যখন শিখর ধবনের ছেলে ভুবনেশ্বরকে বলল – আজ নূপুর তোমার নয় আমার বউ

নিজের বাবার মতই শিখর ধবনের ছেলে জোরাবরও বেশিরভাগ সময়ই চর্চার বিষয় হয়। জোরাবর টিম ইন্ডিয়ার সকল প্লেয়াদের সঙ্গে হাসি মজা করে থাকে। অর্থাৎ ও কারর সামনেই লজ্জা পায় না। কোথায় কথা বলার সময় সামান্য থমকেও যায় না, সেই কারণেই টিম ইন্ডিয়ার সদস্যারা জোরাবরের সঙ্গে খেলতে পছন্দ করেন। সম্প্রতিই টিম ইন্ডিয়ার জোরে বোলার ভুবনেশ্বর কুমার জোরাবরের সঙ্গে যুক্ত একটি ঘটনার উল্লেখ করেছেন।
যখন শিখর ধবনের ছেলে ভুবনেশ্বরকে বলল – আজ নূপুর তোমার নয় আমার বউ 1
একটি ঘটনার কথা উল্লেখ করে ভূবি জানিয়েছেন, “ একবার যখন ও আমার স্ত্রী নূপুরের সঙ্গে খেলছিল তখন আমি ওকে বলি ওটা আমার স্ত্রী ওকে জ্বালিয়ো না। এতে জোরাবর জবাব দিয়ে বলে যে এখন নূপুর আমার বউ। তোমার টাইম আবার রবিবার থেকে শুরু হবে। এটা শুনে আমি অবাক হয়ে গিয়েছিলাম”।

Less than an hour left for #BreakfastwithChampions. Catch @shikhardofficial at 5 PM

A post shared by SunRisers Hyderabad (@sunrisershyd) on May 24, 2018 at 3:56am PDT

ভূবি বলেন যে জোরাবর অন্য বাচ্চাদের থেকে একদম আলাদা। ও একটু দুষ্টুও। একবার শিখর ধবন নিজের টি২০ প্র্যাকটিস শেসনের সময় নিজের ছেলে জোরাবরের সঙ্গে একটি ছবি পোষ্ট করেন। আর তার ট্যাগ লাইন দেন “ কখনও তো কোনও কথা শোনো।

এই পোষ্ট থেকেই আপনি আন্দাজ করে নিতে পারেন যে এখন জোরাবর কতটা দুষ্টুমি করে। যদিও সোশ্যাল মিডিয়ায় আপনি জোরাবরের বেশ কিছু গল্পও পেয়ে যাবেন। যখন ও মুডে থাকে তখন সে নিজের বাবার মতই থাকে। অর্থাৎ একদম গব্বর স্টাইলে।

টিম ইন্ডিয়ার হিটম্যান রোহিত শর্মা এবং জোরাবরও বেশ ভাল বন্ধু। জোরাবর টিম ইন্ডিয়ার সদস্যদের মধ্যে রোহিত শর্মা এবং তার স্ত্রী রিতীকার ভীষণ কাছের। সুযোগ পেলেই রোহিত এবং জোরাবর খেলার সময় বের করে নেয়।
যখন শিখর ধবনের ছেলে ভুবনেশ্বরকে বলল – আজ নূপুর তোমার নয় আমার বউ 2
আইপিএল ২০১৮ চলাকালীনও জোরাবর নিজের বাবার সঙ্গে ছিল এবং এখন তার বন্ধুত্ব হায়দ্রাবাদ প্লেয়ারদের সঙ্গেও হয়ে গেছে। শিখর ধবন নিজের ইন্টারভিউ চলাকালীন অনেক বারই বলেছেন যে জোরাবর যথেষ্টই ফ্রেন্ডলি। ও লজ্জা পায় না।এই জন্য দ্রুতই সকলের সঙ্গে মিলেমিশে যায়।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *