NZvsIND: যদি পৃথ্বী শ পান প্লেয়িং XI সুযোগ তো এই দুই খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন পড়বেন বাদ

ভারতীয় ব্যাটসম্যান শিখর ধবনের জায়গায় তিব ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের জন্য পৃথ্বী শ’কে অন্যদিকে ৫ ম্যাচের টি-২০ সিরিজের জন্য সঞ্জু স্যামসনকে ভারতীয় দলে জায়গা দেওয়া হয়েছে। আপনাদের জানিয়ে দিই যে ভারতীয় ওপেনার শিখর ধবন অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তৃতীয় ওয়ানডে চলাকালীন কাঁধে চোট পাওয়ার কারণে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজের পাশাপাশি ওয়ানডে সিরিজ থেকেও ছিটকে গিয়েছেন। পৃথ্বী শ প্রথমবার ভারতের ওয়ানডে দলে জায়গা পেয়েছেন। পৃথ্বী শ টেস্ট দলে জায়গা পেয়েছিলেন, কিন্তু অস্ট্রেলিয়া সফরে তার পায়ে চোট লাগে আর তিনি ছিটকে যান। এরপর তিনি ডোপিং টেস্ট ব্যর্থ হওয়ার কারণেও ব্যান হন। স্যামসন আর শ দুজনেই এই মুহূর্তে নিউজিল্যান্ডে রয়েছেন আর ভারতীয় এ দলের হয়ে খেলছেন।

পৃথ্বী শ পেতে পারেন প্লেয়িং ইলেভেনে সুযোগ

NZvsIND: যদি পৃথ্বী শ পান প্লেয়িং XI সুযোগ তো এই দুই খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন পড়বেন বাদ 1

পৃথ্বী শ ভারতীয় এ দলের হয়ে খেলে নিউজিল্যান্ড এ-র বিরুদ্ধে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে সেঞ্চুরিও করেছেন। পৃথ্বী শয়ের দুর্দান্ত ফর্ম দেখে এটা সম্ভব যে ভারতীয় দল তাকে ৫ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া প্রথম একদিনের ম্যাচের প্লেয়িং ইলেভেনে সুযোগ দিতে পারে। এই অবস্থায় পৃথ্বী শয়ের প্রথম একাদশে আসায় ঋষভ পন্থ বা কেএল রাহুলের মধ্যে কোনো একজনকে বাইরে বসতে হতে পারে।

কেএল রাহুল কি পড়বেন বাদ?

NZvsIND: যদি পৃথ্বী শ পান প্লেয়িং XI সুযোগ তো এই দুই খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন পড়বেন বাদ 2

ভারতীয় উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান কেএল রাহুলের ব্যাট এই মুহূর্তে সীমিত ওভারের ম্যাচে রান বৃষ্টি করে চলেছে। তিনি দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন যে কারণে ওয়ানডের প্লেয়িং ইলেভেনে জায়গা পাওয়ার তিনি প্রবল দাবীদার। তিনি নিজের শেষ টেস্ট ম্যাচ গত বছর ওয়েস্টইন্ডিজের বিরুদ্ধে খেলেছিলেন। অধিনায়ক বিরাট কোহলি কিছুদিন আগেই বলেছিলেন যে রাহুলের মতো খেলোয়াড়কে যে কোনো দলের বাইরে রাখা ভীষণই মুশকিল। এই অবস্থায় পরিস্কার দেখা যাচ্ছে যে কেএল রাহুলের প্লেয়িং ইলেভেনের বাইরে থাকা ভীষণই মুশকিল।

ঋষভ পন্থ কী পড়বেন বাদ?

NZvsIND: যদি পৃথ্বী শ পান প্লেয়িং XI সুযোগ তো এই দুই খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন পড়বেন বাদ 3

ভারতীয় তরুণ উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান ঋষভ পন্থ ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির ক্রিকেট না খেলার পর থেকেই ভারতীয় দলের প্রধান উইকেটকিপার হিসেবে খেলছেন। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে আহত হওয়ার পর দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচে তিনি খেলতে পারেননি। এই কারণে কেএল রাহুল উইকেটকিপিংয়ের দায়িত্ব পান এবং কিপিং এবং ব্যাটীংয়ে নিজের সর্বশ্রেষ্ঠ প্রদর্শন দেখান। যে কারণে পন্থ তৃতীয় ওয়ানডেতে সুস্থ হওয়া সত্ত্বেও তাকে সুযোগ দেওয়া হয়নি আর কেএল রাহুলকে দিয়েই উইকেটকিপিং করানো হয়। এই সবকিছুকে মাথায় রেখেই মনে হচ্ছে যে যদি পৃথ্বী শ ভারতীয় দলের প্লেয়িং ইলেভেনে জায়গা করতে সক্ষম হন তো ঋষভ পন্থকেই বেঞ্চে বসে থাকতে হবে।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *