আর আইপিএল নয়, এবার অন্য ঘরোয়া টুর্নামেন্টেগুলিতেই নজর জাতীয় নির্বাচকদের! 1

মুম্বই: ২০০৮ সালে আইপিএলের পথ চলা শুরু হয়েছে। এবার টুর্নামেন্ট দশম বছর পূর্ণ করল। যে বছর থেকে এই টুর্নামেন্ট শুরু হয়েছে, সেই বছর থেকে ভারতীয় ক্রিকেট দলে নতুন নতুন ক্রিকেটারের আমদানির পরিমাণ অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। আম্বাতি রায়ডু, ইউসুফ পাঠান, অক্ষর প্যাটেল, যশপ্রীত বুমরাহ প্রমুখ এই আইপিএলে ভাল খেলেই নজরে আসেন। এই টুর্নামন্টে ভালো খেলেই ভারতীয় দলে জায়গা করে নেন এই সব ক্রিকেটাররা। এবারের আইপিএলেও বেশকিছু নতুন নাম উঠে এসেছে। ব্যাট হাতে নজর কাড়ছেন দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের নীতিশ রানা।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে অংশগ্রহণ না করলে আখেরে ভারতীয় দলেরই ক্ষতি হবে, এমনটাই মনে করেন রাজীব শুক্ল

তবে অন্য বছরের মতো এবার আর আইপিএলেই ভাল খেললে জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়া যাবে না। এমএসকে প্রসাদের নির্বাচক মণ্ডলী এবার নতুন ক্রিকেটার তুলে আনার জন্য দেশের অন্যান্য ঘরোয়া টুর্নামেন্টগুলির ওপর নির্ভর করছে। নির্বাচকদের এই সিদ্ধান্ত বাহবা যোগ্য হলেও, পুরো আইপিএলকে বাদ দেওয়াটা হয়তো বোকামিই হবে। কারণ এই মুহূর্তে পৃথিবীর সেরা টি-২০ টুর্নামেন্টটি হচ্ছে এই আইপিএল।

প্রাক্তন জাতীয় নির্বাচক এই বিষয়ে বলেন, “সামনে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। আর এই টুর্নামন্টটি একেবারেই অন্য জিনিস। এখানে অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের প্রয়োজন।”

অনেকটা সেই সুরই শোনা গিয়েছে আরেক প্রাক্তন নির্বাচক সাবা করিমের গলাতেও। তিনি বলেন, “আইপিএল পারফরমেন্সের ওপর ভর করে টি-২০ দল বেছে নেওয়া ঠিক আছে। সত্যি বলতে, একটা টি-২০ টিমের জন্য রানাকে বেছে নেওয়া যায়। ৫০ ওভারের দল বাছতে গেলে ওকে নেওয়া যাবে না। ধোনি চোট পেলে ওর জায়গায় ঋষভ পন্থকেও টি-২০ দলে ভাবা যেতে পারে। তবে একদিনের দলে জায়গা পেতে হলে দেশের বাকি ঘরোয়া টুর্নামেন্টগুলিতেও ভাল খেলতে হবে।”

Leave a comment

Your email address will not be published.