খুব বেশি সময় আগে নয়, যখন সুরেশ রায়না ছিলেন সীমিত ওভারের ক্রিকেটে ভারতে অপরিহার্য অংশ। অভিষেকের পর হতে একটা দীর্ঘ সময় পর্যন্ত ওয়ানডে ও টিটুয়েন্টি দলে অপরিহার্য ছিলেন জাতীয় দলে। কিন্তু দল হতে বাদ পড়ার হতে এখন দলে ফিরতে সংগ্রাহ করছেন। ২০১৫ সালে নিজ দেশে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে সিরিজের হতেই রান খড়ায় আছেন সুরেশ রায়নার। নিজেদের মাঠে ব্যাটিং সহায়ক পিচেও যখন প্রোটিয়া বোলারদের বিপক্ষে ব্যর্থ হওয়ার পর দল হতে বাদ পড়েন সুরেশ রায়না। সিরিজের প্রথম তিন ম্যাচ খেলে মাত্র তিন রান করেন, এর মধ্যে প্রথম ম্যাচে তিন রান করার পর, পরের দুই ম্যাচেই শূণ্য রানে আউট হোন। চতুর্থ ম্যাচে অর্ধশত রান করতে পারলেও শেষ ম্যাচেও আবার ব্যর্থ হোন। ২০১৬ সালের টিটুয়েন্টি এশিয়া কাপে সুযোগ পেয়েও ব্যাট ও বোল হাতে ছিলেন ব্যর্থ।

২০১৬ সালের অক্টোবরে নিউজল্যান্ডের বিরুদ্ধে দেশের মাটিতে সীমিত ওভারের সিরিজে দলে সুযোগ পেলেও অসুস্থতার জন্য কোন ম্যাচে ই মাঠে নামতে পারেন নি। এরপরে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টিটুয়েন্টি সিরিজে সুযোগ পেয়ে তিন ম্যাচের সিরিজে ১০৪ রান করে হয়েছেন তৃতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। এই বছরের আইপিএলে অসাধারন খেলার পর আবার দলে ডাক পাওয়ার সম্ভবনা দেখা দিলেও উপেক্ষিত ছিলেন চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি, ওয়েস্ট উইন্ডিজ ও শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সীমিত ওভারের সিরিজেও।

সাম্প্রতিক সময়ে ভারতের খেলোয়ারদের ফিটনেস নিয়ে বেশ আলোচনা হচ্ছে। বিশেষ করে “ইউ ইউ” টেস্টে উৎরাতে না পারার কারনে যুবরাজ সিং এবং সুরেশ রায়না শ্রীলঙ্কা সিরিজে দলে সুযোগ না পাওয়ায়। শাস্ত্রী বলেন ফিটনেস ই সবচেয়ে বড় বিষয় হবে দল নির্বাচনের ক্ষেত্রে, যদি কারো ফিটনেস ঠিক না থাকে তবে সে যত বড় তারকা ই হোক না কেন সুযোগ পাবে না। এ সময় শাস্ত্রীকে জিজ্ঞেস করা হয় যুবরাজ ও সুরেশ রায়নার দলে সুযোগ পাওয়ার সম্ভনা কতটুকু। তখন তিনি বলেন, ” যেহেতু দলে সুযোগ পাওয়ার জন্য নির্দিষ্ট কিছু মানদন্ড আছে তাই কেউ দলে সুযোগ পাওয়ার জন্য অবশ্য ই সেটা পূর্ণ করতে হবে। এটা খুব সাধারন বিষয়।” অধিনায়ক বিরাট কোহলী একটি বিষয় স্পষ্ট করেছেন যে ২০১৯ সালের বিশ্বকাপ কে সামনে রেখে ভারতীয় দল পরীক্ষা নিরীক্ষার মধ্য দিয়ে যাবে, একটি সেরা দল খুজে নেওয়ার চেষ্টা করা হবে। ২০-২৫ জনের একটি পুল তৈরী করার একটা চেষ্টা হবে এবং এতে রায়না তাদের বিবেচনা পূর্ণ করতে পারছেন না। এদিকে ব্যাট হাতে ব্যর্থতাও রায়নার জন্য এখন সমস্যা। ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ আসর দুলীপ ট্রফি।এই ঘরোয়া আসরটি শুরুর আগে ভারতীয় জাতীয় দলের বাহিরে থাকার সুরেশ রায়না নিজেকে প্রস্তুত করার একটি সুযোগ পেয়েছিলেন। কিন্তু উত্তর প্রদেশের হয়ে বুচি বাবু ট্রফিতে এ বাম হাতি ব্যাটসম্যান নিজেকে প্রমাণ করার সুযোগ টি হাত ছাড়া করেছেন। মাত্র নয় রানে ই শেষ হয়ে যায় রায়নার ইনিংস। অথচ ইনিংসের শুরু টা হয়েছিল অসাধারন। পর পর দুটি চার মেরে শুরু করেছিলেন ; কিন্তু দ্রুত ই তার ইনিংসের সমাপ্তি ঘটে।

  • SHARE
    A Cricket enthusiast who is pursuing his passion.

    আরও পড়ুন

    রেকর্ড: ইতিহাস সৃষ্টি করে শিখর ধবন নিজের নামে করলেই এই দুর্দান্ত রেকর্ড

    রেকর্ড: ইতিহাস সৃষ্টি করে শিখর ধবন নিজের নামে করলেই এই দুর্দান্ত রেকর্ড
    সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ এবং কলকাতা নাইট রাইডার্সের মধ্যে চলা দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারের ম্যাচে শিখর ধবন এক নতুন উপলব্ধী নিজের...

    আইপিএল ২০১৯এ এই তিন খেলোয়াড়কে যে কোনও মূল্যে নিতে চাইবেন নীতা আম্বানি

    এই মরশুমের আইপিএলে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের প্রদর্শন এমন কিছু ভাল ছিল না। ফলে মুম্বাই দলকে আইপিএলের লীগ চরণ...

    আগামি বছর এই নতুন ফ্রেঞ্চাইজির হয়ে খেলতে দেখা যাবে ডোয়েন ব্র্যাভোকে, ফ্রেঞ্চাইজির সঙ্গে হল চুক্তি

    বিগ ব্যাশ ২০১৭-১৮ মরশুমে মেলবোর্ণ স্টার্স টিমের হালত সবচেয়ে বেশি খারাপ ছিল। জন হেস্টিংসের নেতৃত্বাধীন এই দল...

    কোয়ালিফায়ার ২: টস জেতা দলই পাবে ফাইনালে যাওয়ার সুযোগ, জানুন কি হতে পারে অধিনায়কের সিদ্ধান্ত

    আইপিএল ২০১৮ র আর মাত্র দুটি ম্যাচই বাকি রয়েছে, যার মধ্যে একটি ম্যাচ আজ কলকাতা নাইট রাইডার্স...

    দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারের ম্যাচের আগে কুলদীপ যাদব বলে দিলেন এমন কথা, বাড়তে পারে সানরাইজার্সের সমস্যা

    সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ বনাম কলকাতা নাইট রাইডার্সের মধ্যে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারের ম্যাচ আজ সন্ধ্যে সাতটায় খেলা হতে চলেছে কলকাতার...