MIvsDC: ঋষভ পন্থ সহ পুরো দিল্লি ক্যাপিটালস দলকে নিয়ে সমর্থকরা সোশ্যাল মিডিয়ায় করল ঠাট্টা 1

দুবাইয়ের মাঠে আজ আইপিএল ২০২০-র প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচ মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স আর দিল্লি ক্যাপিটালসের মধ্যে খেলা হয়েছে। যেখানে দিল্লি টসে জিতে প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নেন। যারপর মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স দল প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২০০ রান করে। যে লক্ষ্যের তাড়া করে দিল্লি ক্যাপিটালসের দল ৫৭ রানে ম্যাচ হেরে যায়। যারপর মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স পরপর দ্বিতীয়বার ফাইনালের টিকিট পেল। এই ম্যাচ হারার পর সোশ্যাল মিডিয়ায় আজ ঋষভ পন্থ সহ পুরো দিল্লি ক্যাপিটালসকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঠাট্টা হচ্ছে।

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স পেল ফাইনালের টিকিট

MIvsDC: ঋষভ পন্থ সহ পুরো দিল্লি ক্যাপিটালস দলকে নিয়ে সমর্থকরা সোশ্যাল মিডিয়ায় করল ঠাট্টা 2

টস হারার পর প্রথমে ব্যাট করতে নাম মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের অধিনায়ক রোহিত শর্মা শূণ্য রানের স্কোরে আউট হয়ে যান। কিন্তু তারপর কুইন্টন ডি’কক দলের হয়ে ৪০ রান করেন। অন্যদিকে তাকে সঙ্গ দিয়ে সূর্যকুমার যাদবও আজ আক্রামণাত্মক মেজাজে খেলে ৫১ রান করে। তরুণ ঈশান কিষাণ আজ দুর্দান্ত ব্যাটিং করে অপরাজিত ৫৫ রানের ইনিংস খেলেন। তাকে ১৩ রান করে প্রথমে সঙ্গ দেন ক্রুণাল পাণ্ডিয়া, অন্যদিকে পরে হার্দিক পাণ্ডিয়াও আক্রামণাত্মক মেজাজে খেলে ১৪ বলে ৩৭ রান করেন। যে কারণেই মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের দল ২০ ওভারের শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ২০০ রান করে।

লক্ষ্য তাড়া করতে নামা দিল্লি ক্যাপিটালসের দল শূণ্য রানের স্কোরেই পৃথ্বী শ, অজিঙ্ক রাহানে আর শিখর ধবনের উইকেট হারিয়ে ফেলে। এরপর তাদের অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ার মাত্র ১২ রান যোগ করেন। অন্যদিকে অলরাউন্ডার মার্কস স্টোইনিসও ৬৫ রান করেন দলের হয়ে। মার্কস একাই নিজের দলের হয়ে লড়াই করেন। উইকেটকিপার ঋষভ পন্থ দলের হয়ে মাত্র ৩ রানই করতে পারেন। অন্যদিকে অক্ষর প্যাটেল ৪২ রান করেন। এর ফলে ২০ ওভার শেষে দিল্লি ক্যাপিটালসের দল মাত্র ১৪৩ রানই করতে পারে আর তারা এই ম্যাচ ৫৭ রানে হেরে যায়। যার ফলে আজ সোশ্যাল মিডিয়ায় ঋষভ পন্থ সহ পুরো দিল্লি দলকে নিয়ে জমিয়ে ঠাট্টা করা হচ্ছে।

এখানে দেখুন ম্যাচের পর আসা টুইটার প্রতিক্রিয়া

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *