আম্বাতি রায়ডুর বিশ্বকাকে নির্বাচন না হওয়া নিয়ে এমসকে প্রসাদ ভাঙলেন নিরবতা, বললেন চমকে দেওয়ার মতো কথা

ইংল্যান্ড আর ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের আয়োজন গত বছর খেলা হওয়া আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপের জন্য ভারতীয় দলের নির্বাচন নিয়ে একটা বড়ো বিতর্ক দেখা দিয়েছিল। ভারতীয় দলের নির্বাচকরা ভারতের বিশ্বকাপের জন্য যে ১৫ সদস্যের দল নির্বাচন করেছিলেন তাতে হঠাত করেই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান আম্বাতি রায়ডুকে বাদ দেওয়া হয়েছিল।

আম্বাতি রায়ডু বিশ্বকাপে নির্বাচিত না হওয়ায় প্রকাশ করেছিলেন ক্ষোভ

আম্বাতি রায়ডুর বিশ্বকাকে নির্বাচন না হওয়া নিয়ে এমসকে প্রসাদ ভাঙলেন নিরবতা, বললেন চমকে দেওয়ার মতো কথা 1

আম্বাতি রায়ডু বিশ্বকাপের আগে প্রায় এক বছর ধরে নিয়মিত ভারতীয় দলের অংশ থেকেছেন আর খেলছিলেন কিন্তু হঠাৎ করেই তাকে বিশ্বকাপের জন্য যোগ্য মনে করা হয়নি আর বিশ্বকাপের মতো বড়ো টুর্নামেন্টে তাকে উপেক্ষা করার পাশাপাশিই বিজয় শঙ্করকে বেছে নেওয়া হয়। বিশ্বকাপের দলে আম্বাতি রায়ডুর বদলে বিজয় শঙ্করকে বাছা নিয়ে ভারতীয় দলের নির্বাচক প্রধান এমএসকে প্রসাদ বিজয় শঙ্করকে থ্রি ডাইমেনশন প্লেয়ার হিসেবে উল্লেখ করে বিজয় শঙ্করকে দলে নির্বাচিত করার নিজের সিদ্ধান্তের সমর্থন করেছিলেন।

নির্বাচক প্রসাদকে নিয়ে থ্রি ডি চশমার করেছিলেন কমেন্ট

আম্বাতি রায়ডুর বিশ্বকাকে নির্বাচন না হওয়া নিয়ে এমসকে প্রসাদ ভাঙলেন নিরবতা, বললেন চমকে দেওয়ার মতো কথা 2

কিন্তু অন্যদিকে নিজের উপেক্ষিত হওয়ার পর আম্বাতি রায়ডু এতটাই নিরাশ হন যে ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন আর তিনি নির্বাচক প্রধান এমএসকে প্রসাদের উপর নিজের সম্পূর্ণ ক্ষোভ প্রকাশ করে তাকে থ্রি ডি চশমায় বিশ্বকাপে নজর রাখার কমেন্ট করে এই বির্তককে বাড়িয়ে দেন। এরপর আম্বাতি রায়ডুর রাস্তা আরো মুশকিল হয়ে যায় আর তিনি অবসর নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন। কিন্তু কিছু মাসের মধ্যেই তিনি অবসরের সিদ্ধান্তকে পরিবর্তন করে আবারো খেলার ফিরে আসার কথা ভাবেন কিন্তু এখন তার ভারতীয় দলে প্রত্যাবর্তন যথেষ্ট মুশকিল।

আম্বাতি রায়ডুর নির্বাচিত না হওয়া নিয়ে প্রসাদ বললেন এই বড়ো কথা

আম্বাতি রায়ডুর বিশ্বকাকে নির্বাচন না হওয়া নিয়ে এমসকে প্রসাদ ভাঙলেন নিরবতা, বললেন চমকে দেওয়ার মতো কথা 3

এখন এই পুরো বিষয়টি নিয়ে এমএসকে প্রসাদ নিজের নিরবতা ভেঙেছেন। স্টার স্পোর্টসের সঙ্গে বিশেষ কথাবার্তায় এমএসকে প্রসাদ এই বিষয়টি নিয়ে বলেন যে,

“আমি রায়ডুর জন্য গভীরভাবে অনুভব করেছি। আমি স্পষ্টভাবে বলতে পারি, এটা ভীষণই স্পর্শকাতর বিষয় ছিল। আমাদের কমিটি অনুভব করেছিল যে ওর ২০১৬র জিম্বাবোয়ে সফরের পর টেস্ট নির্বাচনের র্যা ডার থাকা উচিত ছিল। আমি ওর সঙ্গে কথা বলি যে ও টেস্ট ক্রিকেটে কেনো মনোযোগ দিচ্ছে না। যদি আপনাদের মনে থাকে তো আইপিএলের প্রদর্শনের আধারেই আমরা ওকে ওয়ানডে ম্যাচের জন্য বেছেছিলাম যা বেশকিছু মানুষের কাছে উচিত নয় বলেও মনে হতে পারত”।

প্রসাদ আগে আরো বলেন যে,

“তারপর আমরা এসিএতে এক মাসের জন্য ওর ফিটনেসের উপর ধ্যান কেন্দ্রিত করি। ওখানে ওকে সাহায্য করি। ও একটা সীমা পর্যন্ত পৌঁছেছিল। দুর্ভাগ্যবশত আমি সেটার উপরও আহত অনুভব করছি যা ওর সঙ্গে হয়েছে। আমার ওর জন্য খারাপ লাগছে।

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *