এন শ্রীনিবাসনের খোলসা, আইপিএল নিলামে কীভাবে ধোনিকে ছিনিয়ে নিয়েছিল সিএসকে

প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক এমএস ধোনি ২০০৮ এ আইপিএলের শুরু থেকেই চেন্নাই সুপার কিংসের নয়নের মনি হয়ে রয়েছেন। শুরু থেকে এখনো পর্যন্ত এই তারকা ১০টি মরশুম কাটিয়েছেন এই ফ্রেঞ্চাইজির সঙ্গে, এবং তাদের হয়ে প্রায় প্রত্যেক মরশুমে প্লে অফে পৌঁছনোর পাশাপাশি তিনটি খেতাবও জিতিয়েছেন। এর মধ্যে প্রাক্তন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট এন শ্রীনিবাসন জানিয়েছেন কীভাবে এমএস ধোনিকে দলে পেয়েছিল চেন্নাই সুপার কিংস। চেন্নাই সুপার কিংস আইপিএলের উদ্বোধনী মরশুমেই ধোনিকে ১.৫ মিলিয়ন ডলারে কিনে নিয়েছিল। সেই সঙ্গে তিনি উদ্বোধনী মরশুমেই সবচেয়ে দামী প্লেয়ারদের একজন হয়েছিলেন। ওই মরশুমে ধোনি চেন্নাইকে প্লে অফে নিয়ে যান যেখানে তারা শেন ওয়ার্নের রাজস্থান রয়্যালসের হাতে ৩ উইকেটে হেরে যায়। সম্প্রতি এই ৩৯ বছর ইয়ারকা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন কিন্তু তিনি আইপিএল ২০২০তে চেন্নাই সুপার কিংসের নেতৃত্ব দেবেন।

শ্রীনিবাসন জানিয়েছেন কীভাবে ধোনিকে দলে পেয়েছে সিএসকে

এন শ্রীনিবাসনের খোলসা, আইপিএল নিলামে কীভাবে ধোনিকে ছিনিয়ে নিয়েছিল সিএসকে 1

প্রাক্তন বিসিসিআই সভাপতি তথা আইপিএলে চেন্নাই সুপার কিংস ফ্রেঞ্চাইজির মালিকানা প্রাপ্ত ইন্ডিয়া সিমেন্টের প্রধান এন শ্রীসিনাবসন একটি বড়ো খোলসা করেছেন। শ্রীনিবাসন জানিয়েছেন যে চেন্নাই প্রথমে কোনো আইকনিক প্লেয়ারকে নিতে চায়নি। সেই সঙ্গে তিনি আরও জানিয়েছেন যে তারা শচীন তেন্ডুলকরকে নিতে চেয়েছিলেন। যদিও শেষে তারা ধোনিকে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। শ্রীনিবাসন বলছেন যে নিজেদের ব্যাগে থাকা অর্থের দকে তাকিয়ে এই দুই প্লেয়ারের মধ্যে থেকে কাউকে বেছে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। এই ব্যাপারে শ্রীনিবাসন জানিয়েছেন,

“যখন ১.৫ মিলিয়ন ডলারের কথা আসে, আমার মনে হয়ে ওরা অনুভব করেছে যে শচীনকে নিলে তাদের দিতে হত ১.৬৫ মিলিয়ন এবং ধোনির জন্য খরচা হত ১.৫ মিলিয়ন। ওদের কাছে ব্যাগে ৫ মিলিয়ন ছিল এবং তার মধ্যে ৬০ শতাংশ এই দুজনকে নিলে খরচা হত। ফলে তারা শচীনকে নেওয়ার সিদ্ধান্ত বাদ দেয় এবং এভাবেই তারা ধোনিকে পেয়ে যায় কারণ আমি বলেছিলাম যে আমার কোন আইকনকে প্রয়োজন নেই”।

ধোনিকে যে কোনো মূল্যে নিতে চেয়েছিলাম

এন শ্রীনিবাসনের খোলসা, আইপিএল নিলামে কীভাবে ধোনিকে ছিনিয়ে নিয়েছিল সিএসকে 2

শ্রীনিবাসন জানিয়েছেন আইপিএলে সব দলই কোনো আইকনিক প্লেয়ারকে চেয়েছিল, যাদের তারা নিলামে দলের সবচেয়ে বেশি দামী প্লেয়ারদের থেকে দশ শতাংশ টাকা দিতে পারবে। ফলে যখন এমএস ধোনির জন্য বিডিং শুরু হয়তো তিনি সিদ্ধান্ত নেন যে ধোনির জন্য তারা যেকোনো মূল্য দিতে চান। তিনি এই ব্যাপারে বলেন,

“অতএব, দলগুলি সকলেই বলেছিল তারা আইকন চায়। নিলামে দলের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক প্রাপ্ত খেলোয়াড়দের তুলনায় তাদের আইকন প্লেয়ারকে ১০ শতাংশ দিতে হত। ফলে যখন ধোনিকে নিয়ে বিডিং শুরু হয়, তখন ধোনিকে যে কোনো মূল্যে দলে নেওয়ার ব্যাপারে আমি পরিস্কার ছিলাম”।

প্রতিভা চেনার ব্যাপারে এমএস ধোনি সবচেয়ে ভালো

এন শ্রীনিবাসনের খোলসা, আইপিএল নিলামে কীভাবে ধোনিকে ছিনিয়ে নিয়েছিল সিএসকে 3

প্রাক্তন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট ধোনির ভূষয়ী প্রশংসা করেছেন। সেই সঙ্গে তিনি ধোনির প্রতিভা চেনার দক্ষতার কথাও বলার পাশাপাশি দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার কথাও বলেছেন। শ্রীনিবাসন বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ককে এমনকিছু দুর্দান্ত খেলোয়াড়কে দলের নেওয়ার কৃতিত্ব দিয়েছেন যা আগে ছিল না। শ্রীনি বলেন,

“আপনারা জানেন ও এমন একজন ব্যক্তি যাকে আপনি যে কোনো দল দি ও তাদের নেতৃত্ব দেবে। ও প্রতিভা চেনার ব্যাপারে দুর্দান্ত। ধোনি এমন কিছু প্লেয়ারকে সিএসকেতে আনার পরামর্শ দিয়েছিলেন, তারা আগে এত ভালো ছিল না যেটা তারা এখন হয়েছে”।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *