কলকাতার বিরুদ্ধে হারের জের, ধোনির পাঁচ বছরের মেয়েকে ধর্ষণের হুমকি দিল নেটিজেনরা 1

গত ৭ অক্টোবর কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিরুদ্ধে কার্যত জেতা ম্যাচ হাতছাড়া করে দিয়ে আসেন চেন্নাই সুপার কিংস। আর এই হারের জেরে অনেকেই দায়ী করেছেন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি ও কেদার যাদবের টেস্টসুলভ ইনিংসকে। তাদের ধীরগতির ইনিংসের জেরে রান রেট লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে, এবং শেষের দিকে তা সামাল দিতে পারেনি চেন্নাই সুপার কিংস।

কলকাতার বিরুদ্ধে হারের জের, ধোনির পাঁচ বছরের মেয়েকে ধর্ষণের হুমকি দিল নেটিজেনরা 2

ক্রিকেটে সমালোচনা হয়েই থাকে, এটিই স্বাভাবিক। কিন্তু আমাদের দেশ অর্থাৎ ভারতবর্ষে ক্রিকেটকে ধর্মের চোখে দেখা হয়, তাই এখানে সমালোচনার মাত্রাটাও অনেকটাই বেশি হয়ে যায়। অন্যান্য দেশে যখন খেলোয়াড়ের ফর্ম নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়, আমাদের এখানে সেই সমালোচনার এক ধাপ এগিয়ে আক্রমণ করা হয় ক্রিকেটারদের পরিবারকে। এরকম উদাহরণ রয়েছে অসংখ্য। কিন্তু এবারে সমস্ত সীমা অতিক্রম করলেন কিছু বিকৃত মনস্ক মানুষ।

কলকাতার বিরুদ্ধে হারের জের, ধোনির পাঁচ বছরের মেয়েকে ধর্ষণের হুমকি দিল নেটিজেনরা 3

গত ম্যাচে মহেন্দ্র সিং ধোনির এমন বাজে ব্যাটিংয়ের জেরে তার পাঁচ বছরের মেয়ে জিভাকে ধর্ষণ ও শারীরিক অত্যাচারের হুমকি দেন কয়েক জন বিকৃত মনস্ক নেটিজেন। টুইটার, ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম জুড়ে অসংখ্য কমেন্ট এমন এসেছে যেখানে ধোনির মেয়েকে ধর্ষণ করার দাবি তুলেছেন কয়েকজন জানোয়ার। তবে এই বিকৃত মনষ্কদের মুখোশ খুলেও দিয়েছেন অসংখ্য নেটিজেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাদের কমেন্টের স্ক্রিনশট তুলে তা ভাইরাল করে দেখালেন যে, ক্রিকেটের নামে এই ধরণের পাষন্ডরা আজও ঘুরে বেড়াচ্ছে আমজনতার মাঝে।

আর এর দ্বারাই প্রশ্ন ওঠে, একটি পাঁচ বছরের মেয়ের উপর যদি ধর্ষণের হুমকি ওঠে, তাহলে আমাদের দেশের নারী সুরক্ষা কতটা নিশ্চিন্তকর? আমাদের এই পোড়া দেশে নারীদের সুরক্ষা নিয়ে কতটা অতৎপর প্রশাসন, তা আমরা দেখেছি হাথরস, দিল্লি, পার্ক স্ট্রিটে। কিন্তু ক্রিকেটের নামে এই ধরণের বিকৃত মনস্করা যেভাবে বিশ্বকাপজয়ী একটি অধিনায়কের মেয়েকে নিয়ে এমন মন্তব্য করতে পারে, তারা আদৌ ক্রিকেটের সমর্থক কিনা সন্দেহ হয়।

যদিও ক্রিকেটারদের পরিবারদের নিয়ে এই ধরণের কুমন্তব্য বা অপমানজনক কথাবার্তা নতুন নয়। সম্প্রতি কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিধ্বংসী ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডার আন্দ্রে রাসেলের খারাপ ফর্মের জন্য নেটিজেনরা তার স্ত্রী জাসিম লোরার ইনস্টাগ্রাম পোস্টে কমেন্ট করে জানিয়েছেন যেন তিনি দ্রুত দুবাইয়ে নিজের স্বামীর কাছে চলে আসেন। এদিকে এর ঠিক উল্টোটাই হয়েছে বিরাট কোহলি ও অনুষ্কা শর্মার সাথে। একাধিক বিদেশ সফরে যখনই কোহলি ব্যর্থ হয়েছেন, ততবারই স্ট্যান্ডে নিজের প্রেমিকের প্রতি উৎসাহ দেওয়া অনুষ্কার উপর অভিযোগ তুলেছেন নেটিজেনরা। কেউ কেউ আবার তাকে অপয়ারও আখ্যা দিয়ে দিয়েছিলেন। এই নিয়ে বিরাট ও অনুষ্কা দুজনেই সরব হয়েছিলেন, ব্যাট হাতে ২০১৪ অস্ট্রেলিয়া সিরিজেও এর জবাব দিয়েছিলেন কোহলি, তাও আবার অনুষ্কার উপস্থিতিতে। আর এবার, মাত্রাটি আরও ছাড়িয়ে গেল তা বলাই যায়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *