৮ মাসের ব্যান নিয়ে পৃথ্বী শয়ের আবেগী মেসেজ, বললেন শক্তিশালী হয়ে করব প্রত্যাবর্তন 1

ভারতীয় ক্রিকেট দলের উদীয়মান প্রতিভাবান তরুণ ব্যাটসম্যান পৃথ্বী শ মুশকিলে ফেঁসে গিয়েছেন। ভারতীয় দলে এন্ট্রি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ধামাকেদার ডেবিউ করা প্রথ্বী শকে এই বছর চোট ভারতীয় দল থেকে দূরে রেখেছে। আর তিনি আইপিএলের পর আবারো আহত হয়ে যান আর নিজের চোট থেকে ধীরে ধীরে সুস্থ হচ্ছেন।

পৃথ্বী শয়ের উপর নিষিদ্ধ ওষুধ সেবন করার কারণে লাগল ৮ মাসের ব্যান

পৃথ্বী শ চোট থেকে তো দ্রুত সুস্থ হচ্ছেন কিন্তু এখন তিনি নভেম্বর পর্যন্ত ক্রিকেট খেলতে পারবেন না। কারণ তিনি ডোপিং টেস্টে ফেঁসে গিয়েছেন যারপর মুম্বাই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের পাশাপাশি বিসিসিআইও তাকে ব্যান করে দিয়েছে।

৮ মাসের ব্যান নিয়ে পৃথ্বী শয়ের আবেগী মেসেজ, বললেন শক্তিশালী হয়ে করব প্রত্যাবর্তন 2

পৃথ্বী শ এই বছর ফেব্রুয়ারিতে সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফ চলাকালীন নিজের ইউরিন স্যাম্পেল দিয়েছেন যার মধ্যে তাকে কাফ সিরাপ নেওয়ার দোষী পাওয়া গিয়েছে। এই অবস্থায় তার উপর বিসিসিআই ৮ মাসের ব্যান লাগিয়ে দিয়েছে যা ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হবে বলে মনে করা হচ্ছে আর এটা ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে।

ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু ব্যান জারি থাকবে নভেম্বর পর্যন্ত

অজান্তে নেওয়া নিষিদ্ধ ওষুধ সেবন করার পর পৃথ্বী শকে তদন্তে সম্পূর্ণভাবে দোষী পাওয়া গিয়েছে আর তার উপর বিসিসিআই দ্বারা এই বড়ো অ্যাকশন নেওয়া হয়েছে। এখন পৃথ্বী শয়ের উদীয়মান কেরিয়ারে কিছু মাসের ব্রেক লেগে গিয়েছে।

৮ মাসের ব্যান নিয়ে পৃথ্বী শয়ের আবেগী মেসেজ, বললেন শক্তিশালী হয়ে করব প্রত্যাবর্তন 3

কিন্তু অন্যদিকে এই ব্যানের পর পৃথ্বী শ নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে একটি ভীষণই আবেগী মেসেজ শেয়ার করেছেন।

ব্যান লাগার পর পৃথ্বীর আবেগী মেসেজ

পৃথ্বী শ নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে একটি চিঠি পোষ্ট করেছেন যাতে লেখা রয়েছে,

“আমি আজ জানতে পেরেছি যে আমি নভেম্বর ২০১৯এর মিডল পর্যন্ত ক্রিকেট খেলতে পারব না। এটা কাশির ওষুধে উপস্থিত একটি নিষিদ্ধ পদার্থ সামনে এসেছে যা আমি অজান্তে নিয়েছিলাম। আমার গুরুতরভাবে সর্দি আর কাশি হয়েছিল, যখন আমি নিজের মুম্বাই দলের হয়ে ফেব্রুয়ারি ২০১৯এ ইন্দোরে সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফি খেলছিলাম। আমি নিজের পায়ের চোট থেকে প্রত্যাবর্তন করছিলাম। যা আমার ভারতের অস্ট্রেলিয়া সফর চলাকালীন লেগেছিল আর আমি ওই টুর্নামেন্টে সক্রিয়ভাবে ফেরত আসছিলাম। যদিও খেলার জন্য আমার উৎসুকতা ছিল। আমি এর জন্য কাউন্টার কাফ সিরাপ নিই যার উপর আমি সাবধান হওয়ার জন্য প্রোটোকলের পালন করিনি।
আমি সম্পূর্ণ সৎভাবে এটা স্বীকার করছি। যখন আমি এখনো চোটের মুখোমুখ হচ্ছে যা আমি শেষ টুর্নামেন্টে পেয়েছিলাম তো এই খবর আমাকে নাড়িয়ে দিয়েছিল। আমাকে এটা নিজের স্ট্রাইডে নিতে হবে আর আমার আশা যে এটা ভারতেও আমাদের খেলার দুনিয়ার অন্য লোকেদেরও প্রেরিত করবে যে আমদের অ্যাথেলিট হিসেবে চিকিৎসা সম্বন্ধী ছোটো রোগের জন্য কোনো ওষুধ নেওয়ার ক্ষেত্রে ভীষণই সাবধান থাকার প্রয়োজন রয়েছে, যতই ওষুধ কাউন্টারে উপলব্ধ থাকুক আমাদের সবসময়ই প্রটোকলের পালন করার প্রয়োজন রয়েহচে।
আমি বিসিসিআইয়ের সমর্থনের জন্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি আর আমার নিকট এবং প্রিয় মানুষদেরও, যারা আমার সঙ্গে আমার পাশে সবসময়ই দাঁড়িয়েছেন। ক্রিকেট আমার জীবন আর ভারত বা মুম্বাইয়ের হয়ে খেলার চেয়ে বড়ো কোনো গর্ব নেই আর আমি এরচেয়েও দ্রুত আর শক্তিশালী হয়ে উঠব। আপনাদের সমর্থনের জন্য আপনাদের সকলকে আবারো ধন্যবাদ”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *