হাসিল করেন। তিনি ম্যাচের পর বলেন, “আমি এটাকে সরল রাখার সম্পূর্ণ চেষ্টা করি। আমি নিজের উপর খুব বেশি চাপ দিই না। আমি শুধু মাঠে যাই আর নিজের বোলিংয়ের আনন্দ উপভোগ করি আর এটাই আমি এখনও পর্যন্ত করছি। এই উইকেটে নিজের লাইন-লেংথ আর দৈর্ঘতাকে সমায়োজিত করতে হবে, যা সফলতা পাওয়ার বড়ো দিক। যেমনই আমি এসে নিজের প্রথম বল করি, আমার অনুভূত হয় যে এই উইকেটের সঠিক দৈর্ঘ কী আর কেমন বোলিং করা উচিৎ। সেই সময় আপনাকে ব্যাটসম্যানদের দুর্বলতার সঙ্গে বোলিং করতে হবে। আমি এটাই করছি আর আমি সফলতা পেয়েছি”।

রশিদ খান নিকোলস পুরণের উইকেট নিয়ে বললেন এই কথা

আইপিএল ২০২০- কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে বোলিং করার সময় রশিদ খানের মাথায় ছিল এই বিষয় 3

নিকোলস পুরণ যখন ব্যাটিং করছিলেন তখন রশিদ খানকে অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার তাঁর শেষ ওভার করতে দেন। এটা নিয়ে রশিদ খান বলেন যে, “আমার মনে হয় যে এটা একটা গুরুত্বপূর্ণ ওভার ছিল। আমার শেষ ওভার ছিল, কারণ নিকোলস পুরণও মুডে ছিল। ও বোলারদের উপর চাপ তৈরি করছিল। অধিনায়ক আমাকে বল দেন আর আমি ডট বল করার পুরো চেষ্টা করি। আমার মনে হয় যে আমি যতবেশি ডট বল করব, পরিণাম ভালো পাওয়া যাবে। এটাই হয়েছে। আমি ৪টি ডট বল করি আর তারপর ও একটা মুশকিল শট খেলার চেষ্টা করে যা আমাকে একটা উইকেট এনে দিয়েছে”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *